1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

এবার কি লক্ষ্য পূরণ হবে?

আবারো বসছে জলবায়ু সম্মেলন৷ এবারের স্থান প্যারিস৷ দেখার বিষয় এবারের সম্মেলনে কার্বন গ্যাস নিঃসরণ কমাতে বিশ্ব নেতারা কোন চুক্তিতে পৌঁছাতে পারেন কিনা৷

নভেম্বরের শেষে প্যারিসে শুরু হবে জলবায়ু সম্মেলন৷ জলবায়ু পরিবর্তন রোধে পদক্ষেপ নিতে বেশ দেরি করে ফেলছেন বিশ্ব নেতারা৷ তাই এবার চাপ থাকবে এ বিষয়ে চুক্তিতে পৌঁছানোর বিষয়টি নিয়ে৷ বৈশ্বিক উষ্ণতা ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস কমানোর ব্যাপারে তারা যাতে একমত হতে পারেন সে চেষ্টাই করা হবে৷

মার্চে বিশ্বে প্রতি মাসে গড়ে কার্বন নিঃসরণ হয়েছে প্রতি মিলিয়নে...৷ বিশ্বের ইতিহাসে এটাই সর্বোচ্চ৷ এর আগে এমনটা দেখা যায়নি৷ কয়লা, তেল ও গ্যাস পোড়ানোর ফলে যে কার্বন নিঃসরণ হয় সেটা বিশ্বের তাপমাত্রা বৃদ্ধিতে ভূমিকা রাখে৷

জুনে জার্মানির বৈঠক

জার্মানির বন শহরে জাতিসংঘের ক্লাইমেট সেক্রেটারিয়েট ইউএনএফসিসিসি প্যারিস বৈঠকে কোন কোন বিষয় গুরুত্ব পাবে তা নিয়ে কাজ করছে৷ সরকারের প্রতিনিধিদের সাথে এ বিষয় নিয়ে তারা আলোচনায় বসবেন জুন মাসের প্রথম সপ্তাহে৷ অন্যদিকে, চলতি সপ্তাহে বার্লিনে পিটার্সবার্গ ক্লাইমেট ডায়ালগের উদ্বোধনী আলোচকের ভূমিকায় ছিলেন জার্মান চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেল৷

জলবায়ু সম্মেলনকে সামনে রেখে প্যারিসে শুরু হয়েছে প্যারিস আলোচনার আর দুইশ দিন' উদযাপন৷ এখানে বিভিন্ন দেশের ব্যবসায়ী প্রতিনিধিরা অংশ নিচ্ছেন৷

ডি-কার্বোনাইজেশন: দীর্ঘমেয়াদী লক্ষ্য

এক যৌথ বিবৃতি ম্যার্কেল ও ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ফ্রঁসোয়া ওলঁদ বলেছেন, জাতিসংঘের অন্যান্য সদস্য দেশগুলো কার্বন নিঃসরণ কমানোর ব্যাপারে একমত হবে৷ এর অর্থ হলো এই দেশগুলো তেল, গ্যাস ও কয়লা পোড়ানো থেকে পিছু হঠবে৷ তিনি কোল লেভি-র প্রতি সমর্থন জানান৷ বলেন, এটি জার্মানির সফট-কোল-বার্নিং চুল্লি৷ তবে তিনি এও বলেন, জলবায়ু পরিবর্তন রোধে লক্ষ্য পূরণে লেভি মেকানিজম অন্যতম পন্থা হতে পারে৷

ওয়ার্ল্ড রিসোর্স ইনস্টিটিউটের ক্লাইমেট পোগ্রামের গ্লোবাল ডিরেক্টর জেনিফার মর্গান ডয়চে ভেলেকে বলেছেন, ‘‘বিশ্বের বড় বড় শিল্প প্রতিষ্ঠানই এই লক্ষ্য পূরণে সবচেয়ে বড় ভূমিকা রাখতে পারেন৷'' তিনি এও বলেন, ‘‘দেশগুলোর প্রতিনিধিদের অঙ্গীকার এবং করণীয়-এই দুটো বিষয়ের মধ্যে বিস্তর ব্যবধান রয়েছে৷ প্যারিসে এই ব্যবধান কমানোর চেষ্টা করা হবে৷''

ইতিবাচক পদক্ষেপ

চীন ও যুক্তরাষ্ট্র বিশ্বে সবচেয়ে বেশি কার্বন নিঃসরণকারী দেশগুলোর মধ্যে অন্যতম৷ ২০২৫ সাল থেকে তারা কার্বন নিঃসরণের লক্ষ্যমাত্রা পূরণে কাজ করবে৷ গ্রিন হাউস গ্যাস নির্গমনকারী দেশগুলোর মধ্যে ভারত সবচেয়ে এগিয়ে আছে৷ সম্প্রতি চীন সফরে গিয়ে ভারতের প্রধানমন্ত্রী চীনের প্রধানমন্ত্রীর সাথে বৈঠকের পর ধনী দেশগুলোকে কার্বন নিঃসরণ কমানোর আহ্বান জানিয়েছেন৷

বিকল্প নেই

ফ্রান্সের পররাষ্ট্র মন্ত্রী লোরঁ ফাবিউস প্যারিস জলবায়ু সম্মেলনের সভাপতিত্ব করবেন৷ তিনি বলেছেন, ‘‘বার্লিনের পিটার্সবার্গ আলোচনায় অনেক দেশই ডি-কার্বোনাইজেশনের ব্যাপারে একমত হয়েছে৷ প্যারিস সম্মেলনে মূল বিষয় হবে বৈশ্বিক তাপমাত্রা ১.৫ ডিগ্রি থেকে ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস কমানোর বিষয়টিতে সবচেয়ে জোর দেয়া হবে৷''

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়