শ্রীলঙ্কায় দাঙ্গায় নিহত এক মুসলিম | বিশ্ব | DW | 14.05.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

শ্রীলঙ্কা

শ্রীলঙ্কায় দাঙ্গায় নিহত এক মুসলিম

দেশব্যাপী কারফিউয়ের মধ্যেও শ্রীলঙ্কায় দুর্বৃত্তদের হামলায় এক মুসলিম নিহত হয়েছে৷ এদিকে গুজব ছড়ানো বন্ধ করতে সামাজিক যোগাযোগ নেটওয়ার্ক বন্ধ করে দিয়েছে সরকার৷

শ্রীলঙ্কায় নতুন করে ধর্মীয় দাঙ্গা শুরু হয়েছে৷ আইন-শৃঙ্খলা রক্ষায় দেশজুড়ে জারি হওয়া সান্ধ্য আ্ইন মঙ্গলবার তুলে নিয়েছে সরকার৷ তবে তা দেশের উত্তর-পশ্চিমে বহাল রাখা হয়েছে৷ সোমবার রাতে দুর্বৃত্তদের হামলায় সেখানে এক মুসলিম নাগরিকের মৃত্যু হয়৷ ৪৫ বছল বয়সি ঐ ব্যক্তিকে হাসপাতালে নেয়া হলে কিছুক্ষণের মধ্যেই তিনি মারা যান৷

‘‘দাঙ্গাকারীরা ধারালো অস্ত্র নিয়ে তাঁর দোকানে হামলা চালায়৷ এটিই দাঙ্গায় প্রথম মৃত্যুর ঘটনা,'' বার্তা সংস্থা এএফপিকে এই কথা বলেন একজন পুলিশ কর্মকর্তা৷

নতুন করে এই হামলা শুরু হয়েছে একজন ক্যাথলিক যাজকের ছড়ানো একটি বার্তা থেকে৷ সেখানে তিনি অনুসারীদের সতর্ক থাকার কথা বলেন, যা সহিংস এলাকাগুলোতে নতুন করে উদ্বেগ তৈরি করেছে বলে বিবৃতি দিয়েছে পুলিশ৷

 

সামাজিক গণমাধ্যমে বাধা

গত রোববার নতুন করে সহিংসতা শুরু হওয়ার পর সামাজিক নেটওয়ার্ক ও ম্যাসেজিং অ্যাপগুলো বন্ধ করে দেয় সরকার৷ প্রেসিডেন্ট রনিল বিক্রমসিংহে দাঙ্গার ঘটনায় নিন্দা জানিয়েছেন৷ পাশাপাশি জনগণের প্রতি গুজব না ছড়ানোর আহ্বানও জানিয়েছেন তিনি৷ ‘‘আমি নাগরিকদের শান্ত এবং কোনো ধরনের মিথ্য তথ্যে বিভ্রান্ত না হওয়ার আহবান জানাচ্ছি,'' টুইটারে এই বার্তা দেন তিনি৷ সামাজিক যোগযোগ মাধ্যমগুলোর মধ্যে সেখানে একমাত্র টুইটারই সচল রেখেছে সরকার৷

গত মাসে ইস্টার ডে-তে একযোগে তিনটি হোটেল ও তিনটি চার্চে হামলার ঘটনায় দেশটিতে ২৫০ জনের বেশি মানুষের মৃত্যু হয়৷ এরপর থেকে সেখানে জরুরি অবস্থা জারি রয়েছে৷

 শ্রীলঙ্কার ২ কোটি ২০ লাখ মানুষের মধ্যে দশ ভাগ মুসলমান, খ্রিষ্টান সাড়ে সাত ভাগ আর বাকি সিংহভাগই বৌদ্ধ ধর্মের অনুসারী৷

এফএস/এসিবি (ডিপিএ, রয়টার্স, এএফপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

বিজ্ঞাপন