সৌদি আরবে অস্ত্র আমদানি বেড়েছে ২২৫ শতাংশ | বিশ্ব | DW | 12.03.2018
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

সৌদি আরবে অস্ত্র আমদানি বেড়েছে ২২৫ শতাংশ

মধ্যপ্রাচ্যে গত পাঁচ বছরে অস্ত্র আমদানি দ্বিগুণেরও বেশি বেড়েছে বলে জানিয়েছে সুইডেনভিত্তিক সংস্থা ‘স্টকহোম ইন্টারন্যাশনাল পিস রিসার্চ ইন্সটিটিউট' বা সিপ্রি৷ সৌদি আরবে অস্ত্র আমদানি ২২৫ শতাংশ বেড়েছে বলে জানায় সংস্থাটি৷

সোমবার প্রকাশিত সিপ্রির প্রতিবেদনে বলা হয়, সৌদি আরব ২০১৩-২০১৭ মেয়াদে ২০০৮-২০১২ সময়কালের তুলনায় ২২৫ শতাংশ বেশি অস্ত্র কিনেছে৷ গত কয়েক বছর ধরে ইয়েমেনে ইরান-সমর্থিত হুথি বিদ্রোহীদের বিরুদ্ধে অভিযান চালাচ্ছে দেশটি৷

সিপ্রির গবেষণা বলছে, সৌদি আরব বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম অস্ত্র আমদানিকারক৷ গত সপ্তাহে দেশটি ব্রিটেন থেকে ৪৮টি অত্যাধুনিক ফাইটার জেট কেনার চুক্তি করেছে৷ মানবাধিকার কর্মীদের অভিযোগ, পশ্চিমা বিশ্বের কাছে থেকে কেনা অস্ত্র দিয়ে সৌদি আরব ইয়েমেনে নিরীহ মানুষ হত্যা করছে৷ এদিকে, চলতি বছরের শুরুতে জার্মান সরকার জানিয়েছে, তারা ইয়েমেন যুদ্ধে লিপ্ত কারও কাছে অস্ত্র বিক্রির অনুমোদন দেবে না৷ উল্লেখ্য, জার্মানি বিশ্বের চতুর্থ অস্ত্র বিক্রেতা৷ গত পাঁচ বছরে জার্মানির অস্ত্র বিক্রি আগের পাঁচ বছরের তুলনায় ১৪ শতাংশ কমলেও মধ্যপ্রাচ্যে অস্ত্র বিক্রি বেড়েছে ১০৯ শতাংশ৷

অন্যদিকে, অস্ত্রবিক্রেতা হিসেবে এখনও শীর্ষে আছে যুক্তরাষ্ট্র৷ গত পাঁচ বছরে তাদের অস্ত্র বিক্রি বেড়েছে প্রায় ২৫ শতাংশ৷ এই পাঁচ বছরে সারা বিশ্বে বিক্রি হওয়া মোট অস্ত্রের এক-তৃতীয়াংশই করেছে যুক্তরাষ্ট্র৷ এছাড়া যুক্তরাষ্ট্রের মোট অস্ত্র বিক্রির অর্ধেকই গেছে মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশে৷ সিপ্রির কর্মকর্তা অডে ফ্লরান্ট বলছেন, ‘‘ওবামা প্রশাসনের সময় স্বাক্ষরিত হওয়া চুক্তির আওতায় ২০১৩-১৭ মেয়াদে যে পরিমাণ অস্ত্র বিক্রি করা হয়েছে তা নব্বই দশকের শেষে যত অস্ত্র বিক্রি করা হয়েছিল, তার তুলনায় বেশি৷

‘‘এ সব চুক্তি এবং ২০১৭ সালে আরও যত চুক্তি সই হয়েছে তাতে ধরে নেয়া যায়, আগামী কয়েক বছরেও যুক্তরাষ্ট্র অস্ত্র বিক্রির তালিকায় শীর্ষে থাকবে,'' বলেন সিপ্রির ঐ কর্মকর্তা৷

ভারত শীর্ষে

বিশ্বের সবচেয়ে বড় অস্ত্র আমদানিকারক হচ্ছে ভারত৷ বিশ্বে যত অস্ত্র বিক্রি হয় তার ১২ শতাংশের ক্রেতা দেশটি৷ ভারত সবচেয়ে বেশি অস্ত্র কেনে রাশিয়া থেকে, প্রায় ৬২ শতাংশ৷ যুক্তরাষ্ট্র থেকেও ভারতের অস্ত্র আমদানি প্রায় ছয়গুণ বেড়েছে৷ ‘‘পাকিস্তান ও চীনের সঙ্গে উত্তেজনার কারণে ভারতে (যারা এখন অস্ত্র তৈরি করতে সমর্থ হয়নি) অস্ত্রের চাহিদা বাড়ছে,'' বলেন সিপ্রির গবেষক সিমোন ভেজেমান৷ ‘‘অন্যদিকে চীন নিজেদের অস্ত্র তৈরির সামর্থ্য বাড়িয়ে যাচ্ছে এবং এর মাধ্যমে পাকিস্তান, বাংলাদেশ ও মিয়ানমারের সঙ্গে সম্পর্ক মজবুত করছে,'' বলেও মন্তব্য করেছেন তিনি৷

আশুতোষ পান্ডে/জেডএইচ

নির্বাচিত প্রতিবেদন