স্থানীয় খাবার খান, পরিবেশের উপর চাপ কমান | অন্বেষণ | DW | 30.08.2013
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

অন্বেষণ

স্থানীয় খাবার খান, পরিবেশের উপর চাপ কমান

কস্টারিকার জৈব আনারস কিংবা আর্জেন্টিনার নাশপাতি৷ রাসায়নিক সার, ক্ষতিকারক কীটনাশক ব্যবহার না করে চাষ করা হয় এগুলো৷ বন বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষণায় দেখা গেছে, জার্মানিতে প্রতি দু'টি জৈব আপেলের মধ্যে একটি আমদানি করা৷

আনেটে শ্ভোলেন-ফ্ল্যুমান একজন জৈব খাদ্যের ক্রেতা৷ তিনি শহরের মেয়রও৷ আনেটে বিশ্বাস করেন, একজন ক্রেতা কোন ধরনের খাদ্য কিনবেন, সেটা এখনো তাঁর নিজস্ব পছন্দের ব্যাপার৷ তিনি বলেন, ‘‘আমি শুধুমাত্র স্থানীয় ফল কিনি, কেননা আমি জানি এগুলো তাজা এবং বেশ সুস্বাদু৷'’

জার্মানির ডেয়ার লাইয়েনহোফ-এর চেয়ে বেশি স্থানীয় হওয়া সম্ভবত আর কারো পক্ষে সম্ভব নয়৷ কারণ জৈব খাদ্যের এই দোকানের ঠিক পেছনেই নিজস্ব শস্যক্ষেত্র৷ গত প্রায় ত্রিশ বছর ধরে এই প্রতিষ্ঠানের মালিকরা জৈব পদ্ধতিতে চাষাবাদ করছেন৷ কাচের ঘরে পরাগযোগের জন্য বিশেষ ধরনের ভোমর কেনেন তারা৷ বছরে তিনবার ফসল ফলাতে এটা দরকার৷ আর খেতের প্রয়োজনে সবুজ সার উৎপাদন করেন তারা৷ ডেয়ার লাইয়েনহোফ-এর অংশীদার হেলগো স্মিট এই বিষয়ে বলেন, ‘‘সবুজ সার একসময় নিজে থেকেই দুর্বল হয়ে মাটিতে মিশে গিয়ে তাকে উর্বর করে তোলে৷ এটা করার জন্য আমাদের মেশিনের দরকার হয়না৷ প্রকৃতিই কাজটি করে দেয়৷''

Deutschland Flash-Galerie Biologische Landwirtschaft Biohof

স্থানীয় খাবার স্বাস্থ্যকর ও পরিবেশবান্ধব

স্থানীয়ভাবে খাদ্য উৎপাদনের এই ধারায় নতুন আরেকটি বিষয় যোগ হচ্ছে৷ শহুরে পদ্ধতিতে মৌমাছি পালন৷ প্রতিবেশীদের বাগানে ক্লাউস হ্যোলার-এর বিশটির বেশি মৌচাক আছে৷ একজন শখের মৌমাছি পালক হলেও তিনি এসব ক্ষুদ্র মধু উৎপাদকদের উদ্যোগকে পূর্ণ সময়ের কাজ মনে করেন৷ তিনি বলেন, ‘‘এখানে আমাদের একটি বড় সুবিধা আছে৷ বছরের শুরু থেকেই, অনেক সময় জুড়ে, অনেক ফুল ফোটে৷ অনেক বৈচিত্র্যও রয়েছে, যেমনটা আজকাল আর গ্রামাঞ্চলে দেখা যায় না৷ ফলে শহুরে পদ্ধতিতে মৌমাছি পালন প্রত্যন্ত অঞ্চলের তুলনায় বেশি স্বাস্থ্যসম্মত এবং লাভজনক৷''

পরিবারের সহায়তা নিয়ে পুরোপুরি প্রাকৃতিক মধুই সংগ্রহ করেন হ্যোলার৷ এই মধুতে বাড়তি কিছু যোগ করা হয়না, কিছু বাদও দেওয়া হয়না৷ তিনি বলেন, ‘‘ইন্ডাস্ট্রিয়াল হার্ভেস্ট পদ্ধতিতে মধু গরম করা হয় এবং খুব সূক্ষ্ম ফিল্টার ব্যবহার করে তা নিংড়ানো হয়৷ ফলে অনেক উপাদান হারিয়ে যায়৷ আর আমাদের রয়েছে প্রাকৃতিকভাবে উৎপাদিত মধু, যার মধ্যে মোমের ক্ষুদ্র টুকরা থাকতে পারে অথবা অন্য সবকিছু যা মৌমাছি মধুতে নিয়ে আসে৷ কেননা এগুলো শুধুমাত্র জালিকাপড় দিয়ে ছেঁকে নেয়া হয়৷''

ইন্টারনেট লিংক

বিজ্ঞাপন