৮৫ কেজি ওজনের শিশু কুস্তিগীরের কঠিন জীবন | সমাজ সংস্কৃতি | DW | 19.01.2021
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

জাপান

৮৫ কেজি ওজনের শিশু কুস্তিগীরের কঠিন জীবন

১০ বছর বয়সি ৮৫ কেজি ওজনের শিশু কিউটার স্বপ্ন সুমো কুস্তিতে ইউকোজুনা হওয়া, অর্থাৎ সর্বোচ্চ ব়্যাঙ্কিংয়ে পৌঁছানো৷ ইতিমধ্যে অনূর্ধ্ব ১০-এ বিশ্ব চ্যাম্পিয়ান হয়েছে সে৷

জাপানের সুমো কুস্তিগীর কিউটা ১০ বছর বয়সে যেমন সমবয়সিদের চেয়ে ওজনে দ্বিগুণ, শক্তিতেও তেমনি৷ গত বছর অনূর্ধ্ব ১০-এর বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপে ব্রিটেন এবং ইউক্রেনের প্রতিযোগীদেরও হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করে৷

Japan Sumo Ringer Nachwuchs

কিউটা ১০ বছর বয়সেই সমবয়সিদের চেয়ে ওজনে দ্বিগুণ৷

কিউটা কিন্ডার গার্টেনে থাকা অবস্থাতেই তার বাবার আগ্রহে সুমো টুর্নামেন্টে অংশ নেয়৷ বাবা সাবেক অপেশাদার সুমো খেলোয়াড় তাইসুক তার ছেলে সম্পর্কে বলেন, ‘‘কিউটা নিজে থেকেই এসব করতে পারে, ওর ভেতরে প্রতিভা রয়েছে তাই সে টুর্নামেটে জিতেছে৷ কিউটা আসলে কথা কম বলা লাজুক ধরনের একটি ছেলে৷ তবে ওর চেয়ে বড় বয়সিদের সাথে কুস্তি করে, বড়দের হারিয়ে ভীষণ মজা পায় সে৷’’ বাবা সপ্তাহে ছয়দিন ছেলেকে কঠিন প্রশিক্ষণ দেন৷ কুস্তির সময় বাবা ছেলেকে এমন শক্ত করে চেপে ধরেন যে ১০ বছর বয়সি ছেলের নিঃশ্বাস নিতে কষ্ট হয় এবং সে কান্নকাটি করে৷ তারপরও বাবা মনে করেন, ছেলের ভেতর থেকে পুরোটা বের করে আনার এটাই একমাত্র উপায়৷  তাছাড়া সুমো কুস্তির সর্বোচ্চ লক্ষ্যে পৌঁছুতে কিউটা নিয়মিত সাঁতার কাটে এবং অনুশীলন করে থাকে৷ 

ছেলের প্রতিভার পুরোপুরি বিকাশের জন্য পরিবারের সবাইকে নিয়ে চলে যান ফুকাগাওয়া অঞ্চলে৷ টোকিওর ওই অঞ্চলে সুমোর ঈশ্বর বাস করেন বলে অনেকের বিশ্বাস৷ সুমো কুস্তিগীর তৈরির বিখ্যাত অনেক ক্লাব রয়েছে সেখানে৷

 কিউটা দিনে গড়ে এক লিটারেরও বেশি দুধ পান করে এবং প্রচুর প্রোটিনসহ দিনে ২,৭০০ থেকে ৪,০০০ ক্যালোরি গ্রহণ করে থাকে৷ মাংসের স্টেক তার প্রিয় খাবার৷  

এনএস/এসিবি (রয়টার্স)

২০১৭ সালের ছবিঘরটি দেখুন...

নির্বাচিত প্রতিবেদন

বিজ্ঞাপন