হেরে যাওয়ার আগে উত্তাপ ছড়ালো জুভেন্টাস | বিশ্ব | DW | 12.04.2018
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

ফুটবল

হেরে যাওয়ার আগে উত্তাপ ছড়ালো জুভেন্টাস

শেষ বাঁশির আগেই পেনাল্টি৷ তাতেই ভেঙে গেল জুভেন্টাসের স্বপ্ন৷ রোনাল্ডোর গোলে আবার চ্যাম্পি্য়ন্স লিগ সেমিফাইনালে উঠে গেল রেয়াল মাদ্রিদ৷

ইনজুরি টাইমের একেবারে শেষ মুহূর্তে গোলমুখে লুকাস ভাসকেসকে ফাউল করেছিলেন বেনাতিয়া৷ ফলে পেনাল্টি এবং তা থেকে গোল করেন ক্রিস্টিয়ানো রোনাল্ডো৷ তবে পুরো ম্যাচ জুড়েই ছিল টানটান উত্তেজনা আর নাটকীয়তা৷

রোমার পদাঙ্ক অনুসরণ করতে না পারলেও টানটান উত্তেজনা ছড়িয়েছে জুভেন্টাস৷ মঙ্গলবার রাতে বার্সেলোনাকে তাদেরই মাঠে ৩-০ গোলে হারিয়ে যে অসাধারণ কীর্তি রোমা গড়েছে, তার খুব কাছাকাছি গিয়েও পারেনি জুভেন্টাস৷

অতিরিক্ত সময়েরও শেষ ক্ষণে পেনাল্টি থেকে রোনাল্ডোর গোলে ভেস্তে গেছে জুভেন্টাস সমর্থকদের স্বপ্ন৷

সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে বুধবার রাতে ফিরতি লেগে রিয়ালকে ৩-১ গোলে হারায় ইউভেন্তুস। কিন্তু দুই লেগ মিলিয়ে ৪-৩ গোলে এগিয়ে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শেষ চারে যায় জিনেদিন জিদানের দল৷

রোনাল্ডোর গোলটি না হলে দুই লেগ মিলিয়ে সমতায় থাকা ম্যাচটি গড়াতো অতিরিক্ত সময়ে। নাটকীয় এ ম্যাচে নির্ধারিত ৯০ মিনিটের খেলা শেষ হওয়ার পর তিন মিনিটের ইনজুরি টাইমেই বাধে গণ্ডগোল৷

তখনই পেনাল্টি সীমানায় ভাসকেসকে ফাউল করাকে কেন্দ্র করে জুভেন্সেটাসের গোলরক্ষক বুফন রেফারির সাথে তর্কে জড়িয়ে পরে লাল কার্ড দেখেন৷ বুফনের মতে, ভাসদেসকে করা ঐ ট্যাকলটি পেনাল্টি দেয়ার মতো ছিল না৷

জুভেন্টাসের গোলরক্ষক বলেছেন,‘‘রেফারির বুকে হৃদয় নয়, আবর্জনা রয়েছে৷’’

দীর্ঘদিন ইতালির জাতীয় দলের গোলবার সামলানো বুফন অবশ্য হতাশা থেকে এমনটা বলতেই পারেন, কেননা, তিনবার ফাইনাল খেলা গোলরক্ষক একে তো কখনো কাপ জেতেননি, তারপর আবার এটাই হ তে পারে তাঁর ক্যারিয়ারের শেষ চ্যাম্পিয়ন্স লিগ!

বুধবার রাতে ম্যাচের দ্বিতীয় মিনিটে প্রথম আক্রমণেই এগিয়ে যায় জুভেন্টাস৷ সামি খেদিরার ক্রস পেয়ে হেডে লক্ষ্যভেদ করেন মারিও মানজুসিচ৷

শুরুর ধাক্কা কাটিয়ে গুছিয়ে ওঠা স্বাগতিকরা দশম মিনিটে প্রথম সুযোগ তৈরি করে। তবে গ্যারেথ বেলের ব্যাকহিল অল্পের জন্য লাগে পাশের জালে। তিন মিনিট পর দুরূহ কোণ থেকে জালে বল পাঠান ইসকো; কিন্তু অফসাইডের বাঁশি বাজে।

আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণে জমে ওঠা লড়াইয়ে ৩৭তম মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন মানজুসিচ। এটা যেন আগের গোলেরই পুনরাবৃত্তি। এবার সুইস ডিফেন্ডার স্টেফান লিখটস্টাইনারের ক্রসে হেডে বল জালে পাঠান ক্রোয়েশিয়ার এই ফরোয়ার্ড।

৬০তম মিনিটে গোলরক্ষকের ভুলে তৃতীয় গোল হজম করে রেয়াল। ব্রাজিলিয়ান মিডফিল্ডার কস্তার ক্রসে তেমন কোনো বিপদের হুমকি ছিল না। কিন্তু হাতে আসা বল ধরতে গিয়ে তালগোল পাকান নাভাস। হাত ফসকে বেরিয়ে যাওয়া বল গোলমুখে পেয়ে জালে ঠেলে দেন ফরাসি মিডফিল্ডার  মাতুইদি। দুই লেগ মিলিয়ে স্কোরলাইন ৩-৩; কোণঠাসা টানা দুবারের চ্যাম্পিয়নরা।

দ্বিতীয়ার্ধে গ্যারেথ বেল ও কাসেমিরোকে মাঠে না নামিয়ে বদলি হিসেবে লুকাস ভাসকেস এবং মার্কো আসেনসিওকে পাঠান জিদান৷

সেই ভাসকেসকেই ফাউল করার অপরাধে পেনাল্টি থেকে গোল খেয়ে বিদায় নিল জুভেন্টাস৷ 

চ্যাম্পিয়ন্স লিগের সেমিফাইনালে ওঠা চারটি দল হলো- বায়ার্ন মিউনিখ, রোমা, রেয়াল মাদ্রিদ আর লিভারপুল৷ সেমিফাইনালে কে কার সাথে খেলবে শুক্রবার সেটি নির্ধারিত হবে ড্র-এর মাধ্যমে৷    

এইচআই/এসিবি (রয়টার্স, এপি)  

নির্বাচিত প্রতিবেদন