সৌদি আরবে মিসাইল হামলা | বিশ্ব | DW | 26.03.2018
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

মধ্যপ্রাচ্য

সৌদি আরবে মিসাইল হামলা

রবিবার রাতে সৌদি আরবে মিসাইল হামলা চালায় ইয়েমেনের হুতি বিদ্রোহীরা৷যদিও প্রতিটি মিসাইলই অকেজো করা হয়েছে৷ ঘটনায় এখনো পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে একজনের৷

এবার সরাসরি মিসাইল হামলা হলো সৌদি আরবে৷ অভিযোগ, ইয়েমেনের হুতি বিদ্রোহীরা সৌদি আরবের উপর এই হামলা চালিয়েছে৷ তবে সৌদি আরবের দাবি, প্রতিটি মিসাইলই অকেজো করতে সমর্থ হয়েছে তারা৷ ভেঙে পড়া একটি মিসাইলের আঘাতে সৌদি আরবের রাজধানী রিয়াদে এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে বলে খবর৷ ওই ব্যক্তি জন্মসূত্রে মিশরের৷

৩ বছর হয়ে গেল সৌদি আরবের সঙ্গে সরাসরি সংঘর্ষে নেমেছে ইয়েমেনের হুতি বিদ্রোহীরা৷ ঘটনার পর তাদের মুখপাত্র আক্রমণের দায় শিকার করেছেন৷ এবং বলা হয়েছে, ভবিষ্যতে এ ধরনের আরো হামলা চলবে৷

হুতি সূত্রের খবর, মোট ৮টি মিসাইল সৌদি আরবের দিকে ছোড়া হয়েছিল৷ লক্ষ্য ছিল রিয়াদের বিমানবন্দরসহ দেশের আরো বেশ কয়েকটি অঞ্চল৷ রবিবার মধ্য রাতে আচমকাই রিয়াদের আকাশে দেখা যায় সেই মিসাইলগুলি৷ তখনই মিসাইল অকেজো করার অস্ত্র ব্যবহার করে সৌদি আরবের সেনা৷ সেই ছবিও প্রকাশ করা হয়েছে সৌদি সেনার তরফ থেকে৷

ইয়েমেনে সৌদি আরবের সাহায্যপ্রাপ্ত দলের মুখপাত্র আল মালকি বলেন, ঘটনা থেকে স্পষ্ট, ইরানের মদতেই এ ধরনের আক্রমণ চালাতে পারছে হুতি বিদ্রোহীরা৷ মিসাইলগুলিও ইরানের দেওয়া বলেই ধারণা করা হচ্ছে৷ বস্তুত, দীর্ঘদিন ধরেই ইয়েমেনের এই বিদ্রোহীদের সাহায্য করছে ইরান৷ অন্যদিকে অপর গোষ্ঠীটিকে সাহায্য করছে সৌদি আরব৷ সে কারণেই সৌদি আরবের ওপর বারংবার হামলা চালানোর চেষ্টা করছে হুতি বিদ্রোহীরা৷ তাদের নেতা আবদেল মালেক আল হুতি জানিয়েছেন, ভবিষ্যতে এ ধরনের আরো আক্রমণ হবে সৌদি আরবের ওপর৷তাদের বিদ্রোহীরা জীবন উৎসর্গ করতেও তৈরি বলেও জানিয়েছেন তিনি৷

এর আগে ইয়েমেনের বিদ্রোহীদের ওপর আক্রমণ চালিয়েছিল সৌদি আরব৷ গত ৩ বছরে ইয়েমেনে প্রায় ১০ হাজার মানুষের মৃত্যু হয়েছে বলে খবর৷ শুধু তাই নয়, জাতিসংঘের দাবি, সৌদির আক্রমণের কারণেই ইয়েমেনে ভয়ংকর মন্বন্তর হয়েছিল৷ স্বাভাবিকভাবেই নতুন করে সংঘর্ষ শুরু হওয়ায় চিন্তিত ইউরোপসহ পশ্চিম বিশ্ব৷

এসজি/এসিবি (রয়টার্স)

২৮ ফেব্রুয়ারির ছবিঘরটি দেখুন...

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন