1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিজ্ঞান পরিবেশ

উন্নয়নশীল দেশের ২০ কোটি মানুষ দূষণের ঝুঁকিতে

মানব আচরণের কারণে নানাভাবে দূষিত হচ্ছে পরিবেশ৷ যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক একটি গবেষণা প্রতিষ্ঠান সোমবার একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে, যেখানে সবচেয়ে দূষিত ১০টি স্থানের তালিকায় রয়েছে বাংলাদেশও৷

যুক্তরাষ্ট্রের পরিবেশ পর্যবেক্ষক গ্রুপ ব্ল্যাকস্মিথ ইনস্টিটিউট সোমবার উন্নয়নশীল দেশগুলোর পরিবেশ দূষণ নিয়ে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে৷ প্রতিষ্ঠানটির প্রধান রিচার্ড ফুলার বলেছেন, উন্নয়নশীল দেশগুলোর অন্তত ২০ কোটি মানুষ দূষণের কারণে স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে রয়েছে৷ এই প্রতিষ্ঠান এবং গ্রিন ক্রস সুইজারল্যান্ডের গবেষকরা বিশ্বের সবচেয়ে দূষিত ১০টি স্থানের একটি নতুন তালিকা বের করেছে৷ এর আগে ২০০৭ সালে তারা প্রথম এই তালিকা প্রকাশ করেছিল৷

৪৯টি দেশের প্রায় দুই হাজার স্থান থেকে তথ্য সংগ্রহ করে এই সিদ্ধান্তে পৌঁছেছে তারা৷ তালিকায় আছে বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকায় অবস্থিত হাজারিবাগের নাম৷ প্রতিবেদনে বলা হয়েছে যে, সেখানে দেশের সবচেয়ে বেশি চামড়া কারখানা রয়েছে৷ প্রতিদিন ২৭০টি কারখানা থেকে ২২ হাজার ঘন লিটার দূষিত আবর্জনা বের হয় হাজারিবাগে৷ এই আবর্জনায় হেক্সাভ্যালেন্ট ক্রোমিয়াম রয়েছে, যার কারণে ক্যানসার হতে পারে৷ অথচ এই সব বর্জ্যই ঢাকার প্রধান নদী বুড়িগঙ্গায় গিয়ে মেশে৷

তালিকায় অন্যতম দূষিত এলাকা হিসেবে ঘানার রাজধানী আকরার আগবোগব্লোশির নাম উল্লেখ করা হয়েছে৷ প্রতিবছর ইউরোপের পশ্চিমাঞ্চল থেকে ঘানা ২ লাখ ১৫ হাজার টন ইলেকট্রনিক পণ্য আমদানি করে৷ ধারণা করা হচ্ছে, ২০২০ সাল নাগাদ এই আমদানির পরিমাণ দ্বিগুণ হবে৷ এসব ইলেকট্রনিক থেকে যেসব আবর্জনা হয়, সেগুলোকে বলা হয় ‘ই-ওয়েস্ট'৷ এগুলো পোড়ালে বিষাক্ত গ্যাস বের হয়৷ কেননা, বেশিরভাগ বৈদ্যুতিক তারের মধ্যে তামা এবং সিসা থাকে৷

প্রতিবেদনে বলা হয়, আগবোগব্লোশির আশেপাশের মাটি পরীক্ষা করে দেখা গেছে যে, মাটিতে বিষাক্ত পদার্থের মাত্রা স্বাভাবিকের চেয়ে ৪৫ গুণ বেশি৷ সোমবার সংবাদ সম্মেলনে ব্ল্যাকস্মিথ ইনস্টিটিউটের গবেষণা পরিচালক জ্যাক ক্যারাভান্স বলেন, ই-ওয়েস্ট আসলেই একটা বড় চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছে৷ কেননা নতুন প্রজন্মের আগ্রহ এখন আধুনিক যন্ত্রপাতির প্রতি৷

এই তালিকায় নতুন যুক্ত হয়েছে ইন্দোনেশিয়ার পশ্চিম জাভায় অবস্থিত সীতারাম নদীর বেসিন৷ সেখানে ৯০ লাখ মানুষের পাশাপাশি দুই হাজার কারখানা রয়েছে৷ নদীতে কারখানা ও মানুষের বর্জ্যের কারণে দূষণের মাত্রা ব্যাপকভাবে বেড়েছে৷ অ্যালুমিনিয়াম আর ম্যাঙ্গানিজের মাত্রা সেখানে অত্যন্ত বেশি৷ রিপোর্টটি বলছে, সেখানে খাবার পানি পরীক্ষা করে দেখা গেছে যে, তাতে সিসার মাত্রা স্বাভাবিকের চেয়ে এক হাজার গুণ বেশি৷

এছাড়া তালিকায় আছে, নাইজার নদী এবং আর্জেন্টিনার মাতানজা-রিয়াচুয়েলো নদী৷ ইউক্রেনের চেরনোবিল আর জাম্বিয়ার খনির শহর বলে প্রসিদ্ধ কাবওয়ে-ও রয়েছে এই তালিকায়৷ তবে ২০০৭ সালের দূষিত দেশের তালিকায় থাকা চীন ও ভারত এবারের তালিকায় নেই৷

এপিবি/ডিজি (এএফপি/এপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়