গাদ্দাফি কি বানি ওয়ালিদে? | বিশ্ব | DW | 08.09.2011
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বিশ্ব

গাদ্দাফি কি বানি ওয়ালিদে?

যদি বলা হয় সারা বিশ্বের মানুষ এখন গাদ্দাফি কোথায় সেটা জানতে চায়, তাহলে কি ভুল হবে? কেননা প্রথমে একবার বলা হয়েছিল যে, গাদ্দাফি আলজেরিয়ায় পালিয়ে গেছেন৷ তারপর বলা হলো নাইজারে৷ আসলে তিনি কোথায়?

গাদ্দাফি

গাদ্দাফি

নাইজারে নেই!

দুই দিন আগে শোনা গিয়েছিল যে, গাদ্দাফি নাইজারে চলে গেছেন৷ কিন্তু বৃহস্পতিবার সকালে গাদ্দাফি স্বয়ং নিজেই জানালেন যে তিনি লিবিয়াতেই রয়েছেন৷ সিরিয়া থেকে সম্প্রচারিত আরবি টেলিভিশন চ্যানেল আল-রাইতে ফোন করে তিনি এ কথা জানিয়েছেন৷ লিবিয়া থেকে বিদ্রোহীদের সরাতে তিনি দেশপ্রেমিক লিবীয়দের অস্ত্র নিয়ে যুদ্ধে নামারও আহ্বান জানিয়েছেন৷ বার্তা সংস্থার খবরে যেমনটা বলা হয়েছিল যে, কয়েকটি গাড়ির একটি কনভয়কে নাইজারে যেতে দেখা গেছে৷ সে সম্পর্কে গাদ্দাফি বলেন এই প্রথমবারের মতো কি কোনো কনভয় নাইজার গেল? প্রতিদিনইতো ব্যবসা বা অন্য কোনো প্রয়োজনে মানুষ নাইজার, মালি, চাড বা, সুদানে যায়৷ তিনি আবারও বলেছেন যে, তিনি দেশ ছেড়ে যাবেন না৷

তাহলে গাদ্দাফি কোথায়?

Libyen Rebellen vor Bani Walid September 2011 FLASH-GALERIE

বানি ওয়ালিদের কাছে পাহারায় বিদ্রোহীরা

এনটিসি'র অনেক কমান্ডারই মনে করছেন বানি ওয়ালিদে থাকতে পারেন গাদ্দাফি৷ তাদের এই ধারণার ভিত্তি হলো শহরটি এখনো ধরে রেখেছে গাদ্দাফি সমর্থকরা৷ বিদ্রোহীরা বলছেন মাত্র এক বা দুইশো সমর্থক যেভাবে বানি ওয়ালিদে প্রতিরোধ গড়ে তুলেছে তাতে মনে হচ্ছে গাদ্দাফি সেখানে রয়েছেন৷ উল্লেখ্য, রক্তপাত এড়াতে গত কয়েকদিন ধরে বানি ওয়ালিদের শীর্ষ নেতৃবৃন্দের সঙ্গে আলোচনা করে যাচ্ছে বিদ্রোহীরা৷ আত্মসমর্পণের জন্য শুক্রবার পর্যন্ত সময় দেয়া হয়েছে গাদ্দাফির সমর্থকদের৷ এর পর সামরিক হামলা চালানো হতে পারে৷

দক্ষিণ আফ্রিকার ভূমিকা

আফ্রিকান ইউনিয়নের উল্লেখযোগ্য দেশ দক্ষিণ আফ্রিকা এখনো এনটিসিকে সমর্থন জানায় নি৷ তারা বলছে লিবিয়ার ব্যাপারে আফ্রিকান ইউনিয়নের যে রোডম্যাপ রয়েছে, সে অনুযায়ী তারা চলতে চায়৷ এর মধ্যে রয়েছে গাদ্দাফি ও বিদ্রোহীদের মধ্যে আলোচনার ভিত্তিতে একটি মধ্যবর্তী সরকার গঠন৷ আসলে সংস্থার সদস্য বেশ কয়েকটি দেশের সঙ্গে গাদ্দাফি সরকারের ভাল খাতির ছিল৷ ফলে ন্যাটোর সম্পৃক্ততায় তাঁর উৎখাতে ঐসব দেশ বিক্ষুব্ধ৷ তারা মনে করে লিবিয়ার সমস্যা আফ্রিকার সমস্যা৷ সুতরাং আফ্রিকান ইউনিয়নেরই উচিত সমস্যা সমাধানের উপায় খুঁজে বের করা৷

ন্যাটো অভিযান

কবে শেষ হবে এই প্রশ্নের জবাবে সংস্থার মহাসচিব আন্ডার্স ফগ রাসমুসেন বলেছেন যতদিন পর্যন্ত না সাধারণ মানুষের প্রতি গাদ্দাফির সমর্থকদের হুমকি বন্ধ হচ্ছে ততদিন পর্যন্ত অভিযান চলবে৷

প্রতিবেদন: জাহিদুল হক

সম্পাদনা: সঞ্জীব বর্মন

নির্বাচিত প্রতিবেদন