1. কন্টেন্টে যান
  2. মূল মেন্যুতে যান
  3. আরো ডয়চে ভেলে সাইটে যান
ইরানের শীর্ষ পরমাণু আলোচক আলি বাঘেরি বলেন জেসিপিওএ বাঁচাতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে ‘‘পরিণত মনোভাব নিয়ে দায়িত্ব পালন করতে হবে’’
ইরানের শীর্ষ পরমাণু আলোচক আলি বাঘেরি বলেন জেসিপিওএ বাঁচাতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে ‘‘পরিণত মনোভাব নিয়ে দায়িত্ব পালন করতে হবে’’ছবি: Askin Kiyagan/AA/picture alliance

ইরানের সঙ্গে বোঝাপড়ার ক্ষেত্রে অগ্রগতির আশা

৮ আগস্ট ২০২২

ইরানের সঙ্গে পরমাণু চুক্তির নবায়নের ক্ষেত্রে কিছুটা আশার আলো দেখা যাচ্ছে৷ ভিয়েনায় রাশিয়ার শীর্ষ মধ্যস্থতাকারী এমনই ইঙ্গিত দিচ্ছেন৷ তবে অন্য প্রতিনিধিরা এ বিষয়ে এখনো নীরব রয়েছেন৷

https://www.dw.com/bn/%E0%A6%87%E0%A6%B0%E0%A6%BE%E0%A6%A8%E0%A7%87%E0%A6%B0-%E0%A6%B8%E0%A6%99%E0%A7%8D%E0%A6%97%E0%A7%87-%E0%A6%AC%E0%A7%8B%E0%A6%9D%E0%A6%BE%E0%A6%AA%E0%A6%A1%E0%A6%BC%E0%A6%BE%E0%A6%B0-%E0%A6%95%E0%A7%8D%E0%A6%B7%E0%A7%87%E0%A6%A4%E0%A7%8D%E0%A6%B0%E0%A7%87-%E0%A6%85%E0%A6%97%E0%A7%8D%E0%A6%B0%E0%A6%97%E0%A6%A4%E0%A6%BF%E0%A6%B0-%E0%A6%86%E0%A6%B6%E0%A6%BE/a-62737965

২০১৫ সালে ইরানের সঙ্গে আন্তর্জাতিক সমাজের পরমাণু শক্তি সে দেশের পরমাণু কর্মসূচির অগ্রগতি সীমিত রেখেছিল৷ পরমাণু অস্ত্র তৈরি থেকে ইরানকে বিরত রাখতে একাধিক শর্ত চাপানো হয়েছিল এবং সেই প্রক্রিয়ার উপর নজর রাখতে কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছিল৷ কিন্তু ২০১৮ সালে তৎকালীন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প একতরফাভাবে সেই চুক্তি থেকে সরে আসার পর ইরানও চুক্তির শর্ত ভেঙে বেপরোয়া পদক্ষেপ নিতে থাকে৷ ওয়াশিংটনে ক্ষমতায় আসার পর মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ট্রাম্পের আমলের সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার না করায় ইরানও কোনো সদিচ্ছা দেখায় নি৷ সে দেশের দাবি, ওয়াশিংটনকে নিঃশর্তে চুক্তির আওতায় আসতে হবে, সব নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করতে হবে এবং ভবিষ্যতে কোনো মার্কিন প্রশাসন এই চুক্তি ত্যাগ করবে না – এমন গ্যারেন্টি দিতে হবে৷

এবার মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও ইরানসহ চুক্তির বাকি স্বাক্ষরকারী শক্তিগুলির শীর্ষ প্রতিনিধিরা ভিয়েনায় আবার আলোচনা চালাচ্ছেন৷ রোববার আলোচনার চতুর্থ দিনে রাশিয়ার রাষ্ট্রদূত মিখাইল উলিয়ানভ বলেন, ‘‘আমরা ফিনিশিং লাইন থেকে পাঁচ মিনিট বা পাঁচ সেকেন্ড দূরে পৌঁছে গেছি৷ শুধু তিন থেকে চারটি বিষয়ের নিষ্পত্তি বাকি আছে৷ সেগুলি বিশেষ করে ইরান ও অ্যামেরিকার জন্য স্পর্শকাতর বিষয়৷'' সাফল্যের গ্যারিন্টি দিতে না পারলেও উলিয়ানভ মনে করেন, আলোচনা সঠিক পথে অগ্রসর হচ্ছে৷ আলোচনা দ্রুত শেষ হবে বলেও তিনি মনে করেন৷ রাশিয়ার পূর্ণ সমর্থনেরও আশ্বাস দেন রুশ রাষ্ট্রদূত৷

ইউরোপীয় ইউনিয়নের মধ্যস্থতায় অ্যামেরিকা ও ইরানের মধ্যে আপোশের নতুন এই প্রচেষ্টা সম্পর্কে বাকি প্রতিনিধিরা এখনো মুখ খোলেননি৷ চুক্তির স্বাক্ষরকারী হিসেবে রাশিয়া, চীন, ফ্রান্স, ব্রিটেন ও জার্মানিও বর্তমান আলোচনায় অংশ নিচ্ছে৷

রোববার ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী হুসেইন আমিরাবদ্দোলাহইয়ান বলেন,  তার দেশ আন্তর্জাতিক পরমাণু শক্তি এজেন্সিআইএইএ-র পরিদর্শকদের তদন্তের বিরোধিতা করছে৷ উল্লেখ্য,  অতীতে ইরানের গোপন পরমাণু কার্যকলাপের উপর আলোকপাত করতে এমন উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে৷ ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আইএইএ পরিদর্শকদের সঙ্গে সহযোগিতা চালিয়ে যাবার আশ্বাস দিলেও তাদের রাজনৈতিক বিচ্যুতি থেকে দুরে থাকতে হবে৷ শুধু প্রযুক্তিগত কাঠামোর আওতায় তাদের কার্যকলাপ সীমাবদ্ধ রাখার দাবি জানান তিনি৷ জাতিসংঘের মহাসচিব আন্তোনিয়ো গুতেরেশের সঙ্গে টেলিফোনে কথা বলার সময়ে আমিরাবদ্দোলাহইয়ান তার দেশের অবস্থান তুলে ধরেন৷ তিনি আবার দাবি করেন, যে ইরান মোটেই পরমাণু অস্ত্র তৈরি করতে চায় না৷

বাইডেন প্রশাসন ইরানের সব দাবি মেনে নেবে কিনা, সে বিষয়ে সংশয় রয়েছে৷ ট্রাম্পের আমলের সিদ্ধান্তের জের ধরে ইরান বেলাগাম হয়ে ঠিক কোন ধরনের কার্যকলাপ চালিয়েছে, সে বিষয়ে স্পষ্ট ধারণা পেতে চায় ওয়াশিংটন৷ বিশেষ করে পরমাণু সমৃদ্ধিকরণের মাধ্যমে পরমাণু অস্ত্র তৈরির ক্ষেত্রে তেহরান কতটা অগ্রসর হয়েছে, সে বিষয়ে অ্যামেরিকার গভীর দুশ্চিন্তা রয়েছে৷

এসবি/কেএম (এপি/ডিপিএ/এএফপি)

পরমাণু চুক্তি নিয়ে ইরানের জনগণের ভাবনা

স্কিপ নেক্সট সেকশন ডয়চে ভেলের শীর্ষ সংবাদ

ডয়চে ভেলের শীর্ষ সংবাদ

Solidaritätskundgebungen mit Mahsa Amini

মাহসা হত্যার প্রতিবাদ এশিয়ায় ইউরোপে দক্ষিণ অ্যামেরিকায়

স্কিপ নেক্সট সেকশন ডয়চে ভেলে থেকে আরো সংবাদ
প্রথম পাতায় যান