রামুর বৌদ্ধ পল্লী নতুন করে গড়ে তোলা হচ্ছে | বিশ্ব | DW | 25.02.2013

ডয়চে ভেলের নতুন ওয়েবসাইট ভিজিট করুন

dw.com এর বেটা সংস্করণ ভিজিট করুন৷ আমাদের কাজ এখনো শেষ হয়নি! আপনার মতামত সাইটটিকে আরো সমৃদ্ধ করতে পারে৷

  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বিশ্ব

রামুর বৌদ্ধ পল্লী নতুন করে গড়ে তোলা হচ্ছে

সাম্প্রদায়িক হামলায় বিধ্বস্ত রামুর বৌদ্ধ পল্লী আবার উঠে দাঁড়াচ্ছে৷ ক্ষতিগ্রস্ত ১২টি মন্দির এবং ৩০টি বাড়ি নির্মাণ করা হচ্ছে সরকারি উদ্যোগে৷ আর এই নির্মাণ কাজ করছে সেনাবাহিনী ও বিজিবি৷

সংশ্লিষ্টরা জানান, জুন মাসের মধ্যে কাজ শেষ হবে৷ আর মন্দিরে বৌদ্ধ মূর্তি আনা হতে পারে থাইল্যান্ড থেকে৷

গত বছরের ২৯শে সেপ্টেম্বর রাতে কক্সবাজারের রামু বৌদ্ধ বসতিতে সাম্প্রদায়িক হামলায় এক ভয়াবহ পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়৷ ধ্বংস করা হয় মন্দির, পুরাকীর্তি এবং ঘর-বাড়ি৷ আর আতঙ্কিত হয়ে পড়েন বৌদ্ধ সম্প্রদায়৷ কিন্তু সরকারের দ্রুত ব্যবস্থার কারণে এখন পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়ে এসেছে৷ ক্ষতিগ্রস্ত মন্দির এবং বাড়ি ঘর নির্মাণ করা হচ্ছে সরকারি ব্যবস্থাপনায়৷ জুন মাসের মধ্যে নির্মাণ কাজ শেষ হবে৷ যা ডয়চে ভেলেকে জানান রামুর বৌদ্ধ পল্লীর এই কাজের সঙ্গে জড়িত বিটাকের নির্বাহী পরিচালক শিশির দত্ত৷

আর রামু বৌদ্ধ পল্লীর নেতা অধ্যাপক পরীক্ষিত বড়ুয়া ডয়চে ভেলেকে জানান, যে আস্থাহীনতার সঙ্কট তৈরি হয়েছিল তা অনেকটাই কেটে গেছে৷

একই কথা বলেন শিশির দত্ত৷ ধ্বংস করে ফেলা বৌদ্ধ মূর্তিসহ আরো অনেক ঐতিহাসিক নিদর্শন আর ফিরিয়ে আনা সম্ভব নয়৷ তবে থাইল্যান্ড সরকারের সহায়তায় বৌদ্ধ মূর্তিগুলো পুন:স্থাপনের চেষ্টা চলছে বলে জানান তিনি৷

তারা দু'জনই জানান মন্দিরগুলো আগের রূপে ফিরে পাওয়া যাবে না৷ তবে তাদের সম্মতি নিয়েই নতুন নকশা করা হয়েছে৷ তারা আশা করেন নতুন মন্দির এবং বাড়ি তৈরির কাজ শেষ হলে এটাও বাংলাদেশে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির নতুন এক দৃষ্টান্ত হবে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন