হংকংয়ে ২০২৪ পর্যন্ত আইসোলেশন নীতি থাকতে পারে: রিপোর্ট | সমাজ সংস্কৃতি | DW | 26.01.2022

ডয়চে ভেলের নতুন ওয়েবসাইট ভিজিট করুন

dw.com এর বেটা সংস্করণ ভিজিট করুন৷ আমাদের কাজ এখনো শেষ হয়নি! আপনার মতামত সাইটটিকে আরো সমৃদ্ধ করতে পারে৷

  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

হংকং

হংকংয়ে ২০২৪ পর্যন্ত আইসোলেশন নীতি থাকতে পারে: রিপোর্ট

হংকংয়ের ইউরোপিয়ান চেম্বার অফ কমার্সের এক খসড়া প্রতিবেদন বলছে, হংকংয়ে ২০২৪ সালের শুরু পর্যন্ত করোনার কঠোর নীতি চালু থাকতে পারে৷ বার্তা সংস্থা রয়টার্স প্রতিবেদনটি দেখেছে৷ তবে এটি এখনও প্রকাশ করা হয়নি৷

ফাইল ফটো

ফাইল ফটো

খসড়া প্রতিবেদনে বলা হয়, ২০২৪ সাল পর্যন্ত কঠোর নীতি চালু থাকলে বিদেশি কোম্পানিগুলো তাদের কার্যালয় ও কর্মী সিঙ্গাপুর কিংবা সৌলের মতো জায়গায় সরিয়ে নিতে পারে৷ সেক্ষেত্রে ফিন্যান্সিয়াল হাব বা আর্থিক কেন্দ্রবিন্দু হিসেবে হংকংয়ের পরিচিতি ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে৷

এতে বলা হয়, ১৪০ কোটি নাগরিককে চীন তার নিজস্ব এমআরএনএ টিকা না দেয়া পর্যন্ত হংকংয়ে কঠোর নীতি থাকতে পারে৷ ২০২৩ সালের শেষ কিংবা ২০২৪ সালের শুরু পর্যন্ত এই কাজ চলতে পারে৷ এখন পর্যন্ত চীন তার নাগরিকদের দেশে তৈরি সিনোফার্ম ও সিনোভ্যাকের টিকা দিয়েছে৷ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলছে, করোনা মোকাবিলায় সিনোভ্যাকের টিকা মাত্র ৫১ শতাংশ ও সিনোফার্মের টিকা ৭৯ শতাংশ কার্যকর৷ আর বায়োনটেক-ফাইজার ও মডার্নার মতো এমআরএনএ টিকা ৯৫ শতাংশ কার্যকর৷ এছাড়া চীনের টিকাগুলোর কার্যকারিতার মেয়াদও খুব বেশিদিন স্থায়ী হয় না বলে গবেষণায় জানা গেছে৷ 

২০২১ সালে হংকংয়ে করোনা নিয়ন্ত্রণে থাকলেও চলতি মাসে সংক্রমণ অনেক বেড়েছে৷ বুধবার নতুন করে ১০৭ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন৷ ফলে টানা চারদিন সংক্রমণের সংখ্যা তিন অংক পেরিয়ে গেছে৷

ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞার কারণে বর্তমানে হংকং বিশ্বের অন্যতম বিচ্ছিন্ন এলাকায় পরিণত হয়েছে৷ খুব কম সংখ্যক মানুষকে হংকংয়ে ঢুকতে দেয়া হচ্ছে৷ তার চেয়েও কম মানুষকে ট্রানজিট করতে দেয়া হচ্ছে৷

এদিকে আর্থিক কেন্দ্রবিন্দু হিসেবে হংকংয়ের প্রতিদ্বন্দ্বী সিঙ্গাপুরে সীমান্ত খুলে দেয়াসহ করোনার নীতিমালা সহজ করা হচ্ছে৷ সিঙ্গাপুরের প্রায় ৯১ শতাংশ মানুষ করোনার পূর্ণ টিকা পেয়েছেন৷ হংকংয়ের ক্ষেত্রে সংখ্যাটি মাত্র ৭০ শতাংশ৷ হংকংয়ের বয়স্ক মানুষদের বেশিরভাগ এখনও টিকা নেননি বা পাননি৷

ইউরোপিয়ান চেম্বার অফ কমার্স হংকং কর্তৃপক্ষকে টিকাদান কর্মসূচিতে গতি আনার পরামর্শ দিয়েছে৷ এছাড়া কোয়ারান্টিনের মেয়াদ ২১ দিন থেকে কমিয়ে সাত বা ১৪ দিন করার পরামর্শ দেয়া হয়েছে৷

জেডএইচ/কেএম (রয়টার্স)