বোয়িং নিয়ে বিরোধ, মার্কিন পণ্যে শুল্ক আরোপ করছে ইইউ | বিশ্ব | DW | 11.11.2020
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বিশ্ব বাণিজ্য

বোয়িং নিয়ে বিরোধ, মার্কিন পণ্যে শুল্ক আরোপ করছে ইইউ

বিমান নির্মাতা প্রতিষ্ঠান বোয়িং ও এয়ারবাসকে ভর্তুকি প্রদান করা নিয়ে সৃষ্ট বিরোধের অংশ হিসেবে পনির এবং ওয়াইনের মতো ইউরোপীয় পণ্যের উপর শুল্ক আরোপ করেছিল যুক্তরাষ্ট্র৷ ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) পাল্টা ব্যবস্থা নিয়েছি৷

ইউরোপীয় কমিশনের এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট ভালডিস ডম্ব্রভস্কিস সোমবার জানিয়েছেন যে ইউরোপে রপ্তানি করা মার্কিন বেশ কিছু পণ্যের উপর শুল্ক ও অন্যান্য জরিমানা আরোপ করতে যাচ্ছে ইইউ, অর্থের হিসেবে যা চার বিলিয়ন মার্কিন ডলার৷

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র বোয়িংকে অবৈধভাবে ভর্তুকি প্রদান করার প্রতিবাদে এসব শুল্ক আরোপ করছে ইইউ৷ অক্টোবরে বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থা (ডব্লিউটিও) এক রায়ে এধরনের শুল্ক আরোপের বিষয়টি অনুমোদন দিয়েছে৷ এরপর ইইউভুক্ত বিভিন্ন দেশের বাণিজ্যমন্ত্রীরা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে নতুন শুল্ক আরোপের সিদ্ধান্তে একমত হয়৷

যুক্তরাষ্ট্র অবশ্য গতবছরই ইউরোপের বিভিন্ন পণ্যের উপর এধরনের শুল্ক আরোপ করেছিল৷ ওয়াইন, পনির, সিঙ্গেলমল্ট হুইস্কির উপর আরোপ করা সেই শুল্কের পরিমাণ আর্থিক হিসেবে সাত বিলিয়ন মার্কিন ডলারের মতো৷ মার্কিন প্রতিষ্ঠান বোয়িং এবং ইউরোপীয় প্রতিষ্ঠান এয়ারবাসকে ভর্তুকি দেয়া নিয়ে গত ষোল বছর ধরেই ইউরোপের সঙ্গে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের এই বিরোধ চলছে৷

বিশেষজ্ঞরা অবশ্য মার্কিন নির্বাচনে জো বাইডেন জেতার পরপরই ইইউ'র এই ঘোষণায় কিছুটা অবাক হয়েছেন৷ তারা মনে করছেন, এই ঘোষণা আরো কিছুদিন অপেক্ষা করার পর দেয়া যেত কেননা বাইডেন হয়ত বিষয়টি অন্যকোনোভাবে সুরাহার চেষ্টা করতেন৷

জার্মানিতে আমেরিকান চেম্বার অব কমার্স লবি গ্রুপের প্রেসিডেন্ট ফ্র্যাঙ্ক স্পোর্টোলারি এই বিষয়ে বলেন, ‘‘আমার মনে হয় এই সিদ্ধান্ত অবিশ্বাস্যভাবে স্বল্পদৃষ্টির পরিচয় দিচ্ছে৷ আগামী দু'মাসের মধ্যে দায়িত্ব গ্রহণ করতে যাচ্ছেন বাইডেন৷ আমরা কেন অপেক্ষা করতে পারছি না? এবং একসঙ্গে সামনে আগানোর পথ খুঁজছি না? আমাদের এই ‘টিট ফর ট্যাট’ মানসিকতা থেকে বেরিয়ে আসতে হবে৷’’

স্পোর্টোলারি আশা করছেন, বাইডেন ভূ-রাজনীতিকে বাণিজ্যের সঙ্গে মেলাবেন না ‘‘যা ট্রাম্প করেছেন’’৷ জার্মানির অর্থমন্ত্রী পিটার আল্টমায়ারও একইরকম আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন৷

এআই/কেএম (ডিপিএ, এএফপি, রয়টার্স)

সংশ্লিষ্ট বিষয়