করোনা পরিস্থিতি নিয়ে ইউরোপে বৈঠক | বিশ্ব | DW | 24.12.2020
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

করোনা ভাইরাস

করোনা পরিস্থিতি নিয়ে ইউরোপে বৈঠক

করোনার নতুন স্ট্রেইন নিয়ে ইউরোপে বৈঠক করলেন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রতিনিধিরা। যুক্তরাজ্যে সংক্রমণ বাড়ছে।

দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে আসা দুই ব্যক্তিকে চিহ্নিত করেছে যুক্তরাজ্যের প্রশাসন। তাঁদের শরীরে কোভিডের আরো একটি নতুন ধরন পাওয়া গিয়েছে বলে যুক্তরাজ্যের স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন। তবে নতুন সেই ধরনটির চরিত্র এখনো স্পষ্ট নয়। এ দিকে যুক্তরাজ্যের বর্তমান স্ট্রেইনটি নিয়ে বুধবার ইউরোপে বৈঠক করেছেন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রতিনিধিরা। বৈঠক শেষে তাঁরা জানিয়েছেন, নতুন স্ট্রেইনটি অত্যন্ত দ্রুত ছড়াতে পারে। তবে আগের চেয়ে বেশি ক্ষতিকারক বলে এখনো পর্যন্ত মনে হচ্ছে না।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থায় ইউরোপের ৫৩টি দেশ রয়েছে। তার মধ্যে রাশিয়া এবং পশ্চিম এশিয়ার একাধিক দেশ রয়েছে। বুধবারের বৈঠকে সকলেই যোগ দিয়েছিল। এখনো পর্যন্ত ইউরোপে ২৪ মিলিয়ন মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। মৃত্যু হয়েছে পাঁচ লাখেরও বেশি মানুষের। তারই মধ্যে যুক্তরাজ্যের নতুন স্ট্রেইন নিয়ে কপালে ভাঁজ পড়েছে ইউরোপের দেশগুলির। অধিকাংশ দেশ যুক্তরাজ্যের সঙ্গে যোগাযোগ ব্যবস্থা বন্ধ রেখেছে। ফ্রান্স অবশ্য সীমান্ত বন্ধ করেও পরে তা খুলে দিয়েছে।

বুধবার বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ইউরোপের প্রতিনিধিরা রুদ্ধদ্বার বৈঠক করেন। সংবাদমাধ্যমকে ভিতরে ঢুকতে দেওয়া হয়নি। পরে তাঁরা জানিয়েছেন, মূলত পরিস্থিতির পর্যালোচনা হয়েছে। নতুন স্ট্রেইনটি নিয়ে আলোচনা হয়েছে। সকলেই একটি বিষয়ে একমত। নতুন স্ট্রেইনটি অনেক বেশি সংক্রমক হলেও তা আগের চেয়ে বেশি ক্ষতিকারক নয়।

এ দিকে যুক্তরাজ্যে আরো একটি স্ট্রেইন পাওয়া গিয়েছে বলে চিকিৎসকদের একাংশের দাবি। বলা হচ্ছে, এই স্ট্রেইনটিও দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে এসেছে। দুইজনের শরীরে তা পাওয়া গিয়েছে। গত কিছুদিনে দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে আসা সমস্ত মানুষকে প্রশাসনের সঙ্গে যোগাযোগ করতে বলা হয়েছে।

এ দিকে ভারতে লন্ডন থেকে আসা একাধিক ব্যক্তির শরীরে কোভিড ভাইরাস মিলেছে। নতুন স্ট্রেইনের করোনা নিয়ে তাঁরা ভারতে ঢুকেছেন কি না, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

এসজি/জিএইচ (রয়টার্স, এপি)