‘হৃদয় বলছে ব্রাজিল, কিন্তু মাথা বলছে জার্মানি, ফ্রান্স′ | আলাপ | DW | 12.06.2018
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

সাক্ষাৎকার

‘হৃদয় বলছে ব্রাজিল, কিন্তু মাথা বলছে জার্মানি, ফ্রান্স'

বাংলাদেশের অন্যতম সেরা ফুটবল বিশ্লেষক গোলাম সারোয়ার টিপু৷ তিনি নিজে ব্রাজিলের সমর্থক৷ কিন্তু তাঁর বিচার-বিশ্লেষণ বলছে, এবার জার্মানি আর ফ্রান্সের বিশ্বকাপ জেতার সম্ভাবনা বেশি৷

ফ্রান্সের চেয়েও জার্মানিকে এক্ষেত্রে এগিয়ে রাখছেন তিনি৷ বিশ্বকাপকে সামনে রেখে বাংলাদেশের এই সাবেক ফুটবলার ও কোচের সঙ্গে কথা বলেছে ডয়চে ভেলে৷

শুরুতেই তিনি বললেন, পাঁচটি দলের এবার বিশ্বকাপ জেতার সামর্থ্য রয়েছে৷ এর মধ্যে তাঁর প্রিয় দল ব্রাজিল ছাড়াও আছে জার্মানি, ফ্রান্স, আর্জেন্টিনা ও স্পেন৷ এই পাঁচটির মধ্যে চারটি দল সেমিফাইনাল খেলবে বলেই তাঁর ধারণা৷

টিপু বলেন, বিশ্বকাপে অংশ নেয়ার সুযোগ পাওয়ায় সব দলই ভালো৷ তবে বিশ্বকাপ জেতার জন্য প্রয়োজন ফুটবল ঐতিহ্য, নিয়মিত জেতার অভ্যাস, ফাইনাল খেলার অভ্যাস ইত্যাদি৷

অডিও শুনুন 02:14

জার্মান দল নিয়ে টিপুর বিশ্লেষণ

‘‘যেমন ধরুন, কলম্বিয়ার সবসময় ভালো প্লেয়ার ছিল, কিন্তু ঐ যে তাদের অভ্যাস নাই, কিলিং একটা অ্যাটিটিউড দরকার হয় ওয়ার্ল্ড কাপ জেতার জন্য, সেটা নাই৷ সেই জায়গায় সামহাউ দে ল্যাক,'' ব্যাখ্যা করে বোঝালেন তিনি৷

তাই ২০ বার আয়োজিত বিশ্বকাপ এখন পর্যন্ত জিতেছে মাত্র আটটি দল৷ এরমধ্যে জার্মানি সবচেয়ে বেশি আটবার ফাইনালে উঠেছে৷ জিতেছে চারবার৷ ‘‘ব্রাজিল, আর্জেন্টিনার মতো দলও কিন্তু এতবার ফাইনালে খেলেনি,'' এই মন্তব্য করে টিপু জানান, জার্মানির ফুটবল সবসময় তাঁকে অবাক করে৷ তিনি বলেন, ‘‘...এটা (জার্মান দল) একটা মেশিনের মতো৷ মাঠে কোনো সময় কোনো প্লেয়ার একটা সেকেন্ডের জন্যও রিলাক্স করে না৷ এই যে অ্যাটিটিউড, এটা দুর্দান্ত একটা ব্যাপার৷ এটা তারা কীভাবে এত বছর ধরে মেনটেন করছে, তা আমি চিন্তা করে বের করতে পারি না৷ এমনি দেখেন, তাদের কিন্তু ইন্ডিভিজুয়ালি খুব ব্রিলিয়ান্ট প্লেয়ার নেই৷ তারা একটা গ্রুপ৷ জার্মানির সবচেয়ে বড় জিনিস হলো তাদের বেঞ্চ একই রকমের৷ মাঠে যে ১১ জন খেলে আর বেঞ্চে যারা থাকে, তাদের মধ্যে বেশি ডিফারেন্স নেই৷ এমন দলেরই তো চ্যাম্পিয়ন হওয়া উচিত৷''

এরপর জার্মান কোচ ইওয়াখিম ল্যোভের প্রতিও তাঁর ভালো লাগার কথা জানান৷ ‘‘দেখুন, কোচ ল্যোভ গতবছর কনফেডারেশন কাপে তরুণ দল খেলিয়েছে৷ এই তরুণদের কয়েকজনকে তিনি বিশ্বকাপের দলেও রেখেছেন৷

অডিও শুনুন 02:09

অন্যান্য দলের সম্ভাবনা প্রসঙ্গে টিপু

কনফেডারেশন কাপ খেলায় এই তরুণদের কাছে বিশ্বকাপ খেলাটা চাপের হবে না৷ দারুণ একটা কাজ করেছেন তিনি৷''

তবে ফুটবল যে সবসময় নিয়ম মেনে চলে না, সেই কথা সাক্ষাৎকারের বিভিন্ন পর্যায়ে মনে করিয়ে দিয়েছেন তিনি৷ জার্মানি যে ব্রাজিলকে সাত গোলে হারাবে, সেটি কেউ ভাবতে পারেনি৷ ‘‘এটিই ফুটবলের সৌন্দর্য,'' বলেন বাংলাদেশের সাবেক কোচ টিপু৷ তাই তো ফ্রান্সেরও এবার কাপ জেতার বড় সম্ভাবনা দেখছেন তিনি৷ ‘‘ফ্রান্সের আসলে ভালো করা উচিত৷ কারণ, তাদের তরুণ আর অভিজ্ঞ খেলোয়াড়দের একটা ভালো কম্বিনেশন আছে৷ এই প্লেয়াররা যে যার ক্লাব দলে ভালো ভূমিকা রেখেছেন৷ এখন কোচ যদি তাদের মধ্যে টিউনিংটা ভালো করতে পারেন তাহলে সফল হওয়ার সম্ভাবনা আছে,'' বলেন তিনি৷ সাক্ষাৎকারের এই পর্যায়ে টিপু বিশ্বকাপ জিততে কোচের গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বের কথা মনে করিয়ে দেন৷ তিনি বলেন, জাতীয় দলের খেলোয়াড়রা একেকজন একেক ক্লাবে খেলায় ফুটবল দর্শনও ভিন্ন থাকে৷ ফলে কোচের কাজ হচ্ছে সবাইকে তাঁর নিজের দর্শন মেনে চলতে উদ্ধুদ্ধ করা৷ যে দলের সব ফুটবলার সেটি করতে পারবেন, তারাই সফল হবে বলে মনে করেন টিপু৷

ব্রাজিল, আর্জেন্টিনা দলের দু'টি সমস্যার কথা উল্লেখ করেছেন তিনি৷ এক, প্লেয়ারদের ইনজুরি৷ ব্রাজিলে যেমন নেইমার কেবলই ইনজুরি থেকে ফিরে সরাসরি জাতীয় দলে যোগ দিয়েছেন৷ গত কয়েকমাস তিনি প্রতিযোগিতামূলক ম্যাচের বাইরে ছিলেন৷

অডিও শুনুন 04:42

গ্রুপ বিশ্লেষণ নিয়ে টিপু

এছাড়া দানি আলভেস ইনজুরির কারণে দলে নেই৷ আর্জেন্টিনা দলে যেমন শেষ মুহূর্তে ইনজুরির কারণে বাদ পড়েছেন এক নম্বর গোলরক্ষক সার্জিও রোমেরো৷ টিপু বলেন, ‘‘দলের কম্বিনেশন থেকে এমন এক-দু'জন খসে পড়লে আপনি যতই গ্লু লাগান, রিপেয়ারটা তত ভালো হয় না৷''

টিপুর মতে ব্রাজিল-আর্জেন্টিনার দ্বিতীয় সমস্যা হচ্ছে, দুই দলেরই প্রথম ১১ জন আর বাকি ফুটবলারদের পারফরমেন্সের মধ্যে অনেক পার্থক্য আছে৷ ফলে প্রথম দলের হঠাৎ কেউ ইনজুরিতে পড়লে বদলি হিসেবে একই মানের প্লেয়ার পাওয়া কঠিন হবে, বলে মনে করেন তিনি৷

টিপু বলেন, গ্রুপ পর্বের খেলা দেখার পর কোন দলের কী অবস্থা সেটি আরও স্পষ্ট হবে৷

এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে একমাত্র জাপানের গ্রুপ পর্যায় পেরোনোর সম্ভাবনা দেখছেন তিনি৷ ‘‘টেকনিক্যালি ততটা সাউন্ড না হলেও তারা ব্রেকথ্রু দিতে পারদর্শী৷ ফলে বিরোধীরা সবসময় একটা চাপে থাকবে৷''

গোলাম সরোয়ার টিপুর সঙ্গে কি আপনি একমত? লিখুন নীচের ঘরে৷ 

নির্বাচিত প্রতিবেদন

এই বিষয়ে অডিও এবং ভিডিও

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন