মেক্সিকোতে মানুষ হত্যার নতুন রেকর্ড | বিশ্ব | DW | 22.01.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

মেক্সিকো

মেক্সিকোতে মানুষ হত্যার নতুন রেকর্ড

গত দুই দশক ধরে মেক্সিকোতে দেশজুড়ে হত্যার ঘটনা বাড়ছে৷ কিন্তু গত বছর তা সব রেকর্ড ছাড়িয়ে গেছে৷ দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, ২০১৮ সালে ৩৩ হাজারেরও বেশি মানুষ নিহত হয়েছে৷

মাদকজনিত অপরাধ এবং ‘গ্যাং' সহিংসতায় মেক্সিকোজুড়ে ২০১৮ সালে ৩৩ হাজার ৩৪১ হত্যার ঘটনা তদন্ত করছেন গোয়েন্দারা৷ নিহতদের মধ্যে ৮৬১ জন নারীও রয়েছেন৷ মেক্সিকোতে ১৯৯৭ সাল থেকে এ ধরনের ঘটনায় নিহতের সংখ্যা রেকর্ড করা হচ্ছে, গত বছর তা পূর্বের সব রেকর্ড ছাড়িয়ে গেছে৷

২০১৭ সালের তুলনায় গত বছর হত্যার ঘটনা বেড়েছে ১৫ দশমিক ৫ শতাংশ৷ ২০১৭ সালে ২৮ হাজার ৮৬৬ মানুষকে হত্যা করা হয়েছিল৷ মেক্সিকোর মোট জনসংখ্যা ১৩ কোটি৷

মেক্সিকোতে মাদক দৌরাত্ম্য বহুদিন ধরে চলে আসছে এবং কর্তৃপক্ষ এসব অপরাধ নিয়ন্ত্রণে বারবার ব্যর্থ হয়েছে৷ লাতিন অ্যামেরিকার এই দেশটির নিরাপত্তাবাহিনী সাধারণত যারা যুক্তরাষ্ট্রে  মাদক চোরাচালান করে, এমন চক্রগুলিকে নজরে রাখার চেষ্টা করে৷ তবে এসব ক্ষেত্রে মাদকচক্রের হোতারা বড় অংকের অর্থ ঘুষ দিয়ে পার পেয়ে যায়৷ ২০০৬ সাল থেকে সরকার মাদক পাচারকারীদের নিয়ন্ত্রণে সেনাবাহিনী মোতায়েন করে৷ সেই বছর থেকে এখন পর্যন্ত চোরাকারবারিদের সাথে সেনাবাহিনীর সংঘর্ষে দুই লাখেরও বেশি মানুষ নিহত হয়েছে৷ এদের মধ্যে রাজনীতিবিদ, সাংবাদিক, এমনকি আইন-শৃঙ্খলাবাহিনীর কর্মকর্তাও রয়েছেন৷  সহিংস অপরাধের শতাকরা ৯০ ভাগ ঘটনারই কোনো সাজা হয় না মেক্সিকোতে৷

রাষ্ট্রীয় সুরক্ষার মধ্যে সাংবাদিককে হত্যা

সোমবার সেক্সিকোর কর্মকর্তারা চলতি বছরে প্রথম সাংবাদিক হত্যার ঘটনা নিশ্চিত করেছেন৷ স্থানীয় রেডিও স্টেশন এর পরিচালক রাফায়েল মারুয়া বেশ কিছুদিন ধরেই প্রাণনাশের হুমকি পেয়ে আসছিলেন৷ সোমবার তাঁর মৃতদেহ পাওয়া যায় একটি খাদে৷ ৩৪ বছরের এই সাংবাদিকের নিরাপত্তায় রাষ্ট্রের পক্ষ থেকে নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয়েছিল৷ স্থানীয় মেয়র তাঁকে প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে আসছিলেন বলে জানা গেছে৷

জাতীয় নিরাপত্তারক্ষী চান নতুন প্রেসিডেন্ট

মেক্সিকোর নতুন প্রেসিডেন্ট আন্দ্রেস মানুয়েল লোপেজ  মাদক অপরাধের বিরুদ্ধেলড়তে নতুন কৌশল খোঁজার চেষ্টা করছেন৷ তিনি ‘ন্যাশনাল গার্ড' বা জাতীয় নিরাপত্তারক্ষী দল গড়ে তুলতে চান, যারা দেশব্যাপী বেসামরিক পুলিশের দায়িত্ব পালন করবে৷ তবে অনেকের আশংকা, এর ফলে সাধারণ মানুষের হয়রানি বেড়ে যাবে৷ গত সপ্তাহে প্রস্তাবটি মেক্সিকোর পার্লামেন্টে উপস্থাপন করা হয়৷ এটি পাশ হতে সেনেটের দুই তৃতীয়াংশ সাংসদদের সমর্থন প্রয়োজন৷

এপিবি/এসিবি (এএফপি, রয়টার্স)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

বিজ্ঞাপন