রমজান এলেই আলোচনায় তিনি | বিশ্ব | DW | 01.06.2017
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

ব্লগওয়াচ

রমজান এলেই আলোচনায় তিনি

রমজান এলেই বিভিন্ন টেলিভিশনে ইফতারের আয়োজন নিয়ে নানা অনুষ্ঠান হয়৷ তেমনি একটি অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন কেকা ফেরদৌসী৷ তার বেশ কিছু রেসিপি নিয়ে চলছে আলোচনা-সমালোচনা, তৈরি হচ্ছে কমেডি ভিডিও৷ তবে তাঁর পক্ষেও অবস্থান অনেকের৷

প্রতি বছর রোজার সময় একটি বিশেষ কোম্পানির নুডলসের সৌজন্যে একটি বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেলে কেকা ফেরদৌসী এই রান্নার অনুষ্ঠানটি করেন৷ যেহেতু নুডলস কোম্পানির সৌজন্যে অনুষ্ঠান, তাই হয়ত নুডলস দিয়ে রান্নাগুলোই করতে হয়৷ আর সেই রকম কয়েকটি রান্না নিয়েই অনেকে ফেসবুক সরগরম করছেন৷ তবে এ বছর কেন হঠাৎ আবার তাঁকে নিয়ে আলোচনা শুরু হলো তা জানা যায়নি৷ যেসব রেসিপি নিয়ে আলোচনা হচ্ছে, সেগুলো ২০১৪ সালে রোজার সময় প্রচারিত অনুষ্ঠানের৷

আর সেই সময় তিনি প্রথম আলোচনায় আসেন নুডলসের পায়েস বানিয়ে৷ সেই সময় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এটা নিয়ে ব্যাপক আলোচনা হয়৷

এবার বেশি আলোচনা হচ্ছে নুডলসের আচার নিয়ে৷ যদিও সেটা সেই ২০১৪ সালের অনুষ্ঠানের৷ তবে রোজা শুরুর সাথে সাথে প্রায় প্রতিদিনই প্রচারিত হচ্ছে এই অনুষ্ঠান৷ তাই কেকা ফেরদৌসীর পুরোনো, নতুন সব রেপিসি নিয়েই চলছে আলোচনা-সমালোচনা-কটাক্ষ৷

হাফিজ আল ফারুকি লিখেছেন, ‘‘প্রতিভা থাকলে ঠেকায় কে? নুডলস দিয়ে আচার বানানোর কথা জন্মেও কল্পনা করেছেন?’’

রহমান রাশেদ অন্য একজনের মন্তব্য তুলে ধরেছেন নিজের ফেসবুক পাতায়৷ সেখানে লেখা, ‘‘সরকারী পৃষ্ঠপোষকতা পেলে কেকা ফেরদৌসী নুডলস দিয়ে পদ্মা সেতু বানিয়ে দিবেন৷’’

আরিশা রহমান অবশ্য এসব রান্নাবান্না বিষয়ে ছেলেদের আগ্রহই বেশি বলে মন্তব্য করেছেন৷ তিনি লিখছেন, ‘‘ভাইয়ারা নিয়মিত ঘড়ি ধরে রান্নার অনুষ্ঠান দেখেন এটার প্রমাণ নিউজফিডেই পাওয়া যাচ্ছে৷ তাদের ভাষ্যমতে- ‘বস্তা পচা এই অনুষ্ঠানের’ জনপ্রিয়তা অজান্তে তারা নিজেরাই বাড়াচ্ছেন৷’’

রফিক সুলায়মান ফেসবুকে লিখেছেন, ‘‘কেকা ফেরদৌসী’র শাহী নিয়ামত নুডলসের আচার৷ ফেরদৌসী'র শাহনামা এর কাছে কিছুই না৷’’

মো সাজ্জাদুল আলম সজীব মনে করতেন কেকা ফেরদৌসীর রান্না বিষয়ক সব কথা বানোয়াট৷ তিনি লিখেছেন, ‘‘তাকে ট্রল করা সব পোস্ট দেখে মনে করতাম মজা নেয়ার জন্য এগুলো করেছে৷ কিন্তু আজকে কৌতুহলবশত ইউটিউবে তার রেসিপি দেখে এলাম৷ সত্যিই ভয়ংকর...নুডলসের ভর্তা, নুডলসের পায়েস...আর না বলি, রোজাদারেরা কষ্ট পাবেন৷’’

মোঃ জাহাঙ্গীর হোসেন ব্যাঙ্গ করে লিখেছেন, ‘‘ভাবছি একটা ডিনার পার্টি দিবো৷ কেকা ফেরদৌসী শেফ থাকবেন৷ কে কী মেনু খেতে চান?’’ উত্তরে অদ্ভুত সব খাবারের নাম লিখেছেন অনেকে৷

লুডলসের আচার বানানোর অনুষ্ঠানটির ভিডিওর নীচে অনেকেই জানতে চেয়েছেন, আচার খেয়ে হজম করতে পারবেন কিনা ৷ এ বিষয়ে মনে সন্দেহ রয়েছে বলেও জানিয়েছেন তারা৷

এন রহমান লিমন কেকা ফেরদৌসীর রান্নার অনুষ্ঠানের বিভিন্ন দিক উল্লেখ করে লিখেছেন, ‘‘তাঁর বিশেষত্ব তিনি সমুদ্রের তীরে তীব্র বাতাসে বসেও মাটির চুলায় রান্না করতে পারেন৷ এছাড়া উনি নুডলস এক্সপার্ট হিসেবে খ্যাতির শীর্ষে অবস্থান করছেন৷’’ তাঁর উল্লেখযোগ্য রেসিপি হিসেবে নুডলসের আচার, নুডলসের ভর্তা, নুডলসের কেক এর কথা উল্লেখ করেছেন৷

রাহাত আমিন ফেসবুকে লিখেছেন, ‘‘দিনে দিনে কেকা ফেরদৌসী আপার যেসব এপিক লেভেলের রেসিপি হচ্ছে, তাতে হয়তো এই রমজান মাসে জিলাপি আর পেঁয়াজু দিয়ে লেবুর সরবত তৈরির প্রক্রিয়াও দেখিয়ে দেবেন৷’’

মশিউর বাপ্পী বিভিন্ন ধরনের খাবারের নাম দিয়েছেন, যেমন, নুডলসের বড়া, নুডলসের লাচ্ছি, নুডলসের ফালুদা, নুডলসের চিকেন ফ্রাই৷ তিনি প্রশ্ন রেখেছেন, ‘‘কেকা ফেরদৌসী আপার রেসিপি কি মানব সম্প্রদায়ের জন্য, নাকি অন্য কোনো প্রজাতির জন্য?’’

তবে কেকা ফেরদৌসীর পক্ষেও অনেকে মন্তব্য করেছেন৷ তাদের মধ্যে একজন কানিজ আকলিমা সুলতানা৷ যিনি লিখেছেন, ‘‘কেকা ফেরদৌসী যদি সুন্দর উচ্চারণে কথা বলতেন, অথবা তিনি পুরুষ হতেন বা নিদেনপক্ষে বিদেশি হতেন, তা-ও কি তাকে নিয়ে এত ব্যঙ্গ করা হতো? একজন মানুষ রান্নার শো করছেন৷ আপনার পছন্দ না হলে সেই শো দেখবেন না বা সেই খাবার বানাবেন না৷ মিরাক্কেল জনপ্রিয় শো হওয়ার পরেও কত মানুষই তা অরুচিকর বলে দেখে না৷ তাই বলে এইরকম ট্রল!’’ তিনি আরো লিখেছেন, ‘‘দেশ বিদেশে ঘোরা এবং থাকার সুবাদে কত ধরণের ফিউশন খাবার দেখেছি৷ কতবার তো এমন হয়েছে যা অন্যদের পাঁচমুখ করে খেতে দেখেছি তা নিজে সাহস করে পাতে তুলিনি৷ কিন্তু এটা নিয়ে যে বিদ্রুপ করতে হবে তা তো মাথায় আসেনি৷ রুচি কি শুধু খাবারে হয়, নাকি প্রকাশেও হয়?’’

সুপ্রীতি ধর লিখেছেন, ‘‘গত দু'দিন ধরে সবাই কেকা ফেরদৌসীকে নিয়ে যে হারে ট্রল করছে, তা দেখে আমি রীতিমতন টাসকিত৷ আমার অনুভূতি আঘাতপ্রাপ্ত হয়ে যাচ্ছে৷ কিন্তু আজ উনার এসব ট্রলের বিপরীতে একটি স্ট্যাটাস দেখে যারপরনাই মুগ্ধ হয়ে গেলাম৷ একেই বলে শিক্ষা, একেই বলে যোগ্যতা!’’

সংকলন: অমৃতা পারভেজ

সম্পাদনা: আশীস চক্রবর্ত্তী

প্রিয় পাঠক, আপনি কিছু বলতে চাইলে লিখুন নীচে মন্তব্যের ঘরে... 

নির্বাচিত প্রতিবেদন

ইন্টারনেট লিংক