মগবাজারে বিস্ফোরণে আরও মৃত্যু | সমাজ সংস্কৃতি | DW | 30.06.2021

ডয়চে ভেলের নতুন ওয়েবসাইট ভিজিট করুন

dw.com এর বেটা সংস্করণ ভিজিট করুন৷ আমাদের কাজ এখনো শেষ হয়নি! আপনার মতামত সাইটটিকে আরো সমৃদ্ধ করতে পারে৷

  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ

মগবাজারে বিস্ফোরণে আরও মৃত্যু

রাজধানী মগবাজারে ভয়াবহ বিস্ফোরণে দগ্ধ আরও একজন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন৷ বিস্ফোরণের ঘটনায় এ নিয়ে মোট নয় জনের মৃত্যু হল৷ হাসপাতালে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে আরও দুজন৷

মগবাজারে বিস্ফোরণ

মগবাজারে বিস্ফোরণ

ডয়চে ভেলের কনটেন্ট পার্টনার বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমের প্রতিবেদন অনুযায়ী, ইমরান হোসেন নামের ২৫ বছর বয়সী ওই যুবকের শরীরের ৯০ শতাংশ দগ্ধ হয়েছিল৷ শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনিস্টিউটের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন ছিলেন৷ বুধবার ভোরে সেখানেই তার মৃত্যু হয় বলে জানান ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল পুলিশ ফাড়ির পরিদর্শক মো. বাচ্চু মিয়া৷

বিস্ফোরণে ধসে পড়া রাখি নীড়ের নিচতলায় বেঙ্গল মিটের বিক্রয়কেন্দ্রে কাজ করতেন ইমরান হোসেন৷

টাঙ্গাইল সদর উপজেলার লাউকাঠি গ্রামের আব্দুল মজিব ভুঁইয়ার ছেলে ইমরান স্ত্রী তামান্নাকে নিয়ে মগবাজারেই একটি বাসায় ভাড়া থাকতেন৷

বিস্ফোরণের ঘটনায় এ নিয়ে মোট নয় জনের মৃত্যু হল৷ হাসপাতালে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে আরও দুজন৷ তাদের মধ্যে ৩১ বছর বয়সী মো. রাসেল ছিলেন বেঙ্গল মিটে ইমরানের সহকর্মী৷ আর ৩৫ বছর বয়সী মো. নুরুন্নবী পেশায় ভ্যানচালক৷

ঢাকার শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটের সমন্বয়ক ডা. সামন্ত লাল সেন বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, শরীরের ৯০ শতাংশই দগ্ধ তারা দুজনই আইসিইউতে আছেন৷ " যে কোনো মুহূর্তে খারাপ কিছু ঘটতে পারে ৷''

রোববার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে বিস্ফোরণের বিকট শব্দে মগবাজার ওয়্যারলেস গেইট এলাকা কেঁপে ওঠে৷ তাতে আউটার সার্কুলার রোডের ৭৯ নম্বর হোল্ডিংয়ের তিনতলা রাখি নীড়ের ধসে পড়ার দশা হয়৷ বিস্ফোরণের ধাক্কায় রাস্তার উল্টো দিকে আড়ং, বিশাল সেন্টার, নজরুল শিক্ষালয়, রাশমনো হাসনপাতালসহ আশপাশের ডজনখানেক ভবনের কাচ ভেঙে যায় ৷ ক্ষতিগ্রস্ত হয় রাস্তায় থাকা যাত্রীসহ তিনটি বাস৷

বিস্ফোরণের ঘটনায় আহত হন চার শতাধিক৷ ফায়ার সার্ভিস বলেছে, তিনতলা ওই ভবনে গ্যাস জমে বিস্ফোরণ ঘটেছে বলে প্রাথমিকভাবে তারা ধারণা করছে৷ বিস্ফোরণের পর থেকে নিখোঁজ ছিলেন আংশিক ধসে পড়া রাখি নীড়ের তত্ত্বাবধায়ক হারুন অর রশিদ হাওলাদার৷ মঙ্গলবার ধ্বংসস্তূপের নিচ থেকে তার লাশ উদ্ধার করেন ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা৷

শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন ভ্যানচালক নুরুন্নবীর স্ত্রী ও ছয় বছর বয়সী ছেলের মা  পপি বেগম বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান, ভ্যান চালিয়ে বাড্ডা থেকে ফেরার পথেই মগবাজারে বিস্ফোরণের মধ্যে পড়েন তার স্বামী৷ বেঙ্গল মিটের কর্মী রাসেলের পরিবার ঠাকুরগাঁওয়ে থাকে, বাবা কৃষক৷ ঢাকায় চাচার কাছে থেকে লেখাপড়া করেছেন৷

চাচা মানারুল হক বলেন, " ছেলেটা আর বাঁচবে না ভাবলে কিছু ভালো লাগতেছে না ৷ সহ্য করা মুশকিল৷''

এনএস/কেএম (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়