কোণঠাসা কুর্দিরা বাগদাদের সঙ্গে আলোচনা চায় | বিশ্ব | DW | 25.10.2017
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

ইরাক

কোণঠাসা কুর্দিরা বাগদাদের সঙ্গে আলোচনা চায়

স্বাধীনতার প্রশ্নে একতরফা গণভোট আয়োজন করে প্রবল চাপের মুখে পড়েছে ইরাকি কুর্দিস্তানের নেতৃত্ব৷ বেশ কিছু এলাকার উপর নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে সেই গণভোটের রায় স্থগিত করে বাগদাদের সঙ্গে আলোচনার প্রস্তাব দিয়েছেন কুর্দি নেতারা৷

স্বাধীনতার প্রশ্নে গণভোটের পর প্রবল চাপের মুখে পড়েছে ইরাকের কুর্দিস্তান এলাকা৷ বাগদাদের ফেডারেল সরকার কিরকুক শহরের নিয়ন্ত্রণ ফিরিয়ে নিতে জোরালো তৎপরতা শুরু করেছে৷ ইরানের মদতপুষ্ট মিলিশিয়া বাহিনীও এই উদ্যোগে অংশ নিচ্ছে৷

এমন পরিস্থিতিতে হিংসা বন্ধ করে সংলাপের মাধ্যমে উত্তেজনা কমাতে চাইছে কুর্দি নেতৃত্ব৷ সেই সদিচ্ছার পরিচয় হিসেবে তারা গত মাসে গণভোটে স্বাধীনতার রায়কে আপাতত ‘ফ্রিজ' বা মূলতুবি রাখার প্রস্তাব দিয়েছে৷ ইরাকের সাংবিধানিক কাঠামোর মধ্যেই বাগদাদের সঙ্গে আলোচনা চাইছে কুর্দি আঞ্চলিক সরকার৷ উল্লেখ্য, ইরাকি কুর্দিস্তানে প্রায় ৯২ শতাংশ ভোটার স্বাধীনতার পক্ষে রায় দিয়েছিলেন৷

বর্তমান পরিস্থিতির কারণে ইরাকের কুর্দি অঞ্চলের নেতৃত্ব কতটা দুশ্চিন্তায় পড়েছে, মঙ্গলবারের আরেকটি সিদ্ধান্ত তা স্পষ্ট করে দিয়েছে৷ আগামী ১লা নভেম্বর সেখানে সংসদ ও প্রেসিডেন্ট নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবার কথা ছিল৷ কিছু এলাকা হাতছাড়া হবার পর সেই নির্বাচন আরও ৮ মাস পিছিয়ে দেওয়া হয়েছে৷ তবে কোনো নির্দিষ্ট তারিখ ঘোষণা করা হয়নি৷ কুর্দি আঞ্চলিক সংসদ পরে উপযুক্ত তারিখ স্থির করবে বলে কুর্দিস্তান গণতন্ত্রী পার্টির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে৷

কুর্দি আঞ্চলিক সংসদ কুর্দি প্রেসিডেন্সির কার্যকলাপও মূলতুবি রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে৷ ফলে কুর্দি অঞ্চলের প্রেসিডেন্ট মাসুদ বারজানির ক্ষমতা অনেকটাই খর্ব করা হয়েছে৷ তাঁর একতরফা গণভোট আয়োজনের সিদ্ধান্তের পরিণতি প্রবল সমালোচনার মুখে পড়েছে৷ ঘনিষ্ঠ সহযোগী অ্যামেরিকাও তাঁর প্রতি সমর্থন দেখাচ্ছে না৷ এই অবস্থায় কুর্দি রাজনীতি জগত উত্তাল হয়ে পড়েছে৷

এসবি/এসিবি (ডিপিএ, রয়টার্স, এএফপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়