৩ জঙ্গি নেতার খবর দিলেই ১১ মিলিয়ন ডলার! | বিশ্ব | DW | 09.03.2018
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

পাকিস্তান

৩ জঙ্গি নেতার খবর দিলেই ১১ মিলিয়ন ডলার!

তিন জঙ্গি নেতার জন্য মোট ১১ মিলিয়ন ডলারের পুরস্কার ঘোষণা করেছে যুক্তরাষ্ট্র৷ পাকিস্তানি তালেবানের শীর্ষ নেতা মোল্লা ফজলুল্লাহ'র জন্য ৫ মিলিয়ন এবং অন্য দুই জঙ্গি নেতার জন্য ৬ মিলিয়ন ডলার পুরস্কার ঘোষণা করেছে দেশটি৷

যুক্তরাষ্ট্র এবং আফগানিস্তান মনে করে পাকিস্তান জঙ্গিদের মদতদাতা৷ এ অভিযোগ পরিষ্কার ভাষাতেই তুলে আসছে দেশ দু'টি৷ অন্যদিকে এ অভিযোগ বরাবরই অস্বীকার করে আসছে পাকিস্তান৷ তবে বিষয়টি এখন আর অভিযোগ উত্থাপন এবং অভিযোগ অস্বীকারের পর্যায়ে থেমে নেই৷

ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রেসিডেন্ট হবার পর পাকিস্তানের বিষয়ে কঠোর অবস্থান নিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র৷ গত জানুয়ারিতে আফগান তালিবান এবং হাক্কানি নেটওয়ার্কের বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনা করতে এবং তাদের নিয়ন্ত্রণ করতে ব্যর্থ হয়েছে পাকিস্তান – এই অভিযোগে ২ বিলিয়ন ডলারের সামরিক সহায়তা প্রত্যাহার করে নেয় ট্রাম্প প্রশাসন৷

বৃহস্পতিবার এলো নতুন ঘোষণা৷ এবার তিন জঙ্গি নেতাকে ধরার জন্য মোট ১১ মিলিয়ন ডলারের পুরস্কার ঘোষণা করলো যুক্তরাষ্ট্রের স্টেট ডিপার্টমেন্ট৷ স্টেট ডিপার্টমেন্টের ঘোষণায় বলা হয়, মোল্লা ফজলুল্লাহ'র অবস্থান সম্পর্কে জানাতে পারলে দেয়া হবে ৫ মিলিয়ন ডলার আর আব্দুল ওয়ালি ও মঙ্গল বাগ সম্পর্কে জানাতে পারলে প্রত্যেকের জন্য ৩ মিলিয়ন করে মোট ৬ মিলিয়ন ডলার দেয়া হবে৷ মোল্লা ফজলুল্লাহ তেহরিক-ই-তালিবান পাকিস্তান (টিটিপি)-র শীর্ষ নেতা৷ আব্দুল ওয়ালি তেহরিক-ই-তালিবান পাকিস্তানেরই সহযোগী সংগঠন জামাত-উল আহরারের নেতা৷ মঙ্গল বাগের নেতৃত্বাধীন সংগঠনের নাম লস্কর-ই ইসলাম৷ তিনটি সংগঠনের বিরুদ্ধেই সহিংশতার অভিযোগ রয়েছে৷

পাকিস্তানে সর্বশেষ বড় জঙ্গি হামলাটি হয়েছিল ২০১৪ সালে৷ সেবার এক সেনাবাহিনী স্কুলে হামলা চালিয়ে ১৩২ জন শিশুকে হত্যা করা হয়৷ তারপর থেকে খুব বড় হামলা না হলেও একেবারে জঙ্গিহামলামুক্ত হতে পারেনি পাকিস্তান৷ এখনো প্রায়ই আসে ছোটখাটো হামলার খবর৷

যুক্তরাষ্ট্র মনে করে, মোল্লা ফজলুল্লাহ, আব্দুল ওয়ালি এবং মঙ্গল বাগ পাকিস্তান এবং যুক্তরাষ্টের জনগণের জন্য হুমকিস্বরূপ৷ সেকারণেই বৃহস্পতিবারের এই পুরস্কার ঘোষণা৷

মোল্লা ফজলুল্লাহ'র তেহরিক-ই তালিবান পাকিস্তান দেশের বাইরেও সক্রিয়৷ ২০১০ সালে নিউ ইয়র্কের টাইম স্কোয়ারে ব্যর্থ হামলা চেষ্টার দায়িত্ব স্বীকার করেছিল তারা৷ আব্দুল ওয়ালির জামাত-উল আহরার'এর এখনো পাকিস্তানের বাইরে হামলা চালানোর রেকর্ড নেই৷ তবে পাকিস্তানে প্রায়ই তারা হামলা চালায়৷ ২০১৬ সালে পেশোয়ারে যুক্তরাষ্ট্রের কনসুলেটে হামলা চালিয়ে দু'জনকে হত্যা করেছিল তারা৷ মঙ্গল বাগের সংগঠন সাম্প্রতিক সময়েও ন্যাটোর সরবরাহ বহরের ওপর হামলা চালিয়েছে৷

এসিবি/ডিজি (রয়টার্স)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন