মন্দিরে হামলাকারী সন্দেহে একজনকে খুঁজছে পুলিশ | বিশ্ব | DW | 18.08.2015
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

মন্দিরে হামলাকারী সন্দেহে একজনকে খুঁজছে পুলিশ

ব্যাংককের মন্দিরে চালানো বোমা হামলায় মৃতের সংখ্যা বাড়ছে৷ এখনো কেউ হামলার দায়িত্ব স্বীকার করেনি৷ তবে হামলায় জড়িত সন্দেহে একজনকে খুঁজছে পুলিশ৷ সন্দেহভাজন ব্যক্তি ‘রেড শার্ট' আন্দোলনের সমর্থক বলে ধারণা করা হচ্ছে৷

মঙ্গলবার থাইল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী প্রায়ুত চান-ওচা বলেছেন, হিন্দুদের মন্দিরে চালানো বোমা হামলায় জড়িত সন্দেহে পুলিশ একজনকে খুঁজছে৷ তিনি জানান, বোমা বিস্ফোরণের আগে কথিত ব্যক্তিকে মন্দিরের বাইরে সন্দেহজনকভাবে ঘোরাফেরা করতে দেখা যায়৷ সিসিটিভি ক্যামেরায় ওই ব্যক্তির হাতে একটি বড়সড় প্লাস্টিকের ব্যাগও দেখা গেছে৷ সাবেক সেনা কর্মকর্তা প্রায়ুত চান-ওচা আরো জানান, পুলিশের ধারণা, সন্দেহভাজন ব্যক্তি সরকারবিরোধী ‘রেড শার্ট আন্দোলন'-এর সমর্থক৷

সোমবার সন্ধ্যায় ব্যংককের এরাওয়ান মন্দিরে বোমা বিস্ফোরিত হয়৷ বিস্ফোরণে অন্তত ২১ জনের মৃত্যু হয়েছে, আহত হয়েছে ১৪০ জন৷ থাইল্যান্ডের রাজধানীর এই হিন্দু মন্দির পর্যটকদের অন্যতম আকর্ষণ৷ তাই হতাহতদেরও অনেকেই বিদেশি৷ নিহতদের মধ্যে চীন, হংকং, সিঙ্গাপুর এবং মালয়েশিয়ার নাগরিক আছেন বলে জানা গেছে৷

থাইল্যান্ডে ২০০৬ সাল থেকে রাজনৈতিক অস্থিরতা এবং সে কারণে সহিংশতা লেগেই আছে৷ তবে সোমবারের এই বোমা হামলা দেশটির ইতিহাসেই বিরল ঘটনা, কেননা, এবার বিদেশি নাগরিকরাও বোমা হামলার শিকার৷

রেড শার্ট বা লাল জামা আন্দোলনের নেতৃত্বে রয়েছে থাইল্যান্ডের রাজনীতিতে জনপ্রিয় সিনাওয়াত্রা পরিবার৷ সেই পরিবারের মেয়ে ইংল্যাক সিনাওয়াত্রাকে সরিয়েই ক্ষমতায় এসেছেন বর্তমান প্রধানমন্ত্রী প্রায়ুত চান-ওচা৷ ইংলাকের আগে তাঁর ভাই থাকসিন সিনাওয়াত্রাও থাইল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী ছিলেন৷

এসিবি/ডিজি (এপি, এএফপি, ডিপিএ)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

বিজ্ঞাপন