১২ মিলিয়ন ডলার নিহত কৃষ্ণাঙ্গ ব্রেওনার পরিবারকে | বিশ্ব | DW | 16.09.2020
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

অ্যামেরিকা

১২ মিলিয়ন ডলার নিহত কৃষ্ণাঙ্গ ব্রেওনার পরিবারকে

পুলিশের গুলিতে মৃত্যু হয়েছিল মার্কিন কৃষ্ণাঙ্গ ব্রেওনার। মেয়র তাঁর পরিবারের হাতে ১২ মিলিয়ন ডলার ক্ষতিপূরণ তুলে দিলেন।

ঐতিহাসিক সিদ্ধান্তের কথা জানালেন অ্যামেরিকার কেনটাকি অঞ্চলের লুইভিলের মেয়র। গত মার্চ মাসে লুইভিলের পুলিশ গুলি করে হত্যা করেছিল কৃষ্ণাঙ্গ ব্রেওনা টেলরকে। মেয়র গ্রেগ ফিশার মঙ্গলবার জানান, ওই হত্যার জন্য ব্রেওনার পরিবারের হাতে ১২ মিলিয়ন মার্কিন ডলার তুলে দেওয়া হবে। অ্যামেরিকার ইতিহাসে যা অভূতপূর্ব। একই সঙ্গে রাজ্যের পুলিশ প্রশাসনে ঢালাও সংস্কার হবে বলেও আশ্বাস দিয়েছেন তিনি।

ভিডিও দেখুন 00:59

গুলিতে দুজন নিহত হওয়ার আগে যা ঘটেছিল যুক্তরাষ্ট্রে

 

এ বছর মার্চ মাসে ব্রেওনা টেলরের বাড়িতে দরজা ভেঙে ঢুকে পড়েছিল পুলিশ। ২৬ বছরের ব্রেওনা তাঁর বয়ফ্রেন্ডের সঙ্গে ওই বাড়িতে থাকতেন। কাজ করতেন একটি হাসপাতালের ইমার্জেন্সিতে। পুলিশের দাবি, ড্রাগ রয়েছে এই সন্দেহেই তাঁদের বাড়িতে আচমকা ঢুকে পড়া হয়েছিল। এমন ভাবে পুরো ঘটনাটি ঘটে যে, ব্রেওনার বয়ফ্রেন্ড একবার গুলি ছোড়েন। কারণ তিনি বুঝতে পারেননি বাড়িতে পুলিশ ঢুকেছে। তাঁরা দুই জনেই ভেবেছিলেন বাড়িতে ডাকাত পড়েছে। ব্রেওনার বয়ফ্রেন্ড একবার গুলি ছুড়তেই পুলিশ এলোপাথাড়ি গুলি ছুড়তে শুরু করে। পর পর আটটি গুলি লাগে ব্রেওনার। ঘটনাস্থলেই তাঁর মৃত্যু হয়। জর্জ ফ্লয়েড হত্যা ঘিরে তত দিনে উত্তাল হয়ে গিয়েছে অ্যামেরিকা। তারই মধ্যে ব্রেওনার ঘটনায় উত্তাপ আরও ছড়ায়। দীর্ঘ দিন ধরে কেনটাকির বিভিন্ন অঞ্চলে ব্ল্যাক লাইভ ম্যাটার্স আন্দোলন হয়েছে।

মঙ্গলবার ব্রেওনার মায়ের হাতে ১২ মিলিয়ন মার্কিন ডলারের চেক তুলে দিয়েছেন মেয়র। একই সঙ্গে তিনি জানিয়েছেন, পুলিশ প্রশাসনে বড় রকমের সংস্কার হবে। আর ওয়ারেন্ট ছাড়া পুলিশ কারও ঘরে সার্চ করতে ঢুকতে পারবে না।

ব্রেওনার মা অবশ্য জানিয়েছেন, শুধু টাকা পেয়ে আর আশ্বাস পেয়ে তিনি খুশি নন। তিনি চান ব্রেওনাকে যাঁরা মেরেছেন, সেই পুলিশ অফিসারদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি হোক। বস্তুত, ইতিমধ্যে ওই পুলিশ অফিসারদের বিরুদ্ধে ক্রিমিনাল কেস শুরু হয়েছে। মেয়র জানিয়েছেন, এই প্রথম এ ধরনের ঘটনায় এত পরিমাণ অর্থ ক্ষতিপূরণ দেওয়া হলো। তাঁর বক্তব্য, মঙ্গলবার ওই মামলার প্রথম পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। ব্রেওনার পরিবার যাতে সব দিক থেকে বিচার পায়, তা দেখার দায়িত্ব তাঁর।

এসজি/জিএইচ (রয়টার্স, এপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন