উপগ্রহে চিত্রে ফের ধরা পড়লো চীনের কাঠামো | সমাজ সংস্কৃতি | DW | 30.06.2020
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

ভারত-চীন

উপগ্রহে চিত্রে ফের ধরা পড়লো চীনের কাঠামো

ভারতীয় সেনার হাতে নতুন একটি উপগ্রহ চিত্র পৌঁছেছে। যাতে দেখা যাচ্ছে, প্যাংগংয়ে বিতর্কিত এলাকায় নতুন কাঠামো নির্মাণ করেছে চীন।

প্যাংগংয়ে বিতর্কিত এলাকায় নতুন কাঠামো নির্মাণ করেছে চীন (Reuters/Maxar Technologies )

সাম্প্রতিক ছবি

ফের লাদাখের প্যাংগং লেক নিয়ে ভারত-চীন বিতর্ক। এ বার বিতর্ক একটি স্যাটেলাইট চিত্রকে ঘিরে। যেখানে দেখা যাচ্ছে লেকের ফিঙ্গার পয়েন্ট চার এবং পাঁচের মাঝখানে নতুন করে একটি বিশাল চীনের মানচিত্র এবং সিম্বল বা প্রতীক লাগিয়ে রেখেছে চীনের সেনা। ভারতীয় সেনার দাবি, ওই অংশতে এ ভাবে মানচিত্র লাগাতে পারে না চীনের সেনা।

লাদাখে প্রায় ১৫ হাজার ফুট উচ্চতায় অবস্থিত নোনা জলের প্যাংগং লেক। ১৩৪ কিলোমিটার বিস্তৃত এই লেকের এক তৃতীয়াংশ ভারতের। চীনের দুই তৃতীয়াংশ। প্রাচীন ইতিহাস বলে টেথিস সাগর থেকে উৎপত্তি হয়েছিল হিমালয়ের। ভূতত্ত্ববিদদের বক্তব্য, সেই সাগরের জলই এখনও থেকে গিয়েছে প্রাচীন প্যাংগং লেকে। এই লেকের ফিঙ্গার পয়েন্ট চার থেকে আট পর্যন্ত অংশ নিয়ে ভারত এবং চীনের মধ্যে বিবাদ। ভারতের দাবি, ফিঙ্গার পয়েন্ট এক থেকে আট পর্যন্ত পুরোটাই ভারতের অংশ এবং সেখানে পেট্রলিংয়ের অধিকার তাদের আছে। অন্য দিকে চীনের দাবি, ফিঙ্গার পয়েন্ট চার থেকে আট পর্যন্ত তাদের অংশ এবং সেখানে পেট্রলিংয়ের অধিকার একমাত্র তাদের।

গত মে মাসে প্যাংগং লেকের ফিঙ্গার পয়েন্ট চার এবং পাঁচেই হাতাহাতিতে জড়িয়ে পড়েছিলেন ভারত এবং চীনের সেনা। শেষ পর্যন্ত লড়াই থামে। দুই দেশের সৈন্যই ফিঙ্গার পয়েন্ট চারের কাছে জমা হয়ে থাকে। এরপরেই ঘটে গালওয়ান উপত্যকার ঘটনা। পেট্রল পয়েন্ট ১৪ তে নিহত হন ২০ জন ভারতীয় জওয়ান। যার জেরে দুই দেশের সেনাই প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখা বরাবর বিশাল সৈন্য মজুত করে। কার্যত যুদ্ধকালীন পরিস্থিতি তৈরি হয়।

ভিডিও দেখুন 04:41

দুর্গম গালওয়ানের সংঘাতময় সীমান্তে

এরই মধ্যে দুই পক্ষের সৈন্য একাধিকবার আলোচনায় বসে। এবং শেষ পর্যন্ত ঠিক হয়, গালওয়ান এবং প্যাংগং অঞ্চল থেকে দুই পক্ষই সৈন্য পিছনে সরিয়ে নিয়ে যাবে। কিন্তু কোন দেশের সৈন্য কতটা পিছোবে? তা নিয়ে এখনও যথেষ্ট বিতর্ক আছে। ফলে কোনও দেশই সৈন্য পিছিয়ে নেয়নি। মঙ্গলবার আবার দুই দেশের কোর কম্যান্ডার পর্যায়ে বৈঠক হচ্ছে। সেখানে আলোচনার ফলাফল থেকে বোঝা যাবে, সেনা সরানো নিয়ে নতুন করে কোনও সমঝোতা হচ্ছে কি না।

এরই মধ্যে সাম্প্রতিক বেশ কয়েকটি উপগ্রহ চিত্রে দেখা যায়, গালওয়ান এবং প্যাংগং অঞ্চলে চীন বেশ কিছু স্থায়ী কাঠামো তৈরি করে ফেলেছে। বাঙ্কার থেকে শুরু করে আরও নানা ধরনের কাঠামো সেখানে রয়েছে। তবে প্যাংগংয়ের ছবিটি মাত্র একদিন আগে সেনাবাহিনীর হাতে গিয়ে পৌঁছেছে। যেখানে দেখা যাচ্ছে, ফিঙ্গার পয়েন্ট চার এবং পাঁচের মাঝখানে বিশাল চীনের মানচিত্র তৈরি করেছে পিপলস লিবারেশন আর্মির জওয়ানরা।

এ বিষয়ে চীনের বক্তব্য, ফিঙ্গার পয়েন্ট ফোর পর্যন্ত তাদের দখলে, ফলে সেখানে চীনের কোনও জিনিস থাকা অন্যায় নয়। ভারতের বক্তব্য ঠিক বিপরীত।

বিশেষজ্ঞদের বক্তব্য, চীন এবং ভারতের সেনা দ্বিপাক্ষিক বৈঠকে এই সমস্যার সমাধান খুঁজে বার করতে পারবে না। কারণ, দুই দেশই ফিঙ্গার পয়েন্ট চার থেকে আটের মধ্যবর্তী অংশ নিজেদের বলে দাবি করছে। এবং সে কারণেই এই অংশে বার বার কাঠামো তৈরি করে নিজেদের অস্তিত্বের প্রমাণ দিচ্ছে চীন। স্যাটেলাইট চিত্র দেখা যাচ্ছে, প্যাংগংয়ের রিজ লাইন ধরে নিজেদের এলাকায় প্রায় ১৮৬টি অস্থায়ী শিবির বানিয়ে রেখেছে চীন। ওই অঞ্চলে প্রচুর পরিমাণে সেনাও রাখা হয়েছে। অন্য দিকে, ভারতীয় অংশেও সেনা মজুত করেছে ভারতীয় সেনা।

সব মিলিয়ে গালওয়ান এবং প্যাংগংয়ের উত্তেজনা এখনও অব্যাহত। বিশেষ করে মঙ্গলবার নতুন এই উপগ্রহ চিত্র পাওয়ার পরে উত্তেজনা আরও বেড়েছে।

এসজি/জিএইচ (এনডিটিভি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন