হাতে তৈরি ক্রিসমাস ডেকোরেশন | অন্বেষণ | DW | 16.02.2018
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

অন্বেষণ

হাতে তৈরি ক্রিসমাস ডেকোরেশন

প্রতিবছর নভেম্বর-ডিসেম্বর মাসে ক্রিসমাসকে ঘিরে ইউরোপে উৎসব শুরু হয়৷ বিভিন্ন জায়গায় বসে বড়দিনের বাজার৷ সেখানে ক্রিসমাস ট্রি সাজানোর নানান জিনিস পাওয়া যায়৷ জার্মানির একটি শহরে এখনও হাতে করে ক্রিসমাস ডেকোরেশন তৈরির চল আছে৷

জার্মানির টুরিঙ্গিয়া রাজ্যের লাউশা শহরে এখনও এর চল আছে৷ আডভেন্টের প্রথম দুই সপ্তাহান্তে সেখানে একটি মেলা বসে৷ মেলায় হাতে তৈরি ডেকোরেশন পাওয়া যায়৷ শহরের বাইরে থেকেও অনেকে সেখানে যান কেনাকাটা করতে৷

কারখানায় উৎপাদিত ক্রিসমাস ডেকোরেশনের সঙ্গে হাতে তৈরি জিনিস এখনও পাল্লা দিয়ে চলছে৷ অলংকার নির্মাতা এগোন ম্যুলার-ব্লেশ বলেন, ‘‘প্রতিযোগিতা সত্ত্বেও এ সব জিনিসের জনপ্রিয়তা আছে৷ ক্রেতারা এখনও জানতে চান, এগুলো আসলেই লাউশায় তৈরি কিনা৷''

ডেকোরেশনের মধ্যে সবচেয়ে বেশি জনপ্রিয় ক্রিসমাস বল৷ এরপর আছে কাচের তৈরি পাখি৷ ব্যবসায়ী ক্রিস্টিনা বক জানান, ‘‘এই পাখি, ট্রাম্পেট ঐতিহ্যের অংশ৷ যখন ছোট ছিলাম, তখন ক্রিসমাস ট্রি-র নীচে এসব রাখা থাকত৷ আরও থাকত বাদাম, পাইন ফল ইত্যাদি৷ ''

চারশ' বছরেরও বেশি সময় আগে লাউশায় কাচ দিয়ে বিভিন্ন জিনিস তৈরির চল শুরু হয়৷ কাচের কারিগরদের ঘিরেই গ্রামটি গড়ে উঠেছিল৷ তবে কাচ দিয়ে প্রথম ক্রিসমাসের অলংকার তৈরি শুরু হয় ১৮৪৭ সালে৷

ভিডিও দেখুন 04:03
এখন লাইভ
04:03 মিনিট

বড়দিনের বিশেষ বাজার

লাউশার এক জাদুঘরে অতীতের বিভিন্ন জিনিস রাখা আছে৷ উনবিংশ শতাব্দীতে লাউশা থেকে যুক্তরাষ্ট্রের পেনসিলভেনিয়ায় কাচের সাজসরঞ্জাম রপ্তানি শুরু হয়েছিল৷ কিন্তু ক্রিসমাস ডেকোরেশন তৈরির চল শুরু হলো কীভাবে? জাদুঘরের প্রধান আনিয়া ফ্যোলশে জানান, ‘‘কথিত আছে, লাউশার একজন গরিব কারিগর প্রথম ক্রিসমাস ডেকোরেশন বানাতে শুরু করেছিলেন৷ তখনকার দিনে আপেল আর বাদাম দিয়ে ক্রিসমাস ট্রি সাজানো হতো৷ কিন্তু গরিব ঐ কারিগরের সেগুলো কেনার সামর্থ্য ছিল না৷ তাই কাচ দিয়ে তিনি সেগুলো বানানো শুরু করেছিলেন৷''

লাউশার কারিগরদের মধ্যে পাঁচজন ক্রিসমাস ট্রি সাজানোর সরঞ্জাম তৈরিতে পারদর্শী৷ তাঁদের মধ্যে একজন মিশায়েল হাবেরলান্ড৷ তিনি এখনও তাঁর দাদার ছাঁচ দিয়ে কাজ করেন৷ হাবেরলান্ড বলেন, ‘‘আমার নানা অনেক পাখি বানিয়েছেন৷ মা বলতেন, যদি সব পাখি উড়তে পারত তাহলে লাউশার আকাশ অন্ধকার হয়ে যেত!''

সিলভার ও অ্যামোনিয়ার মিশ্রণ দিয়ে কাচের ছাঁচ তৈরি হয়৷ এরপর সেটি শুকিয়ে তাতে রং করা হয়৷

সুজানে ডাউস/জেডএইচ

নির্বাচিত প্রতিবেদন

ইন্টারনেট লিংক

এই বিষয়ে অডিও এবং ভিডিও

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন