রেললাইনের পাশের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ শুরু | বিশ্ব | DW | 12.09.2014
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

রেললাইনের পাশের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ শুরু

ঢাকাসহ সারাদেশে রেলক্রসিংগুলো যেন মৃত্যুফাঁদে পরিণত হয়েছে৷ এর সঙ্গে যুক্ত হয়েছে রেললাইনের দু'পাশে গড়ে ওঠা অবৈধ বাজার ও স্থাপনা৷ শুধু ঢাকা মহানগর এলাকায় গত নয় মাসে রেলক্রসিং-এ দুর্ঘটনায় ১৬০ জন নিহত হয়েছেন৷

এদিকে বৃহস্পতিবার ঢাকার কারওয়ান বাজারে চারজন নিহত হওয়ার ঘটনায় শুক্রবার থেকে রেললাইনের পাশে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ শুরু করেছে রেল কর্তৃপক্ষ৷

বৃহস্পতিবার সকালে ময়মনসিংহ থেকে ঢাকাগামী যমুনা আন্তঃনগর ট্রেনটি কমলাপুরের দিকে যাচ্ছিল৷ একই সময়ে পাশের লাইন দিয়ে যাচ্ছিল ঢাকা থেকে চট্টগ্রামমুখী কর্ণফুলী ট্রেন৷ ঢাকার কারওয়ান বাজার রেলক্রসিং-এর দু'পাশেই রেললাইনের ওপর অবৈধ বাজার বসায় সেখানে মানুষের ভীড় ছিল৷ দুই ট্রেনের ফাঁকে আটকে গিয়ে মোট চারজন নিহত হন৷ রেলক্রসিং-এর আশেপাশে রেললাইনের ওপর এরকম অবৈধ বাজার বসছে সারাদেশেই৷

এর আগে গত ২৯ এপ্রিল কমলাপুর টিটিপাড়ায় রেলক্রসিং-এ ট্রেনের সঙ্গে বাসের সংঘর্ষে প্রাণ হারান চারজন৷ গত ১২ জুন মগবাজার ওয়্যারলেস রেলগেটের কাছে ট্রেনে কাটা পড়ে নিহত হন এক ব্যক্তি৷ আর গতমাসে মগবাজার রেলগেটের কাছে নারায়ণগঞ্জের সাত খুনের ঘটনার প্রধান আসামি নূর হোসেনের সহযোগীর গাড়ি ট্রেন দুর্ঘটনায় পড়ে৷

কমলাপুর রেল পুলিশের অপারেশন অফিসার রফিকুল ইসলাম জানান, গত ৯ মাসে ঢাকা বিভাগে ট্রেনের নীচে পড়ে ২৩৮ জন মারা গেছেন৷ এর মধ্যে ১৯২ জন পুরুষ এবং ৪৬ জন নারী৷ শুধু ঢাকা মহাগরীতে নিহত হয়েছেন ১৬০ জন৷

বর্তমানে নারায়ণগঞ্জ থেকে টঙ্গী পর্যন্ত রেললাইনে ৩৫টি রেলক্রসিং রয়েছে৷ এর মধ্যে অবৈধ ২১টি এবং বৈধ মাত্র ১৪টি৷ অনুমোদনহীন ক্রসিংয়ে কোনো গেটম্যান থাকে না৷

বাংলাদেশে মোট ২,৮৩২ কিলোমিটার রেললাইন আছে৷ প্রতিদিন মোট ৩৩৫টি ট্রেন চলাচল করে৷ বৈধ, অবৈধ মিলিয়ে সারাদেশে মোট ২,৫৪১টি রেলক্রসিং রয়েছে৷ এর মধ্যে অনুমোদিত রেলক্রসিং ১,৪১৩টি এবং অবৈধ ক্রসিংয়ের সংখ্যা ১,১২৮টি৷

রেলক্রসিং-এ পর্যাপ্ত গেটম্যান না থাকা এবং ক্রসিং এলাকার রেললাইনের দু'পাশে অবৈধ বাজার দুর্ঘটনার অন্যতম কারণ বলে মনে করেন বিশেষজ্ঞরা৷

ঢাকার রেল পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আব্দুল মজিদ দাবি করেন, তাঁরা বারবার রেললাইন ও পাশের জায়গায় বাজার-দোকান সরিয়ে নেয়ার বিষয়ে তাগিদ দেয়ার পরও ব্যবসায়ীরা কোনো কথা শোনেন না৷ তাঁরা রেললাইনের ওপর নির্দ্বিধায় দোকান সাজিয়ে বসেন৷ এ কারণে প্রায়ই ছোট-বড় দুর্ঘটনা ঘটে৷ তবে অভিযোগ রয়েছে এসব দোকান-পাট যোগসাজশ করেই বসানো হয়৷

Galerie - Hafenarbeiter in Bangladesch

গত ৯ মাসে ঢাকা বিভাগে ট্রেনের নীচে পড়ে ২৩৮ জন মারা গেছেন৷

রেলওয়ের সম্পত্তি কর্মকর্তা নুরুন্নবী কবির জানান, কারওয়ান বাজারের দুর্ঘটনার পর তাঁরা ঢাকাসহ সারাদেশে রেললাইনের দু'পাশে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন৷ কারওয়ান বাজারে শুক্রবার থেকে অভিযান শুরু হয়েছে৷ সারাদেশে অবৈধ দোকান-পাট, বাজার এবং স্থাপনা উচ্ছেদের অভিযানও শুরু হবে দ্রুত৷ তিনি জানান, এর বাইরে অবৈধ রেলগেটগুলো বন্ধ করা এবং বৈধ রেল গেটে গেটম্যানদের উপস্থিতি নিশ্চিত করার কাজও শুরু হয়েছে৷

শীর্ষে বাংলাদেশ

উল্লেখ্য, এই উপমহাদেশে রেল দুর্ঘটনার ক্ষেত্রে সংখ্যার দিক থেকে শীর্ষে রয়েছে বাংলাদেশ৷ গত ৬ মাসে বাংলাদেশে ৮২টি রেল দুর্ঘটনা ঘটেছে৷ সে তুলনায় ভারত, পাকিস্তান ও শ্রীলঙ্কায় দুর্ঘটনার সংখ্যা অনেক কম৷ গত ৬ মাসে ভারতে ২৭টি ও পাকিস্তানে ৯টি রেল দুর্ঘটনা ঘটে৷ আর শ্রীলঙ্কায় ২০১২ সালের পর কোনো দুর্ঘটনাই ঘটেনি৷ ২০১৩ সালে বাংলাদেশে রেল দুর্ঘটনা রেকর্ড ছাড়িয়ে যায়৷ সে বছর মোট রেল দুর্ঘটনা ঘটে ২৩১টি৷ যার মধ্যে পূর্বাঞ্চলে ১৫৭টি এবং পশ্চিমাঞ্চলে ৭৪টি৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন