1. কন্টেন্টে যান
  2. মূল মেন্যুতে যান
  3. আরো ডয়চে ভেলে সাইটে যান
Al-Kadhimi
Premierminister des Irak
ছবি: Stefanie Loos/REUTERS

‘হত্যাচেষ্টা’ থেকে বেঁচে গেলেন ইরাকের প্রধানমন্ত্রী

৭ নভেম্বর ২০২১

ইরাকের প্রধানমন্ত্রী মুস্তাফা আল-কাধিমিকে হত্যার জন্য তার বাসভবনে ড্রোন হামলা চালানো হয়েছে বলে জানিয়েছে দেশটির সামরিক বাহিনী৷ এতে বেশ কয়েকজন আহত হলেও ইরাকি প্রধানমন্ত্রী সুস্থ আছেন৷

https://www.dw.com/bn/%E0%A6%B9%E0%A6%A4%E0%A7%8D%E0%A6%AF%E0%A6%BE%E0%A6%9A%E0%A7%87%E0%A6%B7%E0%A7%8D%E0%A6%9F%E0%A6%BE-%E0%A6%A5%E0%A7%87%E0%A6%95%E0%A7%87-%E0%A6%AC%E0%A7%87%E0%A6%81%E0%A6%9A%E0%A7%87-%E0%A6%97%E0%A7%87%E0%A6%B2%E0%A7%87%E0%A6%A8-%E0%A6%87%E0%A6%B0%E0%A6%BE%E0%A6%95%E0%A7%87%E0%A6%B0-%E0%A6%AA%E0%A7%8D%E0%A6%B0%E0%A6%A7%E0%A6%BE%E0%A6%A8%E0%A6%AE%E0%A6%A8%E0%A7%8D%E0%A6%A4%E0%A7%8D%E0%A6%B0%E0%A7%80/a-59746485

রোববার সরকারি সূত্রের বরাত দিয়ে ইরাকের বিভিন্ন গণমাধ্যম এ হামলার খবর প্রকাশ করে৷ সামরিক বাহিনী ও সরকারের বিভিন্ন সংস্থা জানিয়েছে, হত্যার উদ্দেশ্যে তার বাসভবনে ড্রোন হামলা চালানো হয়৷ তবে এতে প্রধানমন্ত্রী আঘাতপ্রাপ্ত হননি এবং তিনি নিরাপদ আছেন বলে জানানো হয়৷ পরবর্তীতে তিনি নিজেও রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যমে হাজির হয়ে সুস্থতার তথ্য নিশ্চিত করেন৷ এসময় হামলার ঘটনার নিন্দা প্রকাশ করেন তিনি৷

দেশটির রাষ্ট্র নিয়ন্ত্রণাধীন গণমাধ্যমের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে. হামলার ঘটনায় নিরাপত্তা বাহিনী প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিচ্ছে৷

Angriff auf Iraks Ministerpräsident Mustafa al-Kadhimi
হামলায় ক্ষতিগ্রস্ত ইরাকের প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনছবি: Iraqi Prime Minister/AP/picture alliance

যা জানা যাচ্ছে

ইরাকের প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনটির অবস্থান বাগদাদের দুর্ভেদ্য নিরাপত্তা অঞ্চল হিসেবে পরিচিত গ্রিন জোনে৷ সামরিক বাহিনীর বিবৃতি থেকে জানা যাচ্ছে, শনিবার ভোরে একটি ড্রোনের মাধ্যমে বাড়িটি লক্ষ্য বোমা হামলা চালানো হয়৷ বার্তা সংস্থা এপির তথ্য অনুযায়ী হামলায় সাতজন নিরাপত্তারক্ষী ও দুইজন কর্মকর্তা আহত হয়েছেন৷ ইরাকের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, আরো দুইটি ড্রোন লক্ষ্যে পৌঁছানোর আগেই গুলি করে ভূপাতিত করা হয়েছে৷

ঘটনার পর আল-কাধিমি টুইট করে নিরাপদ থাকার কথা নিশ্চিত করেন এবং সবাইকে শান্ত থাকার আহ্বান জানান৷

হামলার পেছনে কারা জড়িত সেটি এখনও জানা যায়নি৷ এই ঘটনায় নিন্দা জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র, সৌদি আরব ও ইরান৷

উল্লেখ্য গত মাসে অনুষ্ঠিত দেশটির নির্বাচনের ফলাফল প্রত্যাখ্যান করে সম্প্রতি গ্রিন জোনের প্রবেশ মুখে ইরানপন্থি হিসেবে পরিচিত সশস্ত্র গোষ্ঠীগুলো প্রতিবাদ জানায় ৷ শুক্রবার সরকারি বাহিনীর সঙ্গে সংঘাতে একজন প্রতিবাদকারী গুলিবিদ্ধ হয়ে নিহত হওয়ার পর সেখানে উত্তজনা বাড়তে থাকে৷ দুই পক্ষের মধ্যে গুলি বিনিময়ে সরকারি নিরাপত্তাকর্মীরাও আহত হন৷ এই পরিস্থিতির জন্য কে দায়ী তা বের করতে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছিলেন আল-কাধিমি৷

এফএস/এডিকে (ডিপিএ, রয়টার্স, এপি)

স্কিপ নেক্সট সেকশন ডয়চে ভেলের শীর্ষ সংবাদ

ডয়চে ভেলের শীর্ষ সংবাদ

Bangladesch Wahlen Wahlkampf 2018 Nationalisten BNP

ভোটের আগে জোট নিয়ে টানাটানি

স্কিপ নেক্সট সেকশন ডয়চে ভেলে থেকে আরো সংবাদ
প্রথম পাতায় যান