1. কন্টেন্টে যান
  2. মূল মেন্যুতে যান
  3. আরো ডয়চে ভেলে সাইটে যান
Rüstungsindustrie - US-Kampfflugzeug
ছবি: picture alliance/dpa/dpa-Zentralbild

মার্কিন এফ-৩৫ যুদ্ধবিমান কিনতে চায় জার্মানি

১৪ মার্চ ২০২২

বিমান বাহিনীর জন্য মার্কিন এফ-৩৫ যুদ্ধবিমান কেনার পরিকল্পনা করছে জার্মানি৷ রাশিয়ার ইউক্রেন আগ্রাসনের পরিপ্রেক্ষিতে প্রতিরক্ষা খাতে বিনিয়োগ বাড়ানোর ঘোষণা আগেই দিয়েছিল বার্লিন৷

https://www.dw.com/bn/%E0%A6%AE%E0%A6%BE%E0%A6%B0%E0%A7%8D%E0%A6%95%E0%A6%BF%E0%A6%A8-%E0%A6%8F%E0%A6%AB-%E0%A7%A9%E0%A7%AB-%E0%A6%AF%E0%A7%81%E0%A6%A6%E0%A7%8D%E0%A6%A7%E0%A6%AC%E0%A6%BF%E0%A6%AE%E0%A6%BE%E0%A6%A8-%E0%A6%95%E0%A6%BF%E0%A6%A8%E0%A6%A4%E0%A7%87-%E0%A6%9A%E0%A6%BE%E0%A7%9F-%E0%A6%9C%E0%A6%BE%E0%A6%B0%E0%A7%8D%E0%A6%AE%E0%A6%BE%E0%A6%A8%E0%A6%BF/a-61119518

বিভিন্ন সংবাদসংস্থায় প্রকাশিত প্রতিবেদনে গোপন সূত্রের বরাত দিয়ে সোমবার এ তথ্য জানানো হয়েছে৷

প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, জার্মানি নিজেদের পুরাতন হয়ে যাওয়া টর্নেডো বিমান বহরকে আধুনিকায়ন করতে চায়৷ এই লক্ষ্যেই লকহিড মার্টিনের তৈরি এফ-৩৫ যুদ্ধবিমান কেনার জন্য নীতিগত সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে৷

ইউক্রেন সংঘাতের ফলে নিজেদের বৈদেশিক ও প্রতিরক্ষা নীতির পুনর্মূল্যায়ন করতে বাধ্য হয়েছে বার্লিন৷ চ্যান্সেলর ওলাফ শলৎস জার্মানির প্রতিরক্ষা খাতের ব্যয় ব্যাপক মাত্রায় বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন৷

জার্মানির যুদ্ধবিমান প্রয়োজন কেন?

রাশিয়ার ইউক্রেন আগ্রাসনের পরিপ্রেক্ষিতে, ন্যাটোকে দেয়া প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী জার্মানির প্রতিরক্ষা বাজেট বাড়িয়ে জিডিপির দুই শতাংশে নিয়ে আসার ঘোষণা দেন শলৎস৷ তিনি বলেন, জার্মান সেনাবাহিনী বিনিয়োগ এবং অস্ত্র খাতে ১০০ বিলিয়ন ইউরো পাবে৷

এফ-৩৫ কে বিশ্বের সবচেয়ে আধুনিক যুদ্ধবিমান মনে করা হয়৷ এর অভিনব আকার এবং বাইরের আবরণের কারণে শত্রু রাডারে একে শনাক্ত করা কঠিন হয়ে দাঁড়ায়৷

বর্তমানে টর্নেডোই একমাত্র জার্মান বিমান যা যুদ্ধ পরিস্থিতিতে মার্কিন পরমাণু বোমা বহনে সক্ষম৷ কিন্তু এই টর্নেডো ফ্লিটের বয়স ৪০ বছরেরও বেশি৷ জার্মান বিমান বাহিনী এই বিমানগুলো সেই ১৯৮০ সাল থেকে পরিচালনা করে আসছে৷ বিমানগুলোর মেয়াদ ২০২৫ সাল থেকে ২০৩০ সালের মধ্যেই শেষ হয়ে যাবে৷

৩৫টি এমন বিমান কেনার পরিকল্পনার তথ্যও জানানো হয়েছে বিভিন্ন প্রতিবেদনে৷

তবে এর ফলে ফ্রান্সের সঙ্গে ইউরোপীয় যুদ্ধবিমান তৈরির যৌথ পরিকল্পনা বাধাগ্রস্ত হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে৷

এফ-৩৫ কেনার সিদ্ধান্ত বোয়িং এর জন্য একটি বড় ধাক্কা৷ টর্নেডো বহরের বিকল্প হিসাবে বোয়িংয়ের এফ-১৮ ছিল সাবেক জার্মান প্রতিরক্ষামন্ত্রী আনেগ্রেট ক্রাম্প-কারেনবাওয়ারের পছন্দ৷

এএস/এডিকে (ডিপিএ, এএফপি, রয়টার্স)

স্কিপ নেক্সট সেকশন ডয়চে ভেলের শীর্ষ সংবাদ

ডয়চে ভেলের শীর্ষ সংবাদ

উত্তর কোরিয়া

জাপানের উপর দিয়ে মিসাইল ছুঁড়ল উত্তর কোরিয়া

স্কিপ নেক্সট সেকশন ডয়চে ভেলে থেকে আরো সংবাদ
প্রথম পাতায় যান