1. কন্টেন্টে যান
  2. মূল মেন্যুতে যান
  3. আরো ডয়চে ভেলে সাইটে যান
ঈদে কতটা খুশি সাধারণ মানুষ?
ঈদে কতটা খুশি সাধারণ মানুষ?ছবি: Rajib Paul

ঈদ উৎসবও যেন বিপর্যস্ত!

হারুন উর রশীদ স্বপন ঢাকা
৯ জুলাই ২০২২

দেশের উত্তর-পূর্বাঞ্চলে এখনো বন্যার আঘাতে বিপর্যন্ত মানুষ৷ এ ছাড়াও দ্রব্য মূল্যের ঊর্ধ্বগতি, লোডশেডিং, বিপর্যস্ত পরিবহণ এসবও রয়েছে৷ বাংলাদেশে এবারের ঈদুল আজহা বা কোরবানির ঈদ মুসলমানদের জন্য কতটুকু আনন্দের হবে?

https://www.dw.com/bn/%E0%A6%88%E0%A6%A6-%E0%A6%89%E0%A7%8E%E0%A6%B8%E0%A6%AC%E0%A6%93-%E0%A6%AF%E0%A7%87%E0%A6%A8-%E0%A6%AC%E0%A6%BF%E0%A6%AA%E0%A6%B0%E0%A7%8D%E0%A6%AF%E0%A6%B8%E0%A7%8D%E0%A6%A4/a-62418478

নাজমুল হক ঢাকায় একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরি করেন৷ এবার কোরবানির ঈদে পরিবার নিয়ে তার গ্রামের বাড়ি কুষ্টিয়ায় যাওয়ার পরিকল্পনা করেছিলেন৷ গত দুই বছর ঈদে করোনার কারণে যেতে পারেননি৷ তাই এবার গ্রামে যাওয়ার ইচ্ছেটা ছিলো প্রবল৷ কিন্তু শেষ পর্যন্ত তার স্বপ্ন বাস্তবায়ন হয়নি৷ ঢাকাতেই থেকে গিয়েছেন৷ তিনি জানান, আর্থিক সংকটই প্রধান কারণ৷ গ্রামে গেলে আসা যাওয়ার খরচসহ বাড়তি আরো অনেক খরচ আছে৷ দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির কারণে হাতে বাড়তি কোনো টাকা তো নেইই, উল্টে ধারদেনা করে চলতে হচ্ছে৷ তিনিঢাকাতে গরুর একভাগ কোরবানিদিচ্ছেন তাও বাজেট অনেক কাটছাঁট করে৷ আর ঢাকায় তেমন লোডশেডিং না হলেও গ্রামের অবস্থা খুবই খারাপ বলে জানান তিনি৷

তিনি বলেন, ‘‘ আমার পরিচিত বন্ধুবান্ধব যারা আছেন তাদের প্রায় সবারই একই অবস্থা৷ কেউ কেউ আর্থিক সংকটের কারণে কোরবানির চিন্তাই বাদ দিয়েছেন৷ আসলে মধ্যবিত্ত আছে চরম সংকটে৷ সে কাউকে বলতেও পারেনা৷ সইতেও পারেনা৷''

বাংলাদেশে মূল্যবৃদ্ধি  গত আট বছরের রেকর্ড ছাড়িয়ে গিয়েছে৷ বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোই এই হিসাব দিয়েছে৷ তারা বলছে এখন মূল্যবৃদ্ধি গড়ে শতকরা ৭.৪২ ভাগ৷ আর এটা শহরের চেয়ে গ্রামে বেশি৷ নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম বাড়ার কারণেই এই মূল্যবৃদ্ধি৷ তবে বাস্তবে এটা আরো বেশি বলে মনে করেন অর্থনীতিবিদরা৷ কিন্তু এই সময়ে সাধারণ মানুষের আয় বাড়েনি৷

করোনা পরবর্তী পরিস্থিতি মোকাবেলায় হিমশিম খেতে হচ্ছে৷ তার উপর ইউক্রেন যুদ্ধের কারণে ভোজ্য তেল এবং জ্বালানিসহ নিত্যপণ্যের দাম বাড়ার প্রভাবও পড়েছে এখানে৷ কনজিউমারস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (ক্যাব)-এর সহসভাপতি এস এম নাজের হোসাইন বলেন, ‘‘বিশ্ববাজারের চেয়ে এখানে নিত্যপণ্যের দাম বাড়ার হার বেশি৷ কারণ ব্যবসায়ীরা সিন্ডিকেট করে দাম বাড়িয়ে দেয় কোনো অজুহাত পেলেই৷ সরকারেরও কোনো মনিটরিং নেই৷''

‘‘ঈদের সেই আনন্দ আর আশা করা যায়না’’

ইএনডিপির কান্ট্রি ইকনোমিস্ট ড. নাজনীন আহমেদ বলেন, ‘‘এখন বেরো ধানের ভরা মৌসুম৷ বন্যার আগেই আমন উঠে গেছে৷ তাহলে তো চালের দাম বাড়ার কোনো কারণ নেই৷ কিন্তু তারপরও চালের দাম বাড়ছে৷''

দেশ শতভাগ বিদ্যুতায়িত হওয়ার কথা কিছুদিন আগে বলা হলেও এখন লোডশেডিং শুরু হয়েছে৷ বিদ্যুৎ উৎপাদনের সক্ষমতা থাকলেও আন্তর্জাতিক বাজারে এলপিজির দাম বেড়ে যাওয়ায় সব বিদ্যুৎ কারখানা চলানো যাচ্ছেনা বলে সরকারের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে৷ আর দেশেও গ্যাসের ঘাটতি চলছে৷ এখন প্রতিদিন কমপক্ষে দুই হাজার মেগাওয়াট ঘাটতি থাকছে৷

সরকার বলছে, এই পরিস্থিতি কমপক্ষে আগামী সেপ্টেম্বর পর্যন্ত চলবে৷ এই ঈদেও পরিস্থিতির কোনো উন্নতি নেই৷ সারা দেশে এখন বিদ্যুতের রেশনিং চলছে৷ গড়ে দুই ঘণ্টা লোডশেডিং হচ্ছে৷ দক্ষিণের জেলা পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ার ব্যবসায়ি মিজানুর রহমান মিজু  বলেন, ‘‘ শহরে কী অবস্থা জানিনা তবে আমাদের গ্রামের দিকে এখন দিনে চার থেকে ছয় ঘণ্টা বিদ্যুৎ থাকেনা৷''

ব্র্যাকের গত বছরের হিসেবে বাংলাদেশে করোনায় অতিরিক্ত নতুন করে তিন কোটি ২৪ লাখ মানুষ দরিদ্র হয়েছেন৷ দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধির কারণে চলতি বছরে নতুন করে দরিদ্র হয়েছেন আরো ২১ লাখ মানুষ৷ এই জরিপও ব্র্যাকের৷ দেশের মানুষের ক্রয় ক্ষমতা কমে গেছে৷ এখন ৭০ ভাগ মানুষকেই তাদের আয়ের বড় অংশই খাদ্য কিনতে ব্যয় করতে হয়৷

দেশের উত্তর-পূর্বাঞ্চলের সিলেট ও সুনামগঞ্জসহ অন্যান্য জেলার বন্যার পানি নামলেও তাদের আশ্রয় নষ্ট হয়েছে৷ সম্পদ ও ফসল হারিয়েছেন তারা৷ সিলেটের সাংবাদিক ওয়াসে খসরু জানান, ‘‘ওই অঞ্চলের অনেকেরই এবার ঈদ হবে আশ্রয় কেন্দ্রে৷ আর আগে যারা তিন-চারটি গরু কোরবানি দিতেন তারা একটি দিচ্ছেন৷ আর যারা ভাগে দিতেন তারা দিতে পারছেন না৷ গরুর হাটেও ক্রেতাদের তেমন ভিড় নেই৷ গরুও কম৷''

তবে তিনি জানান,  দেশের অন্যান্য এলাকার বিত্তশালীরা কোরবানির গরু সিলেটের গরিব মানুষের জন্য  পাঠাচ্ছেন৷ কিছু এনজিও সেখানে গরু কোরবানির ব্যবস্থা করছে৷ কিন্তু সমস্যা হচ্ছে প্রত্যন্ত অঞ্চলে মাংস পাঠানো কঠিন৷ এখনো যোগাযোগ ব্যবস্থা স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে আসেনি৷

ক্যাব-এর এস এম নাজের হোসাইন বলেন, ‘‘মানুষ এখন দারিদ্র্য আর দ্রব্যমূল্যের চাপে আছে৷ তার উপরে শুরু হয়েছে বিদ্যুৎ সংকট৷ ঈদে যানবাহনের চিরাচরিত ভোগান্তি একটু কমেনি৷ ফলে ঈদের সেই আনন্দ আর আশা করা যায়না৷ আর সিলেট অঞ্চলের মানুষ তো চরম সংকটে আছেন৷''

তিনি বলেন, ‘‘ মধ্যবিত্ত তার সাধ্যের মধ্যে ছোট গরু কোরবানি দিত৷ এবার সেইছোট গরুর দামও বেড়ে গেছে৷ কারণ আর্থিক সংকটের কারণে চোট গরুর চাহিদা বেড়েছে৷ তাই কেউ কেউ কোরবানি দিচ্ছেন না৷''

অর্থনীতিবিদ নাজনীন আহমেদ বলেন, ‘‘ এখন ঈদের খুশির চেয়ে মানুষের বড় প্রয়োজন খাদ্য৷ সরকার ওএমএস-এর মাধ্যমে যে পণ্য বিক্রি করছে তার পরিধি বাড়াতে হবে৷ আর এটা যাতে সবাই পায় তা নিশ্চিত করতে হবে৷ এর সঙ্গে সরকার যে সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনী করেছে তাও বিস্তৃত করতে হবে৷'

তার কথায়, ‘‘গরিব মানুষ এই ঈদে কিছু পাবে৷ বিত্তশালীদের তো আর্থিক সমস্যা নেই৷কিন্তু মধ্যবিত্তকে কে দেখবে৷ সে লাইনে দাঁড়িয়ে পণ্য কিনতে পারেনা৷  আর উচ্চমূল্যে কেনারও সক্ষমতা নেই৷ এই ঈদে তাদের কষ্ট সবচেয়ে বেশি৷’’

ঈদের আগে প্রবাসীদের পাঠানো রেমিটেন্স এবারও বেড়েছে৷ ঈদের আগের ছয়দিনে সাত হাজার কোটি টাকার রেমিটেন্স এসেছে৷

ঈদের খুশির চেয়ে মানুষের বড় প্রয়োজন খাদ্য: নাজনীন আহমেদ

নাজনীন আহমেদ বলেন, তাতে রিজার্ভ হয়তো কিছুটা বাড়বে৷ আর প্রবাসীদের পরিবার পরিজন ঈদটা ভালোভাবে করতে পারবেন৷ কিন্তু সার্বিক পরিস্থিতির উন্নতি হবে বলে মনে হয়না৷ মানুষের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করতে হবে৷ দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে রাখতে হবে৷
মুসলমানদের কোরবানির ঈদ সক্ষমদের জন্য৷ এই সময়ে তারা কোরবানির মাংস গরিব এবং আত্মীয় স্বজনদের দেন৷ আর তারা টাকা পয়সা দানও করেন৷ কিন্তু আয় বর্ধক না হলে তাতে লাভ নেই বলে মনে করেন এই অর্থনীতিবিদ৷

তার কথায়, কোরবানিতে গরিব মানুষ যে মাংস পান তাও তারা সংরক্ষণ করতে পারেন না৷ কারণ তাদের তো আর ফ্রিজ নাই৷ ফলে তারা ওই মাংস কম দামে বিক্রি করে দেন৷ এতে লাভবান হয় হোটেল মালিকরা৷

সার্বিক বিবেচনায় দুই বছর করোনার পর এবার কোরবানির ঈদ যে খুশির বার্তা নিয়ে আসার কথা তা আসেনি৷ শোলাকিয়ার ইমাম মাওলানা ফরিদউদ্দিন মাসউদ তাই যদি সম্ভব হয় বন্যা দুর্গত এলাকায় গিয়ে পশু কোরবানি দেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন৷ যাতে তারা কোরবানির মাংস খেতে পারেন৷ তিনি বলেন, ‘‘আমি আমার গরু সেখানে পাঠিয়ে দিয়েছি৷ অন্যরাও করতে পারেন৷ আর যারা একাধিক পশু কোরবানি দেন তারা একটি দিয়ে বাকি টাকা গরিব মানুষকে দিতে পারেন৷ কোরবানি হলো ত্যাগের উৎসব৷ আমরা যদি সবাই ত্যাগের মনোভাব দেখাই তাহলেই সেটা হবে আনন্দের৷’’

স্কিপ নেক্সট সেকশন ডয়চে ভেলের শীর্ষ সংবাদ

ডয়চে ভেলের শীর্ষ সংবাদ

Bangladesch Wahlen Wahlkampf 2018 Nationalisten BNP

ভোটের আগে জোট নিয়ে টানাটানি

স্কিপ নেক্সট সেকশন ডয়চে ভেলে থেকে আরো সংবাদ
প্রথম পাতায় যান