সিরিয়া থেকে শিগগিরই বেরিয়ে আসবো: ট্রাম্প | বিশ্ব | DW | 30.03.2018
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সিরিয়া

সিরিয়া থেকে শিগগিরই বেরিয়ে আসবো: ট্রাম্প

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, সিরিয়া থেকে ‘খুব শিগগিরই’ সেনা প্রত্যাহার করা হবে৷ মধ্যপ্রাচ্যের যুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের সাত ট্রিলিয়ন মার্কিন ডলার অপচয় হয়েছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি৷

যুক্তরাষ্ট্রের ওহাইয়ো রাজ্যে শিল্প শ্রমিকদের উদ্দেশে দেয়া ভাষণে বৃহস্পতিবার ট্রাম্প বলেন যে, তথাকথিত জঙ্গি গোষ্ঠী ইসলামিক স্টেটের কাছ থেকে সিরিয়াকে মুক্ত করার কাজ প্রায় শেষ৷ তাই শিগগিরই ঘরে ফিরতে পারবেন সেনাসদস্যরা৷

‘‘আমরা শিগগিরই ফিরে আসবো৷ এবার অন্যরা সেখানে দায়িত্ব পালন করুক’’, বলেন তিনি৷ 

‘‘(আইএস) খেলাফতের শতভাগই আমরা মুক্ত করতে সক্ষম হতে যাচ্ছি৷ খুব তাড়াতাড়িই তা সম্ভব হতে যাচ্ছে’’, যোগ করেন ট্রাম্প৷ সেনারা খুব দ্রুতই ঘরে পরিবারের কাছে ফিরতে পারবে বলে জানিয়ে ট্রাম্প বলেন, ‘‘আমরা ঘরে ফিরে আসবো, যেটি আমাদের আসল জায়গা এবং যেখানে আমরা থাকতে চাই৷’’

পূর্ব সিরিয়ায় দুই হাজারেরও বেশি মার্কিন সেনা স্থানীয় মিলিশিয়াদের সঙ্গে মিলে আইএসকে হটানোর চেষ্টা করছে৷

এদিকে, এ বিষয়ে স্টেট ডিপার্টমেন্টের মুখপাত্র হেদার নাওয়ার্টকে জিজ্ঞেস করা হলে তিনি জানান যে, প্রেসিডেন্টের এই ঘোষণার বিষয়ে কিছু জানেন না তিনি৷

গেল জানুয়ারিতে যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক সেক্রেটারি অফ স্টেট রেক্স টিলারসন বলেছিলেন যে, সিরিয়া থেকে পুরোপুরি সেনা প্রত্যাহার করা ঠিক হবে না৷ কারণ, এতে দেশটিতে আইএস ও আল কায়েদার প্রত্যাবর্তন ঘটতে পারে এবং সেখানে ইরানের প্রভাবও বেড়ে যাবে৷

টিলারসনের এই বক্তব্যে সিরিয়া নিয়ে মার্কিন কৌশল কী হতে পরে তা আন্দাজ করা যাচ্ছিলো৷ ঠিক এমন সময়ে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের এই উল্টো পথে হাঁটার বিষয়টি চমক হয়েই এল৷

টিলারসনকে চাকরিচ্যুত করার সিদ্ধান্ত এক টুইট বার্তায় জানিয়েছিলেন ট্রাম্প৷ প্রায়ই তিনি রাষ্ট্রের খুব গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্তগুলো মার্কিন জেনারেল বা কূটনীতিকদের কারো সাথে আলাপ না করেই ঘোষণা দিয়ে দেন৷

‘‘আমরা মধ্যপ্রাচ্যে সাত ট্রিলিয়ন ডলার খরচ করেছি৷ এর বদলে কী পেয়েছি জানেন? কিছুই না৷’’ ভাষণে বলছিলেন ট্রাম্প৷ তিনি মনে করেন, এই অর্থ নতুন চাকরির সুযোগ ও  অবকাঠামো নির্মাণে ব্যয় করা উচিত৷

জেডএ/এসিবি (এএফপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়