স্টার ওয়ার্সের লেজার তলোয়ার নিয়ে অভিনব প্রতিযোগিতা | অন্বেষণ | DW | 22.08.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

অন্বেষণ

স্টার ওয়ার্সের লেজার তলোয়ার নিয়ে অভিনব প্রতিযোগিতা

ডিজিটাল যুগ আসার আগেই চলচ্চিত্রের পর্দায় কল্পবিজ্ঞানকে কীভাবে প্রতিষ্ঠা ও তার বিপুল জনপ্রিয়তা নিশ্চিত করা যায়, তা দেখিয়ে দিয়েছিল স্টার ওয়ার্স সিরিজ৷ সেই ছবিরই একটি উপকরণ জনপ্রিয় ক্রীড়া হয়ে উঠছে৷

ফ্রান্সের এক ক্রীড়াকেন্দ্রে অঁতনি লোকোকো নিজেকে স্টার ওয়ার্স সিরিজের অশুভ ও অন্ধকার শিবিরের যোদ্ধায় রূপান্তরিত করেছেন৷ দেখলে ‘স্টার ওয়ার্স' চলচ্চিত্রের সেট মনে হলেও সেখানে সত্যি লেজার তলোয়ারের প্রতিযোগিতা চলছে৷ লোকোকো বলেন, ‘‘এখানে সবকিছুই স্টার ওয়ার্সকে কেন্দ্র করে চলছে৷ শিশু হিসেবেও আমি স্টার ওয়ার্সের স্বপ্ন দেখতাম৷ ছবির মতোই লেজার তলোয়ার নিয়ে খেলার স্বপ্ন ছিল৷ বয়স যতই হোক না কেন, ছবির মতোই এ সব নিয়ে মেতে থাকা যায়৷''

স্টার ওয়ার্স সিরিজ থেকে প্রেরণা নিয়ে ফ্রান্সে লেজার তলোয়ার নিয়ে ফেন্সিং-এর প্রবণতা বাড়ছে৷ মার্কিন পরিচালক জর্জ লুকাস এই জগত সৃষ্টি করেছিলেন৷ অতীত যুগের এক কাল্পনিক গ্যালাক্সি বা ছায়াপথই এই সিরিজের প্রেক্ষাপট৷ সেখানে জেডাই নাইটরা ক্ষমতার আলোকিত অর্থাৎ শুভ শক্তি এবং সিট নাইটরা অন্ধকার অর্থাৎ অশুভ প্রান্তের প্রতিনিধি৷ শুভ ও অশুভ শক্তির মধ্যে লাগাতার সংগ্রামের মূল হাতিয়ার এই লেজার তরবারি৷

যেমনটা এই মঞ্চেও ঘটছে৷ অঁতনি লোকোকো অশুভ শক্তি বেছে নিয়েছেন৷ চরিত্র হিসেবে তিনি সিথ লর্ড ডার্থ মল-কে বেছে নিয়েছেন৷ এর কারণ ব্যাখ্যা করে তিনি বলেন, ‘‘এটি সত্যি এক অনন্য চরিত্র৷ স্টার ওয়ার্স কাহিনিতে একমাত্র তাঁরই দুমুখো লেজার তলোয়ার রয়েছে৷ আমি লাঠি নিয়ে অনেক প্রশিক্ষণ নিয়েছি৷ এটি চালানোর কায়দা অনেকটাই সেরকম৷ আমারও যেন ডার্থ মলের মতো দুমুখো তলোয়ার রয়েছে৷ এভাবেই সবকিছু এগোলো৷''

ভিডিও দেখুন 04:01

আপনিও খেলতে পারেন স্টার ওয়ার্স

তবে প্যারিসের উপকণ্ঠে এই প্রতিযোগিতায় দুমুখো তলোয়ার নিয়ে খেলার অনুমতি নেই৷ তা সত্ত্বেও অঁতনি এই প্রতিযোগিতার ফেভারিট হিসেবে পরিচিত৷ তিনি আগের দুটি প্রতিযোগিতায় জিতেছেন৷ এবার ফ্রান্সের প্রায় ৪০ জন প্রতিযোগীর সঙ্গে লড়াই করে তাঁকে সেই সম্মান ধরে রাখতে হবে৷

৩ মিনিট ধরে এগিয়ে থাকলে অথবা ১৫ পয়েন্ট পেলে ম্যাচ জেতা যায়৷ প্রতিপক্ষের মাথা ছুঁতে পারলে ৫ পয়েন্ট পাওয়া যায়, পা ছুঁলে ৩ পয়েন্ট৷ অঁতঁ অঁদ্রে-র কাছে এমন ফেন্সিং মূল ক্রীড়ার সমকক্ষ৷ তিনি বলেন, ‘‘স্টার ওয়ার্স ভালবাসেন বলে অনেকে এটা করেন৷ অন্যদের কাছে এর নন্দনতত্ত্ব বা খেলাটাই আকর্ষণীয়৷ আমি খেলা হিসেবেই এটি পছন্দ করি৷ স্টার ওয়ার্স পছন্দ করলেও ক্রীড়া ও শৃঙ্খলা আমার কাছে বেশি জরুরি৷''

পুরুষ-অধ্যুষিত এই জগতে আমঁদিন লকঁত হাতে গোনা কয়েকজন নারীদের একজন৷ তিনি বলেন, ‘‘বেশি নারী না থাকলেও যারা আছে, তারা নিজেদের উজাড় করে দেয়৷ আমরা আনন্দ নিতে চাই এবং দেখাতে চাই যে আমরাও পারি৷''

অঁতনি লোকোকো প্রায় ৩ বছর ধরে লেজার ফেন্সিং চর্চা করছেন৷ তিনিই এই ক্রীড়ার অন্যতম পথিকৃত৷ ফ্রান্সের ফেন্সিং সংগঠনের প্রধান স্যার্শ ওবেলি ২০১৮ সালের মে মাসে এই ক্রীড়াকে আনুষ্ঠানিক স্বীকৃতি দেন৷ বিশ্বের প্রথম এবং একমাত্র সংগঠন হিসেবে ফ্রান্সই এ ক্ষেত্রে নজর কেড়েছে৷ ওবেলি বলেন, ‘‘আমরা তরুণ প্রজন্মের মধ্যে উৎসাহ জাগিয়ে তোলার চেষ্টা করছি৷ স্টার ওয়ার্সের জগত তাদের কাছে আকর্ষণীয়৷ আমাদের ক্রীড়ার মধ্যে সেই উৎসাহ টেনে আনার চেষ্টা করছি৷ লেজার ফেন্সিং সত্যিকারের এক ক্রীড়া৷ একবার পরখ করে দেখলে আপনি বুঝবেন, ৫ মিনিট পরেই ঘাম বেরিয়ে আসবে৷''

প্রচলিত ফেন্সিং-এর মতো লেজার ফেন্সিং-ও কোনো এক সময়ে অলিম্পিকে স্থান পাবে বলে এই প্রতিযোগিতায় সবার আশা৷ তবে এই ক্রীড়ার সঙ্গে যুক্ত মানুষ সবার আগে বাকিদেরও স্টার ওয়ার্স জ্বরে আক্রান্ত করতে চান, ঠিক চলচ্চিত্রকে ঘিরে যেমনটা হয়েছিল৷

মারিনা স্ট্রাউস/এসবি

 

ইন্টারনেট লিংক

এই বিষয়ে অডিও এবং ভিডিও

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন