‘চুক্তি ভঙ্গ করেনি জার্মানি’ | বিশ্ব | DW | 30.03.2018
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

জার্মানি

‘চুক্তি ভঙ্গ করেনি জার্মানি’

জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদে অস্থায়ী সদস্যপদের জন্য লড়তে গিয়ে ইসরায়েলের বিরোধিতা করে চুক্তি ভঙ্গ করার অভিযোগ অস্বীকার করেছে বার্লিন৷ জার্মান পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন, আমরা কারো বিরুদ্ধে নয়, একটি আসনের জন্য লড়ছি৷

default

জাতিসংঘ মহাসচিবের সঙ্গে জার্মানির পররাষ্ট্রমন্ত্রী হাইকো মাস (ডানে)

প্রায় দুই দশক আগে অনানুষ্ঠানিক আঞ্চলিক জোট পশ্চিম ইউরোপ ও অন্যান্য (ডব্লিউইওজি)-এর সদস্য হয়৷ তখন জোটের সদস্যরা প্রতিশ্রুতিবদ্ধ হয় যে, জাতিসংঘের অস্থায়ী যে কোনো সদস্যপদের জন্য কখনো ইসরাইলের বিরোধিতা করবে না কেউ৷

জার্মানির বিরুদ্ধে ইসরায়েলপন্থি মার্কিন অধিবাসীদের অভিযোগ, তারা অস্থায়ী সদস্যপদের জন্য লড়তে গিয়ে সেই চুক্তি ভঙ্গ করছে৷ কারণ, আগামী ৮ জুন সাধারণ অধিবেশনে অস্থায়ী সদস্য নির্বাচনের জন্য ভোট অনুষ্ঠিত হবে৷ সেখানে এ অঞ্চলের দু'টি সদস্যপদের জন্য লড়ছে জার্মানি, ইসরায়েল ও বেলজিয়াম৷

তবে এই অভিযোগ অস্বীকার করেছেন জার্মান পররাষ্ট্রমন্ত্রী হাইকো মাস৷ সদস্যপদের জন্য তদবির করতে তিনি নিউইয়র্কে অবস্থান করছিলেন৷ বুধবার সেখানে সাংবাদিকদের তিনি বলেন, ‘‘অতীতেও দেখা গেছে, একই পদের জন্য বিভিন্ন রাষ্ট্র প্রতিযোগিতা করছে৷’’ তিনি বিষয়টি আরো পরিষ্কার করে বলেন, ‘‘আমরা কারো বিরুদ্ধে তো লড়ছি না৷ আমরা নিরাপত্তা পরিষদের একটি আসনের জন্য লড়ছি৷’’

নিরাপত্তা পরিষদের দশটি অস্থায়ী সদস্যপদের মধ্যে তিনটি আফ্রিকা, দু'টি করে দক্ষিণ অ্যামেরিকা, এশিয়া-প্রশান্ত মহাসাগরীয় ও পশ্চিম ইউরোপ অঞ্চলের জন্য বরাদ্দ৷ পূর্ব ইউরোপ থেকে একটি দেশ নির্বাচিত হয়৷ রাষ্ট্রগুলো দুই বছরের জন্য অস্থায়ীভাবে নির্বাচিত হয়৷মাস বলেন, জার্মানি আট বছর পরপর সদস্যপদের জন্য চেষ্টা করে৷ ‘‘তাই একে খুব স্বাভাবিকভাবেই দেখা উচিত৷’’

নির্বাচিত হলে, এই নিয়ে ষষ্ঠবার এই দায়িত্ব পালন করবে জার্মানি৷ নিউইয়র্ক পোস্টের এক উপসম্পদকীয়তে সম্প্রতি জার্মানিকে ‘ইসরায়েলের বিরুদ্ধে নির্লজ্জ ক্ষমতার খেলা’ দেখাচ্ছে বলে অভিযোগ করা হয়েছে৷

বার্লিনে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের দূত রিচার্ড গ্রেনেলও যোগ দিয়েছেন এই কাঁদা ছোঁড়াছুড়িতে৷ সম্প্রতি টুইটারে তিনি লিখেছেন, ‘‘ইউরোপ যেন কথার বরখেলাপ না করে৷’’

কাউন্সিলের পদ পেতে জাতিসংঘের ১৯৩টি সদস্য রাষ্ট্রের অন্তত দুই-তৃতীয়াংশ ভোট পেতে হয়৷ এর আগে ২০১১-১২ মেয়াদে সবশেষ নিরাপত্তা পরিষদের অস্থায়ী সদস্যের দায়িত্ব পালন করেছিল জার্মানি৷ পরিষদের স্থায়ী পাঁচ সদস্য হলো, ব্রিটেন, চীন, ফ্রান্স, রাশিয়া ও যুক্তরাষ্ট্র৷

জার্মান পররাষ্ট্রমন্ত্রী মনে করিয়ে দেন যে, জাতিসংঘে সর্বোচ্চ আর্থিক সহায়তা প্রদানকারীদের অন্যতম রাষ্ট্র৷ জার্মানি জাতিসংঘের হয়ে বাড়তি দায়িত্ব পালন করতে প্রস্তুত বলে জানান তিনি৷ তাঁর ভাষায়, ‘‘আমরা এমন একটি সময়ে বাস করছি, যখন জাতিসংঘকে আগের চেয়ে আরো বেশি দায়িত্ব পালন করতে হবে৷’’

জেডএ/এসিবি (এএফপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন