হায়দরাবাদে ধর্ষকদের গুলি করে মারা নিয়ে স্বাধীন তদন্ত | বিশ্ব | DW | 12.12.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

ভারত

হায়দরাবাদে ধর্ষকদের গুলি করে মারা নিয়ে স্বাধীন তদন্ত

বিতর্কিত পরিস্থিতিতে হায়দরাবাদের অভিযুক্ত ধর্ষকদের গুলি করে মেরেছিল তেলেঙ্গানার পুলিশ। সেই ঘটনা নিয়ে স্বাধীন তদন্ত কমিশন গঠন করল সুপ্রিম কোর্ট। ছমাসের মধ্যে কমিশন তাদের রিপোর্ট দেবে।

হায়দরাবাদের পশুচিকিৎসককে ধর্ষণ ও হত্যার দায়ে অভিযুক্তচারজন কোন পরিস্থিতিতে পুলিশের গুলিতে মারা গিয়েছিল, তা স্বাধীনভাবে তদন্ত করে দেখার নির্দেশ দিল সুপ্রিম কোর্ট। সর্বোচ্চ আদালতই তদন্ত কমিটি গঠন করে দিয়েছে। সেখানে কারা থাকবেন সেটাও ঠিক করে দিয়েছে। প্রধান বিচারপতি এস এ বোবদের নেতৃত্বে তিন বিচারপতির বেঞ্চ জানিয়েছে, ছমাসের মধ্যে তদন্ত কমিটি রিপোর্ট দেবে। কমিটি স্বাধীনভাবে তদন্ত করবে৷ এই তদন্ত যতদিন চলবে, ততদিন অন্য কেউ তদন্ত করতে পারবে না৷ কমিটির প্রধান হবেন সুপ্রিম কোর্টের অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি ভি এস সিরপুরক। সদস্যরা হলেন বম্বে হাইকোর্টের অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি রেখা ও প্রাক্তন সিবিআই ডিরেক্টর কার্তিকেয়ন।

তেলেঙ্গানা সরকার এই ধরনের তদন্ত কমিটির বিরোধী ছিল। কিন্তু বিচারপতিরা জানিয়েছেন, অভিযুক্তদের গুলি করে মারা নিয়ে নানা ধরনের মত সামনে আসছে। এই পরিস্থিতিতে স্বাধীনভাবে তদন্ত হওয়া জরুরি। তেলেঙ্গানা সরকারের মত ছিল, সিসিটিভি ফুটেজ থেকে চারজন ধর্ষকের পরিচয় পরিস্কারভাবে জানা গিয়েছে। একজন বাইক চালাচ্ছিল। আরেকজন পেট্রোল নিয়ে এসেছিল ধর্ষিতার গায়ে আগুন লাগাবার জন্য। আর ভোররাতে অভিযুক্তদের ঘটনাস্থলে নিয়ে যাওয়ার কারণ হল, ধর্ষণের ঘটনা নিয়ে ক্ষোভ তুঙ্গে ছিল। তাই অবাঞ্ছিত ঘটনা এড়াতে ওই সময় অভিযুক্তদের ঘটনাস্থলে নিয়ে যাওয়া হয়। তারপরেও সুপ্রিম কোর্ট এই স্বাধীন তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে।

তেলেঙ্গানা নিয়ে দুটি তদন্ত চলছিল। রাজ্য সরকারের বিশেষ তদন্তকারী দল ছাড়াও মানবাধিকার কমিশনের নির্দেশে আলাদা করে তদন্ত হচ্ছিল। সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশের পর ওই দুই তদন্ত আপাতত বন্ধ থাকবে। স্বাধীন তদন্ত রিপোর্ট আসার পর জানা যাবে, তেলেঙ্গানার এনকাউন্টার সাজানো ছিল, না কি সত্যই অভিযুক্তরা পুলিশকে আক্রমণ করেছিল।

জিএইচ/এসজি(এনডিটিভি, নিউজ ১৮)

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন