1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

ডোনাল্ড ট্রাম্পের সমালোচনা করে তোপের মুখে পোপ

জিকা ভাইরাস, জন্মনিরোধ, গর্ভপাত ও ডোনাল্ড ট্রাম্প সম্পর্কে মন্তব্য করেছেন পোপ৷ তাঁকে ‘খ্রিষ্টান নয়' বলায় ট্রাম্প শুরু করেছেন পোপের সমালোচনা৷আইএস ভ্যাটিক্যানে হামলা চালালেই নাকি বোঝা যাবে ট্রাম্প কত বড় খ্রিষ্টান৷

মেক্সিকো সফর শেষে ভ্যাটিকানে ফেরার আগে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়েছিলেন ক্যাথলিক খ্রিষ্টানদের সর্বোচ্চ ধর্মগুরু পোপ ফ্রান্সিস৷ আধুনিক মনস্কতা এবং বেশ সাহসী মন্তব্যের কারণে ইতিমধ্যে আলোচিত পোপ আবারও আলোচনায় এসেছেন তাঁর কিছু মন্তব্যের কারণে৷ জিকা ভাইরাসের প্রাদূর্ভাব রোধের বিষয়ে কথা বলতে গিয়ে জন্ম নিয়ন্ত্রণ এবং গর্ভপাতের বিষয়েও সরাসরি মন্তব্য করেছেন ৮০ বছর বয়সি ধর্মীয় নেতা৷ এমনিতে জন্মনিরোধ এবং গর্ভপাতের বিরোধী হলেও জিকা ভাইরাসের কারণে শিশুর ‘ত্রুটিযুক্ত জন্মের' চেয়ে জন্মনিরোধ এবং গর্ভপাত কম খারাপ কিনা – এমন একটি প্রশ্নের জবাবে পোপ বলেছেন, ‘‘গর্ভপাত মোটেই কম অশুভ নয়৷ গর্ভপাত একটি অপরাধ৷ এটা একজনকে বাঁচানোর জন্য আরেকজনকে মেরে ফেলার নামান্তর৷ এমন কাজ মাফিয়ারা করে থাকে৷''

USA Wahlkampf TV Debatte South Carolina Republikaner - Donald Trump

এবার পোপের বিরুদ্ধে ট্রাম্পের তোপ

তবে গর্ভধারণ এড়ানোর জন্য ব্যবস্থা গ্রহণ সম্পর্কে পোপ ফ্রান্সিস বলেন, ‘‘গর্ভধারণ এড়ানোটা কখনোই চূড়ান্ত রকমের অশুভ বিষয় নয়৷''

জিকা ভাইরাসের সংক্রমণ মূলত সংক্রমিত মশার কারণেই হয়৷ তবে অনিয়ন্ত্রিত যৌনমিলনের কারণেও কিছু মানুষের সংক্রমিত হওয়ার প্রমাণ পাওয়া গেছে৷

প্রয়োজনে জন্মনিরোধক ব্যবহার করায় কোনো সমস্যা নেই – এমন মত প্রকাশ করতে গিয়ে চার দশক আগে যে একজন ক্যাথলিক ধর্মযাজকের অনুমতিতে সন্ন্যাসিনীরাও জন্মনিরোধক ব্যবহার করেছিলেন সেই দৃষ্টান্ত তুলে ধরেন পোপ ফ্রান্সিস৷ তিনি জানান, পোপ পল (ষষ্ঠ)-এর সময়ে একবার আফ্রিকায় মানবিক সেবাদানের মিশনে গিয়ে ধর্ষণের ঝুঁকির মুখোমুখি হয়েছিলেন খ্রিষ্টান সন্ন্যাসীরা৷ ধর্ষণের কারণে অনেকে অনাকাঙ্খিতভাবে গর্ভধারণও করেছিলেন৷ তখন সন্ন্যাসীদের গর্ভনিয়ন্ত্রণের জন্য আগাম ব্যবস্থা নেয়ার অনুমতি দিয়েছিলেন বলে জানান পোপ ফ্রান্সিস

যুক্তরাষ্ট্রের রিপাবলিকান দলের নেতা ডোনাল্ড ট্রাম্প সম্পর্কেও তাঁর মন্তব্য জানতে চেয়েছিলেন সাংবাদিকরা৷ ট্রাম্প যে ১ কোটি ১০ মানুষকে যুক্তরাষ্ট্র থেকে বের করে দেয়ার ঘোষণা দিয়েছেন, বলেছেন প্রেসিডেন্ট হলে তিনি যুক্তরাষ্ট্র-মেক্সিকো সীমান্তে দেয়াল তুলে অভিবাসীদের স্রোত বন্ধ করবেন – এ সব সম্পর্কে পোপের মন্তব্য, ‘‘কোনো ব্যক্তি যদি সেতু না গড়ে মানুষের মাঝে দেয়াল গড়তে চায়, তাহলে সে খ্রিষ্টান নয়৷''

এই মন্তব্য শুনে তেলেবেগুনে জ্বলে উঠেছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প৷ উল্টে পোপ ফ্রান্সিসের সমালোচনা করে বলেছেন, ‘‘একজন ধর্মীয় নেতার কারো ধর্মবিশ্বাস নিয়ে প্রশ্ন তোলাটা খুব লজ্জাজনক৷'' এখানেই থেমে থাকেননি ট্রাম্প৷ নিজের ধর্মানুরাগ সম্পর্কে ধারণা দিতে গিয়ে বিতর্কিত এই রিপাবলিকান নেতা বলেন, ‘‘আমরা তো জানি আইএস বা আইসিস-এর প্রধান লক্ষ্য হলো ভ্যাটিকানে হামলা চালানো৷ আমি নিশ্চিতভাবেই বলতে পারি, আইসিস যদি কখনো ভ্যাটিকানে হামলা চালায় তখন পোপ নিশ্চয়ই ভাববেন ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রেসিডেন্ট হলেই ভালো হতো, কেননা তিনি থাকলে কখনোই এ হামলা হতো না৷''

এসিবি/ডিজি (এএফপি, রয়টার্স, ডিপিএ)

পোপ ফ্রান্সিস ডোনাল্ড ট্রাম্প সম্পর্কে বলেছেন, ‘‘কোনো ব্যক্তি যদি সেতু না গড়ে মানুষের মাঝে দেয়াল গড়তে চায়, তাহলে সে খ্রিষ্টান নয়৷'' প্রিয় পাঠক, আপনি কি তাঁর সঙ্গে একমত? নীচে আপনার মন্তব্য লিখুন৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন