সিরিয়া ফেরত আইএস জঙ্গি বাংলাদেশে গ্রেপ্তার | বিশ্ব | DW | 08.05.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ

সিরিয়া ফেরত আইএস জঙ্গি বাংলাদেশে গ্রেপ্তার

সিরিয়া থেকে ফেরা এক সন্দেহভাজন আইএস যোদ্ধাকে গ্রেপ্তার করেছে বাংলাদেশের পুলিশ৷ বুধবার এই খবর জানিয়েছে তারা৷

মুতাজ আব্দুল মজিদ কফিলুদ্দিন ব্যাপারি নামের এক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশের কাউন্টার টেররিজম ইউনিট৷ সৌদি আরবে জন্ম নেয়া ৩৩ বছর বয়সি এই ব্যক্তি সিরিয়ায় আইএস-এর হয়ে যুদ্ধ করেছেন বলে জানিয়েছে তারা৷

  গত ফেব্রয়ারিতে মুতাজ বাংলাদেশে আসেন৷ এ সময় তিনি জামাআতুল মুজাহেদিন বাংলাদেশ (জেএমবি)-র সদস্যদের সঙ্গে যোগাযোগ গড়ে তোলেন বলে এএফপিকে জানিয়েছেন পুলিশের কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের কর্মকর্তা ওয়াহিদুজ্জামান নূর৷

তিনি বলেন, ৫ মে তাকে ঢাকার উত্তরার কাছের একটি মসজিদ থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে৷ তার বিরুদ্ধে সন্ত্রাসবিরোধী আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে৷ ‘‘২০১৮ সালে তিনি সিরিয়ায় যান এবং আইএস-এর হয়ে যুদ্ধে অংশ নেন,'' বলেন ওয়াহিদুজ্জামান৷ 

 

স্থানীয় গণমাধ্যম মামলায় উল্লিখিত তথ্যের বরাত দিয়ে জানায়, উত্তরার ১১ নম্বর সেক্টরের বায়তুল নূর জামে মসজিদ থেকে মুতাজকে গ্রেপ্তারের সময় তার অন্য সঙ্গীরা পালিয়ে যায়৷ বাংলাদেশের আসার পর তিনি প্রায় শতাধিক বিদেশি জঙ্গির সঙ্গে যোগযাযোগ করেছেন৷ তার মোবাইল ফোন পরীক্ষা করে এমন তথ্যপ্রমাণ পেয়েছেন তদন্ত কর্মকর্তারা৷ সেখান থেকে আরো তথ্য উদ্ধার করতে তার ব্যবহৃত মোবাইল ফোনটি ফরেনসিক ল্যাবে পাঠানো হবে বলে ইংরেজি দৈনিক ডেইলি স্টারকে জানান এক কর্মকর্তা৷

মামলার বিবরণী অনুযায়ী, মুতাজের বাবা আব্দুল মজিদ ব্যাপারি দশ বছর বয়সে বাংলাদেশ থেকে সৌদি আরব গিয়েছিলেন৷ মুতাজের মা একজন পাকিস্তানী৷ ডয়চে ভেলের কনটেন্ট পার্টনার বিডিনিউজ টুয়েন্টি ফোরডটকমের প্রতিবেদন অনুযায়ী, মুতাজের জন্ম ও বেড়ে ওঠা সৌদি আরবে৷ বাবা কফিল উদ্দিন ব্যাপারির বাড়ি বাংলাদেশের শরীয়তপুর জেলার সখীপুরে৷ তার ১১ সন্তানের একজন মুতাজ বাংলাদেশি পাসপোর্ট নেন সৌদি আরব থেকেই৷

কয়েকবার প্রচেষ্টার পর মুতাজ গত বছরের মে মাসে সিরিয়া যেতে সক্ষম হন৷ সেখানে প্রায় ছয় মাস থাকার পর তুরস্কে চলে যান৷ দেশটিতে গত বছর অভিযান শুরু হলে তিনি বাংলাদেশে পালিয়ে আসেন বলে জানিয়েছে পুলিশ৷

এর আগে আইএস-এর হয়ে সিরিয়ায় লড়তে যাওয়া  বাংলাদেশি জঙ্গিরা দেশে ফিরতে পারেন এমন আশঙ্কায় গত মাসে বিমানবন্দরগুলোতে সতর্কতা জারি করা হয়৷ বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষের কাছে ৫০ জন আইএস জঙ্গির একটি তালিকাও পাঠিয়েছিল কাউন্টার টেররিজম পুলিশ ৷

এফএস/এসিবি (এএফপি, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম, দ্য ডেইলি স্টার)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন