হুতির বিরুদ্ধে লড়াইয়ে সৌদিকে সমর্থন বাইডেনের | বিশ্ব | DW | 10.02.2022

ডয়চে ভেলের নতুন ওয়েবসাইট ভিজিট করুন

dw.com এর বেটা সংস্করণ ভিজিট করুন৷ আমাদের কাজ এখনো শেষ হয়নি! আপনার মতামত সাইটটিকে আরো সমৃদ্ধ করতে পারে৷

  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

অ্যামেরিকা

হুতির বিরুদ্ধে লড়াইয়ে সৌদিকে সমর্থন বাইডেনের

সৌদি আরবের পাশে দাঁড়ালেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। তিনি সৌদির রাজার সঙ্গে ফোনে কথা বলেছেন।

ইয়েমেনের হুতি বিদ্রোহীরা সৌদি আরবের উপর ক্ষেপণাস্ত্র হামলা করেছে। সেই হুতির বিরুদ্ধে লড়াইয়ে অ্যামেরিকা পুরোপুরি সৌদি আরবের সঙ্গে থাকবে। সৌদির রাজা সলমন বিন আব্দুল আজিজ আল সৌদকে ফোন করে এই কথা জানিয়েছেন বাইডেন।

হোয়াইট হাউস থেকে জারি করা বিবৃতিতে বলা হয়েছে, প্রেসিডেন্ট জানিয়ে দিয়েছেন, সৌদির মানুষ ও সম্পত্তি রক্ষা করতে অ্যামেরিকা দায়বদ্ধ। ইয়েমেনে যুদ্ধ বন্ধ করতে জাতিসংঘের প্রয়াসকেও তারা সমর্থন করে।

২০১৫ সালে সৌদির নেতৃত্বাধীন জোট ইয়েমেনে হস্তক্ষেপ করে এবং বিদ্রোহীদের বিরুদ্ধে অভিযান চালায়। বিদ্রোহীরা কিছুটা পিছনে হঠতে বাধ্য হয়। এই যুদ্ধের ফলে ইয়েমেন দুর্ভিক্ষের মুখে পড়ে। জাতিসংঘ জানিয়েছে, এটা বিশ্বের অন্যতম ভয়াবহ মানবিক সমস্যা।

সৌদি জোটের অভিযোগ, হুতি বিদ্রোহীদের ইরান সাহায্য করছে। কিন্তু ইরান এবং হুতি তা অস্বীকার করেছে।

গত ১৭ জানুয়ারি হুতি বিদ্রোহীরা আবু ধাবিতে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা করে, তাতে তিনজন মারা যান। গত মাসে মার্কিন সেনাবাহিনী জানিয়েছিল, তারা দুইটি ক্ষেপণাস্ত্র ধ্বংস করেছে। এগুলি আমিরাতে মার্কিন ঘাঁটি লক্ষ্য করে ছোড়া হয়েছিল। এরপর আমিরাতে ডেস্ট্রয়ার ও যুদ্ধবিমান মোতায়েন করার সিদ্ধান্ত নেয় অ্যামেরিকা। 

সৌদির সরকারি সংবাদসংস্থা এসপিও জানিয়েছে, ফোনে বাইডেনকে ধন্যবাদ দিয়েছেন সৌদির রাজা। তিনি বলেছেন, সৌদির প্রয়োজনের সময়ে অ্যামেরিকা পাশে এসে দাঁড়িয়েছে।

বাইডেন আগে জানিয়েছিলেন, অ্যামেরিকার পররাষ্ট্রনীতি মানবাধিকারের কথা মাথায় রেখে নেয়া হবে। সৌদি আরব যাতে মানবাধিকার রক্ষা করে এবং ইয়েমেনে সংঘাত থামানোর জন্য অ্যামেরিকা যাতে পদক্ষেপ নেয়, তার জন্য বাইডেনের উপর চাপও বাড়ছে।         

জিএইচ/এসজি (এপি, এএফপি, রয়টার্স)