1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

জার্মানি

জার্মানির স্কুলে ব্যাপক যৌন নিপীড়নের অভিযোগ

৩৩ বছর ধরে ছাত্রদের ওপর যৌন নিপীড়ন চালিয়েছেন এক শিক্ষক৷ চার বছরের কারাদণ্ড হয়েছিল তার৷ কিন্তু দু'বছর পরই মারা যান নিপীড়ক ঐ শিক্ষক৷ তার মৃত্যুর আট বছর পর উঠে আসছে আরো অভিযোগ৷ এ নিয়ে জার্মানিতে চলছে তোলপাড়৷

জার্মানির হেসে রাজ্যের একটি স্কুলে ব্যাপক যৌন নিপীড়নের ঘটনা ঘটেছে৷ এক তদন্ত প্রতিবেদনেই বেরিয়ে এসেছে এ তথ্য৷ জানা গেছে, এলি-হয়েস-ক্নাপ-শুলে নামের ঐ স্কুলটিতে অন্তত ৩৫টি যৌন নিপীড়নের ঘটনা ঘটেছিল৷ নিপীড়নের সব শিকারই ছাত্র৷ এবং নিপীড়ক শিক্ষক৷ বিষয়টি জানাজানি হওয়ার পর থেকে স্কুলটির অবস্থা ক্রমশ খারাপ হচ্ছে৷ ছাত্র-ছাত্রী কমছে৷ ডার্মস্টাটের এ স্কুলের ভবিষ্যৎ নিয়েই দেখা দিয়েছে সংশয়৷

একই অবস্থা হয়েছিল ডার্মস্টাটের আরেক স্কুল ওডেনভাল্ডশুলে'র৷ ২০০৫ সালে সেই স্কুলের এক শিক্ষকের চার বছরের কারাদণ্ড হয়৷ আনুমানিক ১৩০ জন ছাত্রের ওপর যৌন নিপীড়ন চালিয়েছিলেন তিনি৷ নিপীড়ন চলে ১৯৬১ থেকে ১৯৯৪ পর্যন্ত প্রায় ৩৩ বছর ধরে৷

Odenwaldschule

এমন কেলেঙ্কারির পর স্কুলটি আর টিকতে পারেনি

এ সময়ের মধ্য অনেক ছাত্রই স্কুল কর্তৃপক্ষ এবং বাবা-মায়ের কাছে শিক্ষকের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছে৷ কিন্তু কেউ বিশ্বাস করেনি৷ অবশেষে সুনির্দিষ্ট অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় নিপীড়ক শিক্ষকের চার বছরের কারাদণ্ড হয়েছিল ঠিকই, কিন্তু দু'বছর কারাভোগের পরই তিনি মারা যান৷ এমন কেলেঙ্কারির পর স্কুলটি আর টিকতে পারেনি৷ ছাত্র-ছাত্রী ভর্তির হার কমতে কমতে একটা সময় এমন পর্যায়ে পৌঁছায় যে, শেষ পর্যন্ত বন্ধ করে দিতে হয় স্কুলটি৷

অবশ্য কর্তৃপক্ষ ইতিমধ্যে নিপীড়ন বন্ধে কঠোর পদক্ষেপ নিতে শুরু করেছে৷ রাজ্যের শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, যেসব শিক্ষার্থী নিপীড়নের শিকার হয়েছে, ‘প্রতীকী ক্ষতিপূরণ' হিসেবে তাদের মাথাপিছু ১০ হাজার ইউরো করে দেয়া হবে৷ ধারণা করা হচ্ছে, এলি-হয়েস-ক্নাপ-শুলে'র আরো অনেক শিক্ষার্থীই এখন তাদের ওপর শিক্ষকের যৌন নিপীড়নের অভিযোগ নিয়ে এগিয়ে আসবে৷

এসিবি/ডিজি (ডিপিএ, ইপিডি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়