1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

‘আমরা যে আরো বেশি করিনি, সেটা একটা ট্র্যাজেডি'

প্যারিসের জলবায়ু চুক্তি ইতিমধ্যেই ‘ঐতিহাসিক' বলে সারা পৃথিবীতে প্রশংসা কুড়োচ্ছে৷ কিন্তু সেই প্রশংসা কি তার সত্যিই প্রাপ্য? গ্রেহেম লুকাস-এর সন্দেহ আছে৷

ভালো দিকটা দিয়েই শুরু করা যাক৷ পৃথিবী নামক গ্রহটিতে মানুষ নামক জীবটির ভবিষ্যৎ নিশ্চিত করার জন্য চুক্তি স্বাক্ষরে বিগত কয়েক বছরের ব্যর্থতার পর প্যারিস চুক্তিকে একটি সাফল্য বলে গণ্য করা চলে বৈকি৷ গত এক দশক বা তার বেশি সময় ধরে যে বিতর্ক চলেছে, তা বিবেচনা করলে বলতে হয় যে, যারা জলবায়ু পরিবর্তন ও সেই পরিবর্তনে মানুষের দায়িত্বের কথা অস্বীকার করে থাকেন, তারা এখন হারতে বসেছেন৷ যুক্তরাষ্ট্রে কিছু কিছু কট্টর রিপাবলিকান জলবায়ু পরিবর্তনের সত্যতা অস্বীকার করতে থাকবেন, কিন্তু তা সত্ত্বেও তাদের যুক্তি ইতিহাসের আস্তাকুঁড়ে গিয়ে পড়বে, তা রিপাবলিকান প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থীরা নির্বাচনে জিতলে যতোই প্যারিস চুক্তি ছিঁড়ে টুকরো টুকরো করার হুমকি দিন না কেন৷ চীন আর ভারত কার্বন নির্গমন সম্পর্কে তাদের সুর পালটেছে৷ অধিকাংশ পশ্চিমি দেশ ধীরে ধীরে দায়িত্ব নিতে শিখছে, নিম্ন কার্বন অর্থনীতির প্রতি তাদের আকর্ষণ বাড়ছে৷

প্যারিস চুক্তির ঘোষিত লক্ষ্য হল, বিশ্বের উষ্ণায়ন দেড় ডিগ্রি সেন্টিগ্রেডে সীমিত রাখা৷ এই লক্ষ্য অর্জন করা শেষমেষ সম্ভব না হলেও, তার উল্লেখটাই তো একটা অর্জন৷ শতাব্দী শেষ হওয়ার আগে বিশ্বের তাপমাত্রা আসলে দুই থেকে তিন ডিগ্রি বাড়বে বলে বিজ্ঞানীদের ধারণা৷ তাহলে প্যারিস চুক্তি জলবায়ু পরিবর্তন রুখবে কীভাবে? দুঃখের বিষয়, ঐ চুক্তির দরুন কেউই কিছু করতে বাধ্য নয়৷ অশ্মীভূত জ্বালানি বর্জন করার কোনো সময়সীমা নির্দিষ্ট করা হয়নি৷ অপরদিকে ইচ্ছামতো তেল-কয়লা-গ্যাসের ব্যবহার চালিয়ে যাওয়ার জন্যও কোনো দণ্ড নেই৷

প্যারিস চুক্তির স্বাক্ষরকারী দেশসমূহ কার্বন নির্গমন হ্রাস করতে, এই হ্রাসের লক্ষ্য ও পরিমাণ নিজেরাই নির্দিষ্ট করতে এবং নবায়নযোগ্য জ্বালানির ব্যবহার বৃদ্ধি করতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ৷

Lucas Grahame Kommentarbild App

গ্রেহেম লুকাস, ডয়চে ভেলের দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া বিভাগের প্রধান

কিন্তু এ সবই স্বেচ্ছায়, বাধ্যতামূলভাবে নয়৷ একক দেশগুলি তাদের দায়িত্ব পালন করছে কিনা, অথবা তাদের প্রতিশ্রুতি পূরণ করছে কিনা, তা পরখ করার কেউ নেই৷ অর্থাৎ চুক্তি মেনে না চললেও কোনো সাজা হবে না৷

সবসুদ্ধ বলা চলে যে, প্যারিস চুক্তি ছ'বছর আগে কোপেনহেগেনের মতো পুরোপুরি ব্যর্থ নয়৷ একদিন হয়তো বিশ্বের মানুষ এই চুক্তির কথা স্মরণ করে বলবে, ‘‘পৃথিবীর মানুষ সেই সময় উপলব্ধি করতে শুরু করে, জলবায়ু পরিবর্তনের পরিণতি কী হতে পারে৷ তবে আমরা যে তখন আরো বেশি করিনি, সেটা একটা ট্র্যাজেডি বৈকি৷''

আপনি কি গ্রেহেম লুকাস-এর সঙ্গে একমত? জানান নীচের মন্তব্যের ঘরে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়