1. কন্টেন্টে যান
  2. মূল মেন্যুতে যান
  3. আরো ডয়চে ভেলে সাইটে যান
ইউক্রেন
ছবি: Alexander Ermochenko/epa/picture alliance
সমাজইউক্রেন

পূর্ব ইউক্রেনে ফের আক্রমণের আশঙ্কা

৫ এপ্রিল ২০২২

কিয়েভ-সহ উত্তর ইউক্রেন থেকে রাশিয়া পিছিয়ে এলেও পূর্ব ইউক্রেনে নতুন করে আক্রমণের আশঙ্কা। মঙ্গলবার জাতিসংঘে জেলেনস্কির বক্তৃতা।

https://www.dw.com/bn/%E0%A6%AA%E0%A7%82%E0%A6%B0%E0%A7%8D%E0%A6%AC-%E0%A6%87%E0%A6%89%E0%A6%95%E0%A7%8D%E0%A6%B0%E0%A7%87%E0%A6%A8%E0%A7%87-%E0%A6%AB%E0%A7%87%E0%A6%B0-%E0%A6%86%E0%A6%95%E0%A7%8D%E0%A6%B0%E0%A6%AE%E0%A6%A3%E0%A7%87%E0%A6%B0-%E0%A6%86%E0%A6%B6%E0%A6%99%E0%A7%8D%E0%A6%95%E0%A6%BE/a-61360516

ইউক্রেনের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের দাবি, পূর্ব ইউক্রেনে রাশিয়া নতুন করে আক্রমণের পরিকল্পনা করেছে। পূর্ব ইউক্রেনের একটি বড় অংশ রাশিয়া দখল করে নিতে চাইছে। খারকিভ এবং লুহানস্ক অঞ্চলে রাশিয়ার সেনার সংখ্যা বেড়েছs বলেও দাবি করা হয়েছে।

লুহানস্ক অঞ্চলে দুইটি শহরে রাশিয়ার সেনা নতুন করে আক্রমণ শুরু করেছে বলে প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র জানিয়েছেন। একইসঙ্গে তার দাবি, সেভেরোদনেৎস্ক পর্যন্ত এগোতে চাইছে রাশিয়ার ফৌজ। লুহানস্ক অঞ্চলের প্রশাসনিক সদর দপ্তর সেভেরোদনেৎস্ক। ক্রাইমিয়ার যুদ্ধের সময় থেকেই এই অঞ্চলটিতে রাশিয়াপন্থিদের দাপট। এবারেও সেই বিষয়টিকে রাশিয়া কাজে লাগছে বলে অভিযোগ।

লুহানস্কের গভর্নর ঘোষণা করেছেন, রাশিয়া যে কোনো সময় বড় আক্রমণ চালাতে পারে। ফলে তার আগে সমস্ত নাগরিক যেন নিরাপদ স্থানে চলে যান। সকলকে বাড়ি ছেড়ে চলে যাওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন তিনি। হোয়াইট হাউসের এক উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাও জানিয়েছেন, পূর্ব ইউক্রেনে রাশিয়া নতুন করে সেনা মজুত করছে। পূর্ব এবং দক্ষিণ ইউক্রেনের একটি অংশ দখল করাই তাদের উদ্দেশ্য। যদিও রাশিয়া এ বিষয়ে এখনো পর্যন্ত কোনো মন্তব্য করেনি। ওই মার্কিন কর্মকর্তার বক্তব্য, 'রাশিয়া প্রথমে গোটা ইউক্রেনই দখল করতে চেয়েছিল। তা না হওয়ায় এখন তাদের লক্ষ্য পূর্ব ইউক্রেন।' এই লড়াই দীর্ঘদিন চলবে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন তিনি।

বুচার ঘটনায় রাশিয়ার বিরুদ্ধে নতুন নিষেধাজ্ঞার প্রস্তুতি

জাতিসংঘে জেলেনস্কি

মঙ্গলবার জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদে বক্তৃতা দেওয়ার কথা ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি। বুচায় গণকবর নিয়ে এদিন কথা বলার কথা ইউক্রেনেরপ্রেসিডেন্টের। তার আগে সোমবার সংবাদমাধ্যমের কাছে তিনি অভিযোগ করেছেন, রাশিয়া চেষ্টা করছে অত্যাচারের সমস্ত চিহ্ন নষ্ট করে দিতে। সংবাদমাধ্যমের কাছে জেলেনস্কির আর্জি, বুচা-সহ বিভিন্ন জায়গা ঘুরে তারা যেন তথ্য নথিভুক্ত করে।

মস্কো অবশ্য বুচায় গণকবরের অভিযোগ অস্বীকার করেছে। রাশিয়ার দাবি, এ ঘটনার সঙ্গে তাদের কোনো সম্পর্ক নেই। রাশিয়াকে ফাঁসাতেই ওই গণকবরের তথ্য সামনে আনা হয়েছে।

সোমবার রোমানিয়ার পার্লামেন্টে বক্তৃতা দিয়েছেন জেলেনস্কি। সেখানে তিনি বলেছেন, বরোদিয়াঙ্কার মতো শহরে বুচার থেকেও বেশি অত্যাচার চলেছে। তার আশঙ্কা, ওই শহর থেকে বুচার চেয়েও বেশি মৃতদেহ উদ্ধার হবে। এই ঘটনার আন্তর্জাতিক এবং নিরপেক্ষ তদন্তের দাবি করেছেন জেলেনস্কি। মঙ্গলবার নিরাপত্তা পরিষদের বক্তৃতাতেও এই দাবি করতে পারেন তিনি।

যুক্তরাজ্যের অবস্থান

বুচার ঘটনার তীব্র নিন্দা করেছেন যুক্তরাজ্যের পররাষ্ট্রমন্ত্রী। পোল্যান্ডে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে তিনি বলেছেন, ''সন্দেহ নেই ইউক্রেনে ওই ঘটনা ঘটেছে। সাধারণ মানুষের উপর চরম অত্যাচার করা হয়েছে। নারীদের উপর যৌন অত্যাচার চালানো হয়েছে। যা ঘটেছে, তা এককথায় যুদ্ধাপরাধ।''

ওই একই মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন ইউক্রেনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী দিমিত্রো কুলেবা। আন্তর্জাতিক সমাজের কাছে রাশিয়ার উপর আরো কড়া নিষেধাজ্ঞা চাপানোর আর্জি জানিয়েছেন তিনি। এদিকে, কিয়েভের পশ্চিমে মতিঝিন অঞ্চলের মেয়র এবং তার পরিবারের মৃতদেহ উদ্ধার হয়েছে বলে জানিয়েছে স্থানীয় প্রশাসন। হাত বাঁধা অবস্থায় তাদের খুন করা হয়েছে।

অস্ট্রেলিয়ার নিষেধাজ্ঞা

বুচার ঘটনার পর রাশিয়ার প্রতি আরো কঠোর হয়েছে অস্ট্রেলিয়া। মঙ্গলবার অস্ট্রেলিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী জানিয়েছেন, রাশিয়াকে আর কোনো বিলাসী দ্রব্য রপ্তানি করা হবে না। এর আগেও রাশিয়ার বিরুদ্ধে একাধিক নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিল অস্ট্রেলিয়া।

এসজি/জিএইচ (এপি, এএফপি, রয়টার্স, ডিপিএ)

স্কিপ নেক্সট সেকশন ডয়চে ভেলের শীর্ষ সংবাদ

ডয়চে ভেলের শীর্ষ সংবাদ

Asien Bangladesch | Generalsekretariat | Hauptsitz

‘ব্যবস্থা না নেওয়ায় বেপরোয়া ইউএনওরা’

স্কিপ নেক্সট সেকশন ডয়চে ভেলে থেকে আরো সংবাদ

ডয়চে ভেলে থেকে আরো সংবাদ

প্রথম পাতায় যান