1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বাংলাদেশ

‘সরকার চাইলে আগেই খুনিদের ধরতে পারত’

সাংবাদিক দম্পতি সাগর- রুনি হত্যাকাণ্ডের পাঁচ বছর হয়ে গেলেও এখনো কোনো অপরাধী ধরা পড়েনি৷ সাগর সরওয়ারের মা সালেহা মুনির মনে করেন, ‘‘সরকার ইচ্ছা করলে (অপরাধীদের) অনেক আগেই বের করতে পারতো৷ এখনো ইচ্ছা করলে পারে৷’’

২০১২ সালের ১১ ফেব্রুয়ারি ভোর রাতে ঢাকার পশ্চিম রাজারবাগের বাসায় খুন হন সাংবাদিক দম্পতি সাগর সরওয়ার ও মেহেরুন রুনি৷ ঘটনার একমাত্র প্রত্যক্ষদর্শী হিসেবে বেঁচে আছে তাঁদের একমাত্র শিশু পুত্র মাহির সরওয়ার মেঘ৷ কিন্তু গত পাঁচ বছরেও পুলিশ মামলার তদন্তে কেনো অগ্রগতির খবর দিতে পারেনি৷ অপরাধীদের চিহ্নিত বা আটকও করতে পারেনি৷ গতকাল ৮ ফেব্রুয়ারি আদালতে মামলার তদন্ত অগ্রগতি প্রতিবেদন দেয়ার কথা থাকলেও তদন্তকারী সংস্থা র‌্যাব তা দিতে ব্যর্থ হয়েছে৷ আর এ কারণে আদালত তদন্ত কর্মকর্তা এএসপি মহিউদ্দিন আহমেদকে ২১ মার্চ তলব করেছেন৷

অডিও শুনুন 03:29

সরকার ইচ্ছা করলে অনেক আগেই বের করতে পারতো: সাগরের মা

সাগরের মা সালেহা মুনির হতাশা নিয়েই ডয়চে ভেলেকে বলেন, ‘‘এবার আশা করেছিলাম পুলিশ কোনো অগ্রগতির খবর দেবে৷ আমি নিশ্চিত ভেবে ছিলাম সাগর-রুনির হত্যাকারীদের ব্যাপারে তথ্য দেবে র‌্যাব৷ কিন্তু আদালতে তারা কেনো খবর দিতে পারেনি৷ যা আমাকে হতাশ করেছে৷ কিন্তু আমি কখনোই আশা ছাড়বো না৷ আমি আমার ছেলের খুনিদের দেখতে চাই৷ আমৃত্যু আমি বিচারের দাবি করেই যাবো৷’’

তিনি জানান তদন্তে অগ্রগতি না থাকলেও তদন্ত কর্মকর্তারা মাঝে মাঝে তাঁর সঙ্গে দেখা করেন৷ তাঁর ভাষায়, ‘‘কয়েকদিন আগে তদন্ত কর্মকর্তা বাসায় এসে আমার খোঁজ খবর নিয়েছেন৷ আমি তদন্তের অগ্রগতির খবর জানতে চাইলে শুধু বলেছেন, আপনার ছেলে তো শহীদ৷ অবশ্যই কিছু হবে৷’’

সালেহা মনির বলেন,‘‘সরকার ইচ্ছা করলে (অপরাধীদের) অনেক আগেই বের করতে পারতো৷ এখনো ইচ্ছা করলে পারে৷ আমার মনে হয়, এখনো তারা ধরা পড়বে, বিচার হবে৷ নারায়ণগঞ্জের সাত খুন মামলার বিচার হলে আমার সন্তানের হত্যার বিচার হবে না কেন?’’

অডিও শুনুন 01:52

তদন্ত কর্মকর্তা এখন আর আমাদের সঙ্গে যোগাযোগ করেন না: রুনির ভাই

বিচার কেন হচ্ছে না? এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘‘সেটা আমারও প্রশ্ন৷ আমার মনে হয়, কোথাও এটা প্যাঁচ বা গিট্টু আছে, সেটা কি আমি জানি না৷’’

প্রয়াত সাংবাদিক মেহেরুন রুনির ভাই নওশের রোমান তদন্তের অগ্রগতি সম্পর্কে ডয়চে ভেলেকে বলেন, ‘‘তদন্ত কর্মকর্তা এখন আর আমাদের সঙ্গে যোগাযোগ করেন না৷ ফলে মামলার তদন্তের কোনো অগ্রগতি সম্পর্কে আমরা জানিনা৷ আমরা আশাহত৷ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী যখন বলেন, তাঁর কাছে তদন্তের অগ্রগতির কোনো খবর নাই, তখন আমরা বিচারের আশা করব কিভাবে?’’

সাগর-রুনির একমাত্র সন্তান মাহির সরওয়ার মেঘ এখন ক্লাস ফোর-এ পড়ে৷ নওশের জানান, ‘‘মাহির এখন অনেকটা স্বাভাবিক জীবনে ফিরে এসেছে৷ তবে বাবা-মায়ের ছবি দেখলে বা কোনো ঘটনা মনে পড়লে মাঝে মাঝে সে আবেগপ্রবণ হয়ে পড়ে৷’’

প্রিয় পাঠক, সাগর-রুনি হত্যাকাণ্ডের বিচার নিয়ে আপনি কতটা আশাবাদী? জানান নীচে মন্তব্যের ঘরে... 

নির্বাচিত প্রতিবেদন

এই বিষয়ে অডিও এবং ভিডিও

সংশ্লিষ্ট বিষয়