সু চির আরও চার বছরের কারাদণ্ড | বিশ্ব | DW | 10.01.2022

ডয়চে ভেলের নতুন ওয়েবসাইট ভিজিট করুন

dw.com এর বেটা সংস্করণ ভিজিট করুন৷ আমাদের কাজ এখনো শেষ হয়নি! আপনার মতামত সাইটটিকে আরো সমৃদ্ধ করতে পারে৷

  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

মিয়ানমার

সু চির আরও চার বছরের কারাদণ্ড

লাইসেন্সবিহীন ওয়াকিটকি রাখাসহ একাধিক অভিযোগের মামলায় মিয়ানমারের নেত্রী অং সান সু চির চার বছরের কারাদণ্ড হয়েছে৷

সামরিক জান্তা-শাসিত মিয়ানমারের একটি আদালত আজ সু চিকে এই দণ্ড দেন৷ রায়ের বিষয়ে অবগত একটি সূত্র এসব তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেছে৷

হাতে ব্যবহারের রেডিও (ওয়াকিটকি) অবৈধভাবে রেখে আমদানি-রপ্তানি আইন লঙ্ঘনের অভিযোগে সু চিকে দুই বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে৷
সিগন্যাল জ্যামারের একটি সেট রাখার জন্য সু চিকে এক বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত৷ উভয় দণ্ড একসঙ্গে চলবে৷

গত বছরের পয়লা ফেব্রুয়ারি সেনা অভ্যুত্থানের দিনই সু চির বাসায় অভিযান চালানো হয়৷ তখন তার বাসা থেকে এসব যন্ত্র উদ্ধারের কথা জানিয়েছিল সেনাবাহিনী৷

নির্বাচনী প্রচারণার সময় করোনা সংক্রান্ত বিধিনিষেধ না মানায় আরো দুই বছরের কারাদণ্ডও দেয়া হয়েছে সু চিকে৷ 

এর আগে গত মাসে করোনার বিধিনিষেধ না মানা সংক্রান্ত আরেকটি অভিযোগে তাকে চার বছরের জেল দিয়েছিল দেশটির আদালত৷ পরবর্তীতে দেশটির সামরিক জান্তার প্রধান মিন অং হ্লাইং আদালতের দেয়া শাস্তির অর্ধেক কমিয়ে দুই বছর করেন এবং সু চি নাইপিদোতে নিজের বাসায় গৃহবন্দী থেকে এই সাজা ভোগ করতে পারবেন বলেও জানান৷

সু চির বিরুদ্ধে যেসব অভিযোগ রয়েছে, সেগুলোতে সব মিলিয়ে ১০০ বছরেরও বেশি সাজার সুযোগ রয়েছে৷ 

সু চির সমর্থকদের দাবি তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগগুলো ভিত্তিহীন এবং এর উদ্দেশ্য সু চির রাজনৈতিক ক্যারিয়ার ধ্বংস করা ও সামরিক শাসনকে বৈধতা দেয়া৷

এডিকে/কেএম
 

সংশ্লিষ্ট বিষয়