হাটহাজারী মাদ্রাসায় ফিরলেন বাবুনগরী | সমাজ সংস্কৃতি | DW | 19.09.2020
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ

হাটহাজারী মাদ্রাসায় ফিরলেন বাবুনগরী

আল্লামা শাহ আহমদ শফীর মৃত্যুর পরদিনই আবারো হাটহাজারী মাদ্রাসার কমিটিতে ফিরলেন জুনাইদ আহমেদ বাবুনগরী৷ তাকে শায়খুল হাদিস ও শিক্ষা সচিবের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে৷ 

শনিবার আহমদ শফীর মরদেহ দাফনের পরই শূরা কমিটি বৈঠকে বসে৷ বৈঠক শেষে শূরা সদস্য সালাহউদ্দিন নানুপুরী ডয়চে ভেলেকে বলেন, ‘‘আজকে আমরা গুরুত্বপূর্ণ দু'টি সিদ্ধান্ত নিয়েছি৷ প্রথমটি হল আগামী শূরা বৈঠক পর্যন্ত তিন জনের একটি কমিটি করা হয়েছে, তারা মাদ্রাসা পরিচালনা করবেন৷ এই কমিটিতে আছেন মুফতি আব্দুস সালাম, মাওলানা এয়াহিয়া ও মাওলানা শেখ আহমেদ৷ আর বাবুনগরীকে শায়খুল হাদিস ও শিক্ষা সচিবের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে৷’’

কতদিন পর পরবর্তী শূরা বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে? জবাবে তিনি বলেন, ‘‘৬ মাসের মধ্যে শূরা বৈঠক করার বাধ্যবাধকতা আছে৷ এখন যাদের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে তারা যাদি ভালো করেন, তাহলে তাদেরই পূর্ণাঙ্গ দায়িত্ব দেওয়া হবে৷’’ এই বৈঠকে ১২ জন শূরা সদস্যের মধ্যে ৮ জনই উপস্থিত ছিলেন বলে জানান এই শূরা সদস্য৷

অডিও শুনুন 02:04

‘বাবুনগরীকে শায়খুল হাদিস ও শিক্ষা সচিবের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে’

বেশ কিছুদিন ধরে হেফাজতের আমির আহমদ শফী ও মহাসচিব জুনায়েদ আহমেদ বাবুনগরীর বিরোধ চলছিল৷ এই দ্বন্দ্বের ফলে গত ১৭ জুন জুনায়েদ বাবুনগরীকে দারুল উলুম মঈনুল ইসলাম হাটহাজারী মাদ্রাসার সহকারী পরিচালকের দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়৷ তার জায়গায় দায়িত্ব দেওয়া হয় মাদ্রাসার জ্যেষ্ঠ শিক্ষক শেখ আহমেদকে৷ তিনি হেফাজতের আমির শাহ আহমদ শফীর ঘনিষ্ঠ হিসেবে পরিচিত৷ পরে বাবুনগরীর ভাগিনা মাদ্রাসার শিক্ষক আনোয়ার শাহকে মাদ্রাসা থেকে এক মাস আগে বের করে দেওয়া হয়৷ সবকিছু মিলিয়ে বাবুনগরীর অনুসারীরা ক্ষুব্ধ ছিলেন৷ তাদের অভিযোগ, আহমদ শফী বয়স্ক হওয়ায় তাকে ভুল বুঝিয়ে তার ছেলে আনাস মাদানী এসব কাজ করিয়েছেন৷

গত বৃহস্পতিবার শূরা কমিটির বৈঠকে মহাপরিচালকের দায়িত্ব থেকে অব্যহতি নেন আহমদ শফী৷ তার ছেলে আনাস মাদানীকেও সহকারী শিক্ষা সচিবের পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়৷ 

সালাহউদ্দিন নানুপুরী বলেন, ‘‘আজকের বৈঠকে হেফাজতে ইসলাম নিয়ে কোন ধরনের আলোচনা হয়নি৷ এটা পৃথক সংগঠন৷ শিগগিরই তারা বৈঠক করে এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেবেন৷’’ আগামী মাসেই হেফাজতে ইসলামীর কাউন্সিল হতে পারে বলে জানা গেছে৷

অডিও শুনুন 02:20

‘খুব শিগগিরই কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হবে’

কাউন্সিলেই নির্ধারণ হবে হেফাজতের আমির
হেফাজাতে ইসলামের মহাসচিব আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী ডয়চে ভেলেকে জানান আহমদ শফীর মৃত্যুর পর হেফাজতে ইসলামের পরবর্তী আমির কে হবেন তা আগামী কাউন্সিলের মাধ্যমেই নির্ধারণ করা হবে৷ হাটহাজারী মাদ্রাসার পরিস্থিতি বর্তমানে স্বাভাবিক আছে বলেও জানান তিনি৷ জুনায়েদ বাবুনগরী বলেন, তার দায়িত্ব এখন কাউন্সিল ডাকা৷ কাউন্সিল যে সিদ্ধান্ত নেবে সেটাই হবে৷ খুব শিগগিরই এই কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হতে পারে বলেও ইঙ্গিত দেন তিনি৷ 

এর আগে দেশের বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রয়াত আহমদ শফীর পুত্র আনাস মাদানীকে হাটহাজারী মাদ্রাসার শিক্ষা সচিব হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছিল৷ তবে বাবুনগরী ডয়চে ভেলেকে বলেছেন, ‘‘আনাস মাদানী শিক্ষা সচিব নয়, সহকারী শিক্ষা সচিবের দায়িত্বে ছিলেন৷’’ 

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন