স্ত্রী হত্যার ঘটনায় সাবেক এসপি বাবুল রিমান্ডে | বিশ্ব | DW | 12.05.2021
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ

স্ত্রী হত্যার ঘটনায় সাবেক এসপি বাবুল রিমান্ডে

পাঁচ বছর আগে চট্টগ্রামে মাহমুদা আক্তার মিতুকে হত্যার ঘটনায় তার স্বামী সাবেক পুলিশ কর্মকর্তা বাবুল আক্তারকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পাঁচ দিনের রিমান্ডে পাঠিয়েছে আদালত।

ডয়চে ভেলের কন্টেন্ট পার্টনার বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম জানিয়েছেন, এ তদন্ত সংস্থার প্রধান, পুলিশের উপ-মহাপরিদর্শক বনজ কুমার মজুমদার বুধবার ঢাকার ধানমন্ডিতে পিবিআই সদরদপ্তরে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান৷ তিনি বলেছেন, ‘‘মিতু হত্যার সাথে বাবুল আক্তারের জড়িত থাকার প্রমাণ পেয়েছে পিবিআই৷ তার বিরুদ্ধে হত্যা মামলা দায়ের করা হবে৷ পরে তাকে আদালতে তোলা হবে৷''

এদিকে, মাহমুদা আক্তার মিতু হত্যার ঘটনায় তার স্বামী সাবেক এসপি বাবুল আক্তারের বিরুদ্ধে নতুন করে হত্যা মামলা দায়ের করতে থানায় হাজির হয়েছেন মিতুর বাবা সাবেক পুলিশ কর্মকর্তা মোশাররফ হোসেন৷ বুধবার বেলা সোয়া ১২টার দিকে চট্টগ্রামের পাঁচলাইশ থানায় হাজির হয়ে উপস্থিত সাংবাদিকদের তিনি বলেন, এ মামলায় বাবুলসহ আটজনকে আসামি করা হবে৷

 বাবুল আক্তারের করা মামলায় চূড়ান্ত প্রতিবেদন জমা দিতে পিবিআইয়ের কমর্কর্তারা চট্টগ্রামের আদালত ভবনে হাজির হন বেলা সোয়া ১২টার দিকে৷

একই সময়ে চট্টগ্রামের পাঁচলাইশ থানায় যান মিতুর বাবা মোশাররফ হোসেন, যিনি ২০১৭ সালের জুন থেকে বাবুল আক্তারকে দায়ী করে আসছেন৷

এরপর বেলা আড়াইটার দিকে পুলিশের গাড়িতে করে সাবেক এসপি বাবুল আক্তারকে চট্টগ্রামের আদালত ভবনে নেওয়া হয়৷

এক সময় চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত উপকমিশনারের দায়িত্ব পালন করা বাবুল মঙ্গলবার দুপুরে চট্টগ্রামে পিবিআইয়ের মেট্রো অঞ্চলের কার্যালয়ে জিজ্ঞাসাবাদের মুখোমুখী হওয়ার পর থেকেই তদন্তকারীদের হেফাজতে ছিলেন৷

বাবুলকে মহানগর হাকিম সারোয়ার জাহানের আদালতে হাজির করার পর সাতদিনের রিমান্ডের আবেদন করা হয় পিবিআইয়ের পক্ষ থেকে৷ শুনানি শেষে বিচারক সাবেক এই পুলিশ কর্মকর্তাকে ৫ দিনের হেফাজতে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের অনুমতি দেন৷

এর আগে বেলা সাড়ে ১১টার দিকে ঢাকায় সংবাদ সম্মেলন করে পিবিআই প্রধান বনজ কুমার মজুমদার বলেন, মিতু হত্যার ঘটনায় ২০১৬ সালে বাবুল আক্তারের করা মামলায় চূড়ান্ত প্রতিবেদন আদালতে জমা দেবে পিবিআই৷

"মিত্যু হত্যার সঙ্গে স্বামী বাবুল আক্তারের সম্পৃক্ততার প্রমাণ মিলেছে। এ জন্য তার বিরুদ্ধে হত্যা মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে৷''

বনজ কুমার বলেছেন, খ্যাতিমান পুলিশ অফিসার ছিলেন বাবুল আক্তার৷ অনেক কাজ করেছেন৷ তার স্ত্রীকে গুলি করে ও কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে৷ চাঞ্চল্যকর মামলা হিসেবে এটি পরিগণিত৷ বাবুল আক্তার বাদী হয়েছিলেন৷ পুরোনো মামলায় ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিয়েছেন দু'জন৷

বনজ কুমার বলেন, মামলার বাদীকে ইচ্ছা করলেই গ্রেপ্তার করা যায় না৷ বাদীকে গ্রেপ্তার করতে হলে চূড়ান্ত রিপোর্ট দিতে হবে৷ খুলশী থেকে ফাইনাল রিপোর্ট জমা দিতে আজই কোর্টে যাচ্ছে পুলিশ৷ এটি দাখিলের পর নতুন মামলা হবে৷ নতুন মামলায় এক নম্বর আসামি হবেন বাবুল আক্তার৷

এপিবি/কেএম (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)

নির্বাচিত প্রতিবেদন