1. কন্টেন্টে যান
  2. মূল মেন্যুতে যান
  3. আরো ডয়চে ভেলে সাইটে যান
দ্বিতীয় গোলের পর ইংল্যান্ড প্লেয়ারদের উচ্ছ্বাস। ছবি: PAUL ELLIS/REUTERS

ইউরো কাপের ফাইনালে ইংল্যান্ড

৮ জুলাই ২০২১

ডেনমার্ককে ২-১ গোলে হারিয়ে ইউরো কাপের ফাইনালে হ্যারি কেনের ইংল্যান্ড। রোববার ফাইনালে ইটালির বিরুদ্ধে খেলবে তারা।

https://www.dw.com/bn/%E0%A6%87%E0%A6%89%E0%A6%B0%E0%A7%8B-%E0%A6%95%E0%A6%BE%E0%A6%AA%E0%A7%87%E0%A6%B0-%E0%A6%AB%E0%A6%BE%E0%A6%87%E0%A6%A8%E0%A6%BE%E0%A6%B2%E0%A7%87-%E0%A6%87%E0%A6%82%E0%A6%B2%E0%A7%8D%E0%A6%AF%E0%A6%BE%E0%A6%A8%E0%A7%8D%E0%A6%A1/a-58197860

অনবদ্য ইংল্যান্ড অধিনায়ক হ্যারি কেন। পেনাল্টি থেকে গোল করলেন। দলকে ইউরো কাপের ফাইনালে তুললেন।

ইউরো কাপ শুরুর আগে ইংল্যান্ড যে ফাইনালে যাবে এমন আশা খুব বেশি ফুটবলপ্রেমী সম্ভবত করেননি। ফ্রান্স, জার্মানি, পর্তুগাল, স্পেনের মতো শক্তিশালী টিম বাইরে চলে গেছে। বুধবার ডেনমার্কও গেল। ফাইনালে মুখোমুখি ইটালি ও ইংল্যান্ড।

ইংল্যান্ডের কোচ সাউথগেট এবং অধিনায়ক হ্যারি কেন হম্বিতম্বি নয়, বরং লো কি-তে থাকতে ভালোবাসেন। তাদের লোক দেখানো হইচই করার অভ্যাস নেই। এবার সাউথগেট-কেন যুগলবন্দি ইংল্যান্ডের সাফল্যের পিছনে বড় কারণ।

Euro 2020 - Fans gather for England v Denmark
দলের জয়ে আনন্দে ভাসছেন ইংল্যান্ডের সমর্থকরা।ছবি: HENRY NICHOLLS/REUTERS

এদিন ডেনমার্কই প্রথম গোল করে। ফ্রিকিক থেকে গোল করে দলকে এগিয়ে দেন দামসগার্ড। তার শট বাঁদিকের কোন দিয়ে গোলে ঢোকে। অসাধারণ গোল। তবে ইংল্যান্ড মিনিট নয়েকের মধ্যে গোল শোধ করে দেয়। বুকায়ো সাকা বল সেন্টার করেন স্টারলিংকে লক্ষ্য করে। কিন্তু ডেনমার্কের ডিফেন্ডার নিজের গোলেই বল ঢুকিয়ে দেন।

এরপর খেলা গড়ায় অতিরিক্ত সময়ে। তার আগে কেন, স্টারলিং সুযোগ পেয়েও গোল করতে পারেননি। ডেনমার্কও কয়েকটি সুযোগ পেয়েছিল।  ১০৪ মিনিটে গোল করেন কেন। স্টারলিংকে বক্সের ভিতর ফাউল করে ফেলে দেয়া হয়। রেফারি পেনাল্টি দেন। কেনের শট গোলরক্ষক আটকে দিয়েছিলেন। কিন্তু ফিরতি বল কেন ঠেলে দেন গোলের ভিতরে।  

ফাইনালে আরো কঠিন চ্যালেঞ্জের মুখে ইংল্যান্ড। ইটালি গত ৩৩টি ম্যাচে অপরাজিত। তাদের কি ঘরের মাঠে হারাতে পারবে কেনের দল?

জিএইচ/এসজি(রয়টার্স, এএফপি)

স্কিপ নেক্সট সেকশন ডয়চে ভেলের শীর্ষ সংবাদ

ডয়চে ভেলের শীর্ষ সংবাদ

মহিবুল্লাহ হত্যাকাণ্ডের পর ক্যাম্পে নানা সন্ত্রাসী গ্রুপ মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছে বলে স্থানীয় সূত্র জানায়৷ সেখানে এখন কমপক্ষে আটটি সন্ত্রাসী গ্রুপ সক্রিয় আছে৷

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে মিয়ানমারে ফেরার কথা বললেই বিপদ!

স্কিপ নেক্সট সেকশন ডয়চে ভেলে থেকে আরো সংবাদ

ডয়চে ভেলে থেকে আরো সংবাদ

প্রথম পাতায় যান