স্পেসএক্স যানে চেপে নিরাপদে ফিরলেন দুই মহাকাশচারী | সমাজ সংস্কৃতি | DW | 03.08.2020
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

যুক্তরাষ্ট্র

স্পেসএক্স যানে চেপে নিরাপদে ফিরলেন দুই মহাকাশচারী

রোববার মানুষবাহী বেসরকারি মহাকাশযানের প্রথম সফল অভিযান পূর্ণ হল৷ ফ্লোরিডা উপকূলে পানির উপর স্পেস ড্র্যাগনের অবতরণের ফলে অ্যামেরিকাকে আর রাশিয়ার উপর নির্ভর করতে হবে না৷

বিশ্বজুড়ে করোনা সংকটের মাঝে সুখবরের সংখ্যা কমে গেছে৷ তাই রোববার আন্তর্জাতিক স্পেস স্টেশন থেকে দুই মহাকাশচারী যখন নিরাপদে পৃথিবীতে ফিরে এলেন, তখন সেই ঘটনাকে ঘিরে কিছুটা আনন্দ-উচ্ছ্বাস দেখা গেল৷ একাধিক কারণে এই মিশন ছিল ঐতিহাসিক৷ এই প্রথম বেসরকারি স্পেসএক্স মহাকাশযান ব্যবহার করে মহাকাশে মানুষের যাতায়াত সম্ভব হল৷ তাছাড়া ২০১১ সালে মার্কিন স্পেশ শাটল বা মহাকাশফেরি বিপর্যয়ের পর রাশিয়ার উপর নির্ভরতা কাটিয়ে প্রায় এক দশক পর অ্যামেরিকা থেকেই মহাকাশচারীরা আইএসএস যাত্রা শুরু করে সেটি সম্পূর্ণ করলেন৷ শুধু তাই নয়, ১৯৭৫ সালের পর এই প্রথম মার্কিন মহাকাশ সংস্থা নাসার মহাকাশচারীরা আবার পানির উপর অবতরণ করলেন৷

NASA SpaceX-Team zurück auf der Erde

বেনকেন ও হার্লি ৬৪ দিন পর আবার পৃথিবীতে ফিরলেন

প্রায় ১৯ ঘণ্টার যাত্রার পর বব বেনকেন ও ডুগ হার্লি রোববার স্পেসএক্স ক্রু ড্র্যাগন মহাকাশযানে করে ফ্লোরিডা উপকূলের কাছে মেক্সিকো উপসাগরে নামেন৷ যাত্রার শেষ পর্যায়ের জন্য দুই মহাকাশচারীকে ঘুম থেকে তুলে তাদের ছেলেদের কণ্ঠে রেকর্ডিং শোনানো হয়৷ দুই ছেলেই যে যার বাবাকে দ্রুত বাসায় ফেরার জন্য তাগাদা দিয়েছে৷ চারটি বড় প্যারাশুট যানটির তীব্র গতি কমিয়ে নিরাপদে পানিতে অবতরণ করতে সাহায্য করে৷ তার আগে আইএসএস থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে বায়ুমণ্ডলে প্রবেশের সময়ে ঘর্ষণ প্রতিরোধ করতে ক্যাপসুলের হিট শিল্ড বা তাপ নিরোধক স্তরও প্রস্তুত করা হয়৷ অবতরণের সময়ে মেক্সিকো উপসাগরে প্রবল ঝড়ের পূর্বাভাষ থাকলেও শেষ পর্যন্ত কোনো অঘটন ঘটে নি৷ ক্যাপসুলের অবস্থা পরীক্ষা করে সেটিকে জাহাজে তুলে নেওয়া হয়৷ মার্কিন উপকূলরক্ষী বাহিনীর তৎপরতা সত্ত্বেও কিছু বেসরকারি নৌকা জায়গাটির কাছাকাছি আসার চেষ্টা করায় দুশ্চিন্তা দেখা দেয়৷ তবে ঠিক সময়ে সেগুলিকে থামানো সম্ভব হয়েছিল৷

অবতরণের প্রায় এক ঘণ্টা পর বেনকেন ও হার্লি ক্যাপসুল থেকে বেরিয়ে প্রায় ৬৪ দিন পর আবার পৃথিবীর তাজা বাতাস গ্রহণ করেন৷ তারপর শারীরিক পরীক্ষার জন্য তাঁদের নিয়ে যাওয়া হয়৷ বিশেষ করে মাধ্যাকর্ষণ শক্তির সঙ্গে আবার মানিয়ে নেওয়া শরীরের জন্য চ্যালেঞ্জ হয়ে উঠতে পারে বলে নাসা জানিয়েছে৷ 

সফল অভিযান সম্পর্কে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প এক টুইট বার্তায় ৪৫ বছর পর মহাকাশচারীদের প্রথম ‘স্প্ল্যাশডাউন’-এর প্রশংসা করেন৷ দুই মাসের সফল অভিযানের পর নাসা মহাকাশচারীদের প্রত্যাবর্তন সম্পর্কে তিনি সন্তুষ্টি প্রকাশ করেন৷

এই সফল অভিযানের ফলে এলন মাস্ক-এর স্পেসএক্স কোম্পানি নাসার চূড়ান্ত ছাড়পত্র পাবে বলে ধরে নেওয়া হচ্ছে৷ সে ক্ষেত্রে ‘ক্রু ড্র্যাগন’ ভবিষ্যতে নিয়মিত মহাকাশচারীদের আইএসএস-এ নিয়ে যেতে পারবে৷ প্রথমে সেখানে শুধু মালপত্র পৌঁছানোর পর এই কোম্পানি ধীরে ধীরে মানুষ নিয়ে যাবার ক্ষেত্রে সাফল্য অর্জন করেছে৷ ভবিষ্যতে পর্যটকদেরও মহাকাশে নিয়ে যাবার পরিকল্পনা রয়েছে৷ 

স্পেসএক্স মহাকাশযানের সাফল্যের ফলে রাশিয়ার উপর অ্যামেরিকার নির্ভরতাও কমে গেল৷ এতকাল প্রত্যেক উড়ালের জন্য নয় কোটি চল্লিশ লাখ ডলারেরও বেশি অঙ্ক ব্যয় করে রাশিয়ার সোয়ুজ মহাকাশযানে করে মার্কিন মহাকাশচারী পাঠানো হতো৷ শুধু অর্থের কারণে নয় নয়, অ্যামেরিকার জন্য এমন অসহায় অবস্থা অত্যন্ত অস্বস্তির কারণ ছিল৷ এলন মাস্ক উচ্চ্বাস প্রকাশ করে বলেন, এবার চাঁদ ও মঙ্গলগ্রহেও মানুষ পা রাখতে চলেছে৷

এসবি/কেএম (ডিপিএ, এএফপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন