1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

মরগানের ‘না', তবু সফর বাতিলের শঙ্কা নেই বাংলাদেশের

ইংল্যান্ডের সীমিত ওভারের অধিনায়ক এয়োইন মরগান বাংলাদেশ সফর থেকে নিজেকে সরিয়ে নেয়ার আভাস দিয়েছেন৷ বলেছেন, এই অঞ্চলে অতীতের দু'টি ঘটনা তাঁকে খুব ভাবাচ্ছে৷ টুইটারে অবশ্য তাঁর এ সিদ্ধান্তের সমালোচনা করেছেন অনেকেই৷

default

২০১৫ ওয়ানডে বিশ্বকাপ থেকে ইংল্যান্ডকে বিদায় করার পর বাংলাদেশ দলের উল্লাস (ফাইল ফটো)

মরগান আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমকে বলেন, ‘‘বেঙ্গালুরুতে ২০১০ সালে আইপিএল ম্যাচ খেলার সময় বাইরে বোমা বিস্ফোরণ হয়েছিল৷ সে সময় আমি দ্রুত বিমানবন্দরে চলে যাই৷ তারপর বাংলাদেশে যখন খেলতে যাই, তখন সেখানে নির্বাচনি সহিংসতা ছিল ভয়াবহ৷''

মরগান জানান, ‘‘আমি এ সব জায়গায় আগেও গেছি৷ কিন্তু ঐ দু'টি ঘটনা আমাকে বিক্ষিপ্ত করে দিয়েছিল৷ তাই তখনই ঠিক করেছিলাম যে, এ রকম পরিস্থিতিতে আর নিজেকে ফেলতে চাই না৷''

সফর নিয়ে বাকিদের নেতিবাচক চিন্তার ব্যাপারে মরগান বলেন, ‘‘এখানে খুব বেশি প্রত্যাশা রাখা ঠিক হবে না৷ কারণ দলে অনেকেই আছে, যারা এ রকম পরিস্থিতে প্রথমবার সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছে৷''

মরগান যা-ই বলুন না কেন, বাংলাদেশ সফরে আসার সিদ্ধান্ত নিতে আগামী শনিবার পর্যন্ত সময় পাচ্ছে ইংলিশ ক্রিকেটাররা৷ ইতোমধ্যেই ইংল্যান্ডের টিম ডিরেক্টার অ্যান্ড্রু স্ট্রস সব ক্রিকেটারকে সফরে যাওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন বলে খবর৷ শনিবারের পরই স্কোয়াড ঘোষণা করবে ইসিবি৷

এদিকে টুইটারে মরগানের সমালোচনা করে ব্রিটিশ সাংবাদিক পিয়ার্স লিখেছেন, ‘‘নাটক ছাড়ো৷ হয় বাংলাদেশে যাও, নয়ত অধিনায়কত্ব ছাড়ো৷''

অডিও শুনুন 00:37

‘আমরা মরগানের কথার গুরুত্ব দিচ্ছি না’

আহমেদ সাইফ জিদান নামে একজনের কথায়, ‘‘টাইগাররা তোমাকে কামড় দেবে না৷ তুমি একজন অধিনায়কের মতো আচরণ করো৷''

মরগানের নেতিবাচক ভাবনার প্রতিক্রিয়ায় বাংলাদেশের ক্রিকেট বোর্ড বা বিসিবি-র মিডিয়া কমিটির চেয়ারম্যান জালাল ইউনূস ডয়চে ভেলেকে বলেন, ‘‘আমরা নিরপত্তার জন্য গত একমাস কী করেছি, তা সবাই জানে৷ তাই তা নিয়ে নতুন করে কিছু বলার নেই৷ তাছাড়া মরগান কী বলছে, তার প্রতিক্রিয়া আমরা দেবো না৷ মরগানের কথার গুরুত্ব দিচ্ছি না আমরা৷''

জালাল ইউনূস জানান, ইংল্যান্ড দলের সফর চূড়ান্ত হবে না৷ তারপরও ‘‘আমরা অপেক্ষা করছি ইসিবি এখন কী করে – সেটা দেখার জন্য৷'' তাঁর কথায়, ‘‘মরগান কী বললেন তা দেখার দায়িত্ব ইসিবি-র, আমাদের নয়৷''

অডিও শুনুন 01:23

‘নিরাপত্তা নিয়ে মরগানের প্রশ্ন তোলাটা দুঃখজনক’

বাংলাদেশের সংবাদমাধ্যমকে তিনি বলেন, ‘‘কে আসবে বা কে আসবে না – সেটা আমাদের ভাবার বিষয় নয়৷ তবে আশা করি ইসিবি তাদের পূর্ণশক্তির দলই পাঠাবে৷ আমরা সর্বোচ্চ নিরাপত্তার আশ্বাসটাই দিয়েছি৷ এরপরও কোনো ক্রিকেটারের না আসাটা দুর্ভাগ্যজনক৷''

বাংলাদেশের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়ে চিন্তিত ইংল্যান্ডের ক্রিকেট সমর্থক দল ‘বার্মি আর্মি'-র প্রতিষ্ঠাতা পল বার্নহ্যামও৷ তিনি বলেন, ‘‘আমার চেনা কয়েকজন এর মধ্যেই ঘটনাস্থলে যাওয়ার ব্যবস্থা করে ফেলেছে৷ এখন শুধু ফ্লাইটের জন্য অপেক্ষা৷ সুতরাং এই মুহূর্তে আমার পরামর্শ থাকবে, কেউ যেন অফেরতযোগ্য কোনো টিকিট না কেনে কিংবা থাকার জায়গা ঠিক না করে৷''

এ নিয়ে বাংলাদেশের ক্রীড়া সাংবাদিক এবং ক্রীড়া লেখক রায়হান মাহমুদ ডয়চে ভেলেকে বলেন, ‘‘ইংলিশ ক্রিকেট বোর্ড-এর টিম ঢাকায় এসে নিরাপত্তা ব্যবস্থা দেখে তারপর সফরের সূচি চূড়ান্ত করেছে৷ তাই এখন যদি মরগান নিরপত্তার প্রশ্ন তোলেন, তা দুঃখজনক৷ এটা করে মরগান ইংলিশ ক্রিকেট বোর্ডকে অসম্মান করছেন৷''

অন্য একটি প্রশ্নের জবাবে রায়হান বলেন, ‘‘খেলোয়াড়রা বাংলাদেশে আসা, না আসার ব্যাপারে স্বাধীন সিদ্ধান্ত নেবেন৷ এটা ইংলিশ ক্রিকেট বোর্ড আগেই জানিয়েছে৷ তবে তারা এ-ও নিশ্চিত করেছে যে, বাংলাদেশে একটি শক্তিশালী ক্রিকেট টিম পাঠাবে তাঁরা৷ আমি মনে করি, মরগানের কারণে এই সফর বাধাগ্রস্ত হবে না৷''

প্রসঙ্গত, ৩০শে সেপ্টেম্বর দ্বিপাক্ষিক সিরিজে ইংল্যান্ড দলের বাংলাদেশে আসার কথা৷

আপনার কী মনে হয়? ইংল্যান্ড দল কি বাংলাদেশে আসবে? লিখুন নীচের ঘরে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

এই বিষয়ে অডিও এবং ভিডিও

সংশ্লিষ্ট বিষয়