1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিজ্ঞান পরিবেশ

বাচ্চাদের পোশাকে বিষাক্ত রাসায়নিক পদার্থ

পরিবেশবাদী সংগঠন গ্রিনপিস বাচ্চাদের তৈরি পোশাকে বিপজ্জনক রাসায়নিক পদার্থ খুঁজে পেয়েছে৷ এতে রয়েছে বিভিন্ন দামের জামাকাপড়৷ এ সব বিষাক্ত দ্রব্য ও তার ক্ষতিকর প্রভাব নিয়ে গবেষণা করছেন বিশেষজ্ঞরা৷

গ্রিনপিসের সদস্যরা পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য বাচ্চাদের ৮২টি জামাকাপড় কেনেন৷ এ জন্য সংগঠনের কর্মীরা ২৫ দেশের বিভিন্ন দোকানে যান৷ এর মধ্যে ১২টি নামি কোম্পানিও ছিল৷

কিছু রাসায়নিক পদার্থের অস্তিত্ব খুঁজে পাওয়া গিয়েছে

ল্যাবরেটরির পরীক্ষার ফলাফলে পরিবেশরক্ষাকারীরা কিছু রাসায়নিক পদার্থের অস্তিত্ব খুঁজে পেয়েছেন৷ ‘‘বিষাক্ত পদার্থের বিশেষজ্ঞরা অবশ্য মনে করেন, পোশাক-আশাকে যে পরিমাণ বিষাক্ত রাসায়নিক বস্তু পাওয়া গিয়েছে, তা সাথে সাথে ভীষণ কোনো ঝুঁকি বয়ে আনে না৷'' জানান গ্রিনপিসের মানফ্রেড সামটেন ডয়চে ভেলের সঙ্গে এক সাক্ষাৎকারে৷

Chemikalien in Kinderkleidung

গ্রিনপিসের গবেষণাগারে পরীক্ষা চলছে

তবে মা-বাবাকে বাচ্চাদের জামাকাপড় কেনার ব্যাপারে সতর্ক থাকার পরামর্শ দেন তিনি৷ বিষাক্ত পদার্থ আজকাল সব কাপড়চোপড় তৈরিতেই ব্যবহার করা হয়৷

অবশ্য যারা পোশাক তৈরি করেন তাঁদের জন্য বিপদটা বেশি৷ রঙ, বুনন ও সেলাইয়ের কারখানাগুলির শ্রমিকদের প্রতিদিন এই সব বিষাক্ত পদার্থের সংস্পর্শে আসতে হয়৷ তাঁদের এ ক্ষেত্রে বেশি সতর্ক থাকা উচিত৷

কেনা পোশাকগুলিতে যে সব রাসায়নিক দ্রব্য ব্যবহার করা হয়েছে, তার কয়েকটি নিয়ে পরীক্ষা নিরীক্ষা করেছে গ্রিনপিস৷

কয়েকটি দৃষ্টান্ত:

ফেথালেটিস বা ফেথালিক অ্যাসিড-এর কথাই ধরা যাক৷ এই পদার্থ প্লাস্টিক নরম করার কাজে ব্যবহার করা হয়৷ এর ফলে দেহে হরমোনের ভারসাম্য নষ্ট হতে পারে৷ প্রজনন ক্ষমতা ক্ষতিগ্রস্ত করতে পারে৷ জন্মগত ত্রুটিবিচ্যুতি দেখা দিতে পারে৷ স্তন ক্যানসারের ঝুঁকিও বাড়তে পারে৷ প্রাকৃতিক বা জৈবিক উপায় এটি কমে যেতে পারে৷ কিন্তু এজন্য এত দীর্ঘ সময় লাগে যে, ততদিনে এই পদার্থ শরীর শোষণ করে নেয়৷

Chemikalien in Kinderkleidung

চীনের একটি কারখানায় বাচ্চাদের পোশাক তৈরি হচ্ছে

আছে ননাইলফেনল এথক্সিলেটেস বা এনপিই নামের পদার্থ৷ এই পদার্থ দিয়ে কাপড়চোপড় রং করার পর ধোয়া হয়৷ এটিও হরমোন সিস্টেমকে উল্টাপাল্টা করে দিতে পারে৷ এই দ্রব্যকে জৈবিক উপায়ে দূর করা যায় না৷ এটি জীবিত অর্গানিজমের টিসুতে ঢুকতে পারে৷ জলাশয়ের জীবজন্তুর জন্য এই পদার্থ অত্যন্ত ক্ষতিকর৷ এশিয়ায় বিষয়টিকে উপেক্ষা করা হলেও ইউরোপের নর্দমার পানিতে যাতে এই পদার্থ না ঢোকে সেদিকে সতর্ক দৃষ্টি রাখা হয়৷ এ জন্য বিশেষ নীতিমালাও রয়েছে৷

কিন্তু ওয়াশিং মেশিনে কাপড়চোপড় ধোয়া হলে ময়লা পানির সঙ্গে এই বিষাক্ত পদার্থও নর্দমায় ঢুকে পড়ে৷

রেনকোটজুতাতে এই পদার্থের অস্তিত্ব

পিএফসি জাতীয় রাসায়নিক পদার্থও বেশ বিপজ্জনক৷ রেনকোট ও জুতাতে পাওয়া গিয়েছে এই পদার্থ৷ এমনকি সাঁতারের পোশাকেও এই দ্রব্যের অস্তিত্ব খুঁজে পেয়েছে গ্রিনপিস৷ ‘‘হয়তো বা এই পোশাকে মানুষ তাড়াতাড়ি সাঁতার কাটতে পারে৷'' বলেন সানটেন৷

পিএফসি অর্গানিজমে ঢুকতে পারে৷ দীর্ঘদিন টিকে থাকতে পারে৷ সারা বিশ্বে বিস্তৃতও হতে পারে৷ মেরু ভালুক ও পেঙ্গুইনের যকৃতে এই পদার্থের অস্তিত্ব পাওয়া গিয়েছে৷ অর্থাৎ উত্তর ও দক্ষিণ মেরু পর্যন্ত ছড়িয়েছে এটি, বলেন সানটেন৷ পরিবেশের ওপর এর কী ধরনের প্রভাব পড়তে পারে, তার সবকিছু এখনও জানা যায়নি৷ পরিবেশবাদীরা মনে করেন, এর ফলে ক্যানসার ও কিডনির অসুখ বিসুখ হতে পারে৷

ইউরোপীয় ইউনিয়ন বাচ্চাদের খেলনায় রাসায়নিক দ্রব্যের ব্যবহারের ক্ষেত্রে কঠোর নীতিমালা জারি করেছে৷ অবশ্য বাচ্চাদের পোশাকের ক্ষেত্রে এই আইন প্রযোজ্য নয়৷

গ্রিনপিসের রিপোর্টের প্রতিক্রিয়ায় সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানগুলি জানিয়েছে তাদের পণ্যে উল্লিখিত দ্রব্যের পরিমাণ এত কম থাকে যে স্বাস্থ্যের জন্য তা ক্ষতিকর নয়৷ অন্যান্য প্রতিষ্ঠান বিষয়টি নিয়ে চিন্তাভাবনা করবে বলে জানিয়েছে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়