১৫ অক্টোবর থেকে স্কুল-কলেজ খুলতে পারে ভারতে | বিশ্ব | DW | 01.10.2020
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

ভারত

১৫ অক্টোবর থেকে স্কুল-কলেজ খুলতে পারে ভারতে

ভারতে স্কুল-কলেজ খোলার অনুমতি দিয়ে দিল কেন্দ্রীয় সরকার। খুলে গেল সিনেমা হলও।

দেশে স্কুল-কলেজ খোলার অনুমতি দিয়ে দিল কেন্দ্রীয় সরকার। ১৫ অক্টোবর থেকে স্কুল-কলেজ খোলা যাবে। তবে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবে রাজ্য এবং স্কুল কর্তৃপক্ষ। ছাত্রছাত্রীদের জোর করে স্কুলে আনা যাবে না বলেও জানিয়ে দিয়েছে সরকার। অন্য দিকে, বৃহস্পতিবার থেকেই দেশ জুড়ে খুলে যাচ্ছে সিনেমা হল, মাল্টিপ্লেক্স, থিয়েটার, প্রদর্শশালা। তবে সর্বত্রই প্রেক্ষাগৃহের মোট আয়তনের অর্ধেক পূর্ণ করা যাবে। বাকি ৫০ শতাংশ জায়গা ফাঁকা রাখতে হবে। বুধবারই আনলক পাঁচ ঘোষণা করেছে সরকার। সেখানেই এই নতুন নিয়মের কথা জানানো হয়েছে। তবে সরকারের সিদ্ধান্ত নিয়ে বিভিন্ন রাজ্যে বিতর্ক শুরু হয়েছে। বিশেষ করে স্কুল-কলেজ খোলার সিদ্ধান্তে রীতিমতো ক্ষোভ প্রকাশ করছেন অনেকে।

গত মার্চ মাস থেকে ভারতের সমস্ত স্কুল-কলেজ বন্ধ। সকলেই অনলাইনে ক্লাস নিচ্ছে। চলছে ই-লার্নিং। যে সময় লকডাউন হয়েছিল, তখন ভারতে দৈনিক সংক্রমণের পরিমাণ ছিল এক হাজারের ভিতর। প্রায় দেড় মাস টানা লকডাউন চলার পরে মে মাস থেকে ধীরে ধীরে লকডাউন শিথিল হতে শুরু করে। জুন মাস থেকে করোনার সংক্রমণ লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়তে শুরু করে। বুধবারও ভারতে এক দিনে সংক্রমিত হয়েছেন প্রায় ৮০ হাজার মানুষ। কিন্তু নতুন করে লকডাউন আর ঘোষণা করা হয়নি। বরং, ধাপে ধাপে সব কিছুই খুলে দেওয়া হচ্ছে। স্কুল-কলেজ খোলার ব্যাপারে অবশ্য এত দিন পর্যন্ত কোনও সিদ্ধান্ত নিতে পারেনি সরকার। মাঝে বলা হয়েছিল নবম থেকে দ্বাদশ শ্রেণির জন্য স্কুল খোলা যাবে। কিন্তু বাস্তবে তা সে ভাবে কার্যকর হয়নি।

স্কুল-কলেজ খোলার বিষয়ে এই প্রথম সার্বিক সিদ্ধান্ত নিল সরকার। আনলক পাঁচ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ১৫ অক্টোবর থেকে স্কুল-কলেজ খোলা যাবে। তবে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবে রাজ্য এবং প্রতিষ্ঠানের কর্তৃপক্ষ। জোর করে কাউকে স্কুলে বা কলেজে আনা যাবে না। ছাত্রছাত্রীদের বাবা-মায়ের চিঠি নিয়ে ক্লাস করতে আসতে হবে। যেখানে তাঁরা ক্লাসে আসার অনুমতি দেবেন। কেন্দ্রীয় সরকারের বক্তব্য, অনলাইন ক্লাসকেই তারা গুরুত্ব দিচ্ছে। তবে চাইলে এ বার প্রতিষ্ঠান খোলা যাবে।

বিতর্ক শুরু হয়েছে এখানেই। দেশে যখন প্রতিদিন এক লাখের কাছাকাছি সংক্রমণ হচ্ছে, তখন স্কুল-কলেজ খোলার সিদ্ধান্ত কেন নিল সরকার? বস্তুত অনেকেই বলছেন, ভুল সময়ে লকডাউনের সিদ্ধান্ত নিয়েছিল কেন্দ্র। বহু বিশেষজ্ঞ জানিয়েছিলেন, জুন মাসের পর থেকে ভারতে করোনার প্রকোপ সব চেয়ে বাড়বে। তা সত্ত্বেও তাঁদের কথা উপেক্ষা করে মার্চেই লকডাউন ঘোষণা করে দেওয়া হয়। এই মুহূর্তে করোনা নিয়ে সরকারের কোনও পরিকল্পনাই নেই বলে মনে করছেন অনেকে। স্কুল-কলেজ খুলে গেলে পরিস্থিতি আরও জটিল হবে বলে মনে করছেন অনেকে। সরকার অবশ্য জানিয়েছে, স্কুল খুললেও ১০ বছরের কম বয়সীদের ক্লাসে আনা যাবে না।

এসজি/জিএইচ (পিটিআই)

বিজ্ঞাপন