1. কন্টেন্টে যান
  2. মূল মেন্যুতে যান
  3. আরো ডয়চে ভেলে সাইটে যান
Indien Westbengalen Universität Burdwan University
ছবি: DW/P. Samanta

অনলাইন পরীক্ষায় যথাযথ মূল্যায়ন কি সম্ভব?

পায়েল সামন্ত কলকাতা
২৯ মে ২০২২

ভারতের পশ্চিমবঙ্গে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর স্তরে পরীক্ষা কী অনলাইন না অফলাইনে নেওয়া হবে এ নিয়ে পক্ষে-বিপক্ষে আলোচনা চলছে৷

https://www.dw.com/bn/%E0%A6%85%E0%A6%A8%E0%A6%B2%E0%A6%BE%E0%A6%87%E0%A6%A8-%E0%A6%AA%E0%A6%B0%E0%A7%80%E0%A6%95%E0%A7%8D%E0%A6%B7%E0%A6%BE%E0%A7%9F-%E0%A6%AF%E0%A6%A5%E0%A6%BE%E0%A6%AF%E0%A6%A5-%E0%A6%AE%E0%A7%82%E0%A6%B2%E0%A7%8D%E0%A6%AF%E0%A6%BE%E0%A7%9F%E0%A6%A8-%E0%A6%95%E0%A6%BF-%E0%A6%B8%E0%A6%AE%E0%A7%8D%E0%A6%AD%E0%A6%AC/a-61967261

অনলাইনে পরীক্ষা নেওয়ার দাবিতে অনেক বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা আন্দোলনে নেমেছেন৷ আর কলেজ অধ্যক্ষদের একটা বড় অংশ অবশ্য অফলাইনেই পরীক্ষা নিতে চান৷

কোভিড অতিমারি শিক্ষাব্যবস্থার প্রচলিত পদ্ধতিকে বদলে দিয়েছে৷ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পঠনপাঠন ও পরীক্ষার চিরাচরিত ধারণা বদলে গিয়েছে এই সময়ে৷

গত দু'বছরের অধিকাংশ সময়ই স্কুল থেকে কলেজ কিংবা বিশ্ববিদ্যালয় তালাবন্ধ ছিল৷ মাসের পর মাস বেঞ্চে ধুলো পড়েছে, ব্ল্যাকবোর্ড রয়ে গিয়েছে ফাঁকা৷ মোবাইল বা কম্পিউটার নির্ভর অনলাইন পঠনপাঠন শুরু হয়েছে জোরকদমে৷ কোভিডের কামড় কিছুটা কমার পর ধীরে ধীরে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের দরজা খুললেও এখনো পুরোনো ছন্দ ফিরে আসেনি৷ ক্লাশ অনলাইনেই অব্যাহত থাকবে কি না এ নিয়ে যেমন বিতর্ক ছিল তেমনি পরীক্ষা কীভাবে হবে তা নিয়ে বিতণ্ডা চলছে বেশ কিছু দিন ধরে৷

পরীক্ষা হোক হলে বসেই, অনলাইনে নয়: পবিত্র সরকার

রাজ্যের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীন কলেজগুলোতে পরীক্ষার সময় এগিয়ে আসছে৷ পশ্চিমবঙ্গের সবচেয়ে নামজাদা কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীন কলেজের পড়ুয়ারা পথে নেমেছেন অনলাইন পরীক্ষার দাবিতে৷ বিশ্ববিদ্যালয়ের কলেজ স্ট্রিট ক্যাম্পাসের সামনে শুক্রবার বিক্ষোভ দেখান শত শত ছাত্রছাত্রী৷

তাঁদের দাবি, পরীক্ষা নিতে হবে অনলাইনে৷ ব্যস্ত বইপাড়া কলেজ স্ট্রিটে অবস্থান কর্মসূচি শুরু করেন তাঁরা৷ বিক্ষোভে সামিল ইতিহাস বিভাগের অনার্সের ছাত্রী শ্যামলী বিশ্বাস বলেন, ‘‘হঠাৎ করে আমাদের অফলাইনে পরীক্ষা দিতে বলা হচ্ছে৷ অথচ আমরা কলেজে গিয়ে ক্লাস কমই করেছি৷ এই পরিস্থিতিতে হলে বসে পরীক্ষা দিতে বললে কী করে হবে?’’

পরীক্ষা কীভাবে হবে সে বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেট শুক্রবার বৈঠকে বসে৷ প্রাচীন এই বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে ১৫৫টি কলেজ রয়েছে৷ কলেজের অধ্যক্ষদের মত জানতে সিন্ডিকেট বৈঠকে তাঁদের ডাকা হয়৷ সেই সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের ফটকের বাইরে বিক্ষোভ করতে থাকেন পরীক্ষার্থীরা৷

সূত্রের খবর, অধ্যক্ষদের অধিকাংশই অফলাইন অর্থাৎ হলে বসে পরীক্ষা দেওয়ার পক্ষে মত দিয়েছেন৷

আর পড়ুয়ারা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য সোনালি চক্রবর্তী বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে এ ব্যাপারে কথা বলতে চেয়েছিলেন৷ উপাচার্য তাঁদের কাছ থেকে লিখিত আকারে দাবিপত্র চেয়েছেন৷

ইতিমধ্যেই যাদবপুর ও রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয় ঘোষণা করেছে যে, তারা পরীক্ষা নেবে অফলাইনে৷

বিক্ষোভ উপেক্ষা করে যাদবপুরে হলে বসে পরীক্ষা গ্রহণের প্রক্রিয়া শুরু হয়ে গিয়েছে৷ আর বিদ্যাসাগর বিশ্ববিদ্যালয় অবশ্য অনলাইনে পরীক্ষা নিতে চায়৷

সূত্রের খবর, রাজ্যের উচ্চশিক্ষা দফতর চাইছে পুরোনো পদ্ধতিতে কেন্দ্রে এসেই পরীক্ষা দিক ছাত্রছাত্রীরা৷ এ ব্যাপারে রাজ্যের মত জানতে কয়েকজন উপাচার্য দফতরের সঙ্গে যোগাযোগ করেছিলেন৷ বিশ্ববিদ্যালয় স্বশাসিত প্রতিষ্ঠান হওয়ায় এ ব্যাপারে তাদের উপরই সিদ্ধান্ত নেওয়ার ভার ছেড়ে দিয়েছে রাজ্য৷

তবে শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসুর মত, অফলাইনেই পরীক্ষা হওয়া উচিত৷ এক্ষেত্রে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সম্মতি রয়েছে বলে সূত্রের খবর৷ উচ্চশিক্ষা দপ্তর মনে করছে, আগের থেকে পরিস্থিতি অনেকটাই স্বাভাবিক হয়েছে৷ তাই কেন্দ্রে এসে পরীক্ষা দেওয়াই বাঞ্ছনীয়৷ 

শিক্ষাবিদদের অধিকাংশই অবশ্য অনলাইন পরীক্ষাকে খারিজ করে দিচ্ছেন৷ তাঁদের মতে, এটা আপৎকালীন ব্যবস্থা ছিল৷ এখন পুরোনো পদ্ধতিতে ফিরে যাওয়া ভাল৷

বাসে বসে শিশুদের ক্লাস

প্রাক্তন উপাচার্য শিক্ষাবিদ পবিত্র সরকার ডয়চে ভেলেকে বলেন, ‘‘অনলাইনে পরীক্ষা কাম্য নয়৷ এটা টোকাটুকির ছাড়পত্র চাওয়া৷ প্রকাশ্যে টোকাটুকি করা সম্ভব নয় বলে আড়ালে, অনলাইনে সেটা করার চেষ্টা৷ এভাবে সঠিক মূল্যায়ন কখনোই সম্ভব নয়৷’’

শিক্ষামহলের একাংশের মতে, অনলাইন পরীক্ষায় স্বচ্ছতা থাকা সম্ভব নয়৷ অনেক ক্ষেত্রে দেখা গিয়েছে, কোচিং সেন্টারের নোটস হুবহু উত্তরপত্রে তুলে ধরা হচ্ছে৷ একই ক্লাসের অনেক পরীক্ষার্থীর উত্তরপত্র বহুলাংশে এক৷

এই পরিস্থিতিতে মূল্যায়ন কীভাবে সম্ভব? যদিও আরেক অংশের বক্তব্য, স্নাতক বা স্নাতকোত্তর স্তরের পরীক্ষায় যে প্রশ্ন আসে, তার উত্তর যথাযথ প্রস্তুতি ছাড়া দেওয়া সম্ভব নয়৷ বই নিয়ে পরীক্ষা দিতে বসলেও উত্তর লেখা যাবে না৷ তাই অনলাইনে হলেই টোকাটুকি করে কেউ দারুণ ফল করবে, এই ভাবনা বাস্তবসম্মত নয়৷

হলে বসে পরীক্ষা দেওয়ার ক্ষেত্রে কেন অনীহা ছাত্রছাত্রীদের? পদার্থবিদ্যার অনার্স স্তরের পড়ুয়া শমীক ঘোষাল বলেন, ‘‘আমাদের ক্লাস ঠিকঠাক হয়নি৷ আজ হঠাৎ পরীক্ষায় বসিয়ে দিলে কীভাবে হবে৷ আমরা অফলাইন পরীক্ষায় রাজি৷ তবে তার আগে মাস দু-তিনেক ক্লাস হোক৷ তারপর পরীক্ষা নেওয়া হোক৷’’

শিক্ষার্থীদের এ দাবি প্রসঙ্গে পবিত্র সরকারের বক্তব্য, ‘‘এটা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ দেখুক যে, ছাত্রছাত্রীরা কতটা পড়াশোনা করতে পেরেছে৷ কতটা সিলেবাসের উপর তাঁরা পরীক্ষা দিতে পারবে৷ শিক্ষকদের সঙ্গে কর্তৃপক্ষ এ ব্যাপারে কথা বলুন৷ কিন্তু পরীক্ষা হোক হলে বসেই, অনলাইনে নয়৷’’

 

স্কিপ নেক্সট সেকশন ডয়চে ভেলের শীর্ষ সংবাদ

ডয়চে ভেলের শীর্ষ সংবাদ

Dhaka Universität Demonstration Lehrer und Eltern

মেয়াদোত্তীর্ণ কমিটি, ছাত্রলীগের কেন্দ্রেই গলদ

স্কিপ নেক্সট সেকশন ডয়চে ভেলে থেকে আরো সংবাদ
প্রথম পাতায় যান