হাত-পা নেই বলে তো হাঁটতে বাধা নেই! | বিশ্ব | DW | 29.11.2017
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

ভাইরাল ভিডিও

হাত-পা নেই বলে তো হাঁটতে বাধা নেই!

‘কেমডেন, আমি সত্যিই তোমার জন্য গর্বিত' – এক মা যখন তাঁর সন্তানের উদ্দেশ্যে এ কথা বলেন, তখন কতখানি আনন্দিত হয়ে তিনি এ কথা বলছেন তা সহজেই অনুমেয়৷ শেষ পর্যন্ত সন্তানকে হাঁটতে দেখে বাবার চোখেমুখেও ফোটে স্বর্গীয় হাসি৷

হাত-পা কিছুই নেই কেমডেনের৷ তার প্রথম হাঁটা তাই বাবা-মায়ের কাছে এতটা বেশি সুখের উপলক্ষ্য হয়ে ওঠে৷

প্রথম হাঁটার এই দৃশ্য ধারণ করেন মা, আর বাবা ছিলেন কেমডেনের সামনে৷ সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে এই ভিডিও দেখার পর থেকেই প্রতিক্রিয়া জানাতে থাকেন সাধারণ মানুষ৷ হাজার হাজার মানুষ ভিডিওটি দেখেছেন তো বটেই, প্রায় সাড়ে তিন হাজার মানুষ কেবল প্রতিক্রিয়া হিসেবে কমেন্টও করেছেন৷ এই বাবা-মায়ের খুশির মুহূর্তে শরিক হয়েছেন তাঁরাও৷

ভিডিওতে দেখা যায়, কেমডেনের বাবা কোল গ্রিন ছেলেকে উৎসাহ দিয়ে বলছেন, ‘‘দেখো তুমি নিজে নিজে এগোচ্ছো, পড়ে যাচ্ছো না৷'' জবাবে ছেলেও একরাশ অবিশ্বাস আর উত্তেজনায় বলে, ‘‘আমি হাঁটছি''!

স্বাভাবিকভাবেই চার বছরের এই শিশুর প্রথম হাঁটা নিয়ে ভীষণ আপ্লুত ছিলেন বাবা-মা৷ পিপল ম্যাগাজিনের দেয়া তথ্যে দেখা গেছে, টেক্সাসের কেট হুইডেন ও কোল গ্রিন দম্পতি শিশুর জন্মের আগেই জানতে পেরেছিলেন যে তার হাত-পা নেই৷ পরে তাকে ডাক্তারও দেখানো হয়েছিল৷

‘‘আমি যখন প্রথম জানতে পারি যে ওর হাত, পা কিছুই নেই তখন আমি বুঝতেই পারছিলাম না যে, ওর কাছ থেকে আমি ঠিক কী প্রত্যাশা করব'', বলেন কেট৷

‘‘কিন্তু মাত্র দু'মাস বয়সে একদিন আমার পাশে শোয়ানো অবস্থায় হঠাৎ খেয়াল করলাম যে সে তার হাতের ওপরের অংশটা দিয়েই একটি খেলনা সরানোর চেষ্টা করছে৷ এই দৃশ্য দেখে আমি খুশিতে আত্মহারা হয়ে পড়েছিলাম৷ তখনই বুঝেছিলাম যে ও আরও অনেক কিছুই করতে পারবে৷''

মায়ের এই বিশ্বাস বিফলে যায়নি৷ ভাইরাল হওয়া এই ভিডিও-র একেবারে শেষে দেখা যায় আত্মবিশ্বাসী কেমডেন ক্যামেরার পেছনে থাকা মাকে বলছে, ‘‘মা আমিও ভিডিওটা দেখবো!''

এএম/ডিজি

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন