সোমবার ব্রেক্সিট নিয়ে মীমাংসা হলো না | বিশ্ব | DW | 04.12.2017
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

ব্রিটেন

সোমবার ব্রেক্সিট নিয়ে মীমাংসা হলো না

ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী টেরেসা মে সোমবার ব্রাসেলসে ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে ব্রিটেনের বিচ্ছেদ নিয়ে চূড়ান্ত ঐকমত্য অর্জন করতে পারলেন না৷ আগামী কয়েক দিনে অগ্রগতির আশা করছে দুই পক্ষ৷

সোমবার ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী টেরেসা মে ইউরোপীয় ইউনিয়নের সঙ্গে ঐকমত্যে আসতে পারলেন না৷ বিচ্ছেদ সংক্রান্ত বিষয়গুলির এখনো নিষ্পত্তি হলো না৷ বিশেষ করে ব্রিটেনের উত্তর আয়ারল্যান্ড প্রদেশের সঙ্গে আইরিশ প্রজাতন্ত্রের সীমানা নিয়ে জটিলতা এখনো কাটছে না৷ আয়ারল্যান্ড ও ব্রিটেন এ বিষয়ে ঐকমত্যে আসতে পারলেও ব্রিটেনের জোট সরকারের এক শরিক দল সেই বোঝাপড়া মানতে চাইছে না৷  অন্যদিকে ব্রেক্সিটের পরেও সেই সীমান্তে কোনো পরিবর্তন না আনার প্রস্তাবের দৃষ্টান্ত অনুকরণ করতে চাইছে স্কটল্যান্ড ও লন্ডন শহর৷ ফলে ব্রিটেনের অভ্যন্তরীণ রাজনীতি উত্তাল হয়ে উঠেছে৷

আসলে ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে ব্রিটেনের বিদায়ের সিদ্ধান্ত যতটা সহজ ছিল, বিচ্ছেদ ও ভবিষ্যৎ সম্পর্ক স্থির করার কাজ তটতাই কঠিন হয়ে উঠেছে৷ ইইউ শুরু থেকে যে যাত্রাপথ স্থির করে দিয়েছিল, তা থেকে বার বার বিচ্যুত হয়েছে ব্রিটেন৷ ইইউ-র বাকি সদস্যদের অবস্থান স্পষ্ট – আগে বিচ্ছেদের বিষয়গুলির নিষ্পত্তি করতে হবে, তারপর ভবিষ্যৎ সম্পর্ক নিয়ে আলোচনা হবে৷ এর মধ্যে প্রধান বিষয় হলো ব্রিটেনের বকেয়া চাঁদা, ব্রিটেনে ইইউ নাগরিক ও ইউরোপে ব্রিটিশ নাগরিকদের অধিকার এবং আয়ারল্যান্ড ও ব্রিটেনের স্থলসীমানার ভবিষ্যৎ৷

কিন্তু ব্রিটেন এতকাল সেই বাস্তব অস্বীকার করে সিদ্ধান্ত নিতে বিলম্ব করছিল৷ সোমবার ব্রাসেলসে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী টেরেসা মে ও ইইউ কমিশন প্রধান জঁ ক্লোদ ইয়ুংকার-সহ অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ কর্মকর্তাদের সঙ্গে মিলিত হন৷ আগে থেকেই স্থির ছিল, যে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বিচ্ছেদ সংক্রান্ত বিষয়ে স্পষ্ট জবাব দিলে তবেই ইইউ-র সঙ্গে ভবিষ্যৎ সম্পর্ক নিয়ে আলোচনার সিদ্ধান্ত নেবেন ইইউ নেতারা৷ আগামী ১৫ই ডিসেম্বর তাঁদের শীর্ষ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে৷ তার আগেই ঐকমত্য অর্জন করতে হবে৷ তা না হলে কোনো চুক্তি ছাড়াই ২০১৯ সালে ব্রেক্সিট কার্যকর হবার আশঙ্কা রয়েছে৷ 

টেরেসা মে পড়েছেন উভয় সংকটে৷ তাঁর রাজনৈতিক দুর্বলতার সুযোগ নিয়ে দলের মধ্যে কট্টর ব্রেক্সিটপন্থিরা ইইউ-কে ছাড় দেবার বিষয়ে তর্জনগর্জনকরছেন৷ অন্যদিকে ইইউ-র ধৈর্যের সীমানাও শেষ৷ অথচ ভবিষ্যৎ সম্পর্ক নিয়ে এখনই আলোচনা শুরু না করলে ২০১৯ সালের মধ্যে তা শেষ হবে না৷ ব্রিটিশ শিল্প ও বাণিজ্যজগত সেই অনিশ্চয়তার মুখে আরও ক্ষতিগ্রস্ত হবে৷ 

সোমবার চূড়ান্ত ঐকমত্য অর্জন করা সম্ভব না হলেও আগামী দিনগুলিতে সেই লক্ষ্য পূরণ করতে কাজ করছে দুই পক্ষ৷ ইইউ শীর্ষ সম্মেলনের আগেই তিনটি বিষয়ে চূড়ান্ত নিষ্পত্তি অর্জন করতে চায় দুই পক্ষ৷

এসবি/ডিজি (এএফপি, রয়টার্স)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

এই বিষয়ে অডিও এবং ভিডিও

সংশ্লিষ্ট বিষয়